রাজস্থলীতে ভূমি জোনিং প্রকল্পের উদ্যোগে কর্মশালা

20170119_112125 copy

রাজস্থলী প্রতিনিধি:

কৃষি জমি নষ্ট করে আবাসন গৃহ নির্মাণ সহ কৃষি জমিতে যে কোন ধরনের স্থাপনা তৈরী সম্পর্কে সর্বসাধারণকে নিরুৎসাহিত করার লক্ষ্যে এবং জমির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে রাঙ্গামাটি জেলাধীন রাজস্থলী উপজেলায় বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার সময় এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জাতীয় ভূমি জোনিং প্রকল্পের আওতায় ওই কর্মশালায় ভূমি জোনিং ম্যাপ বিষয়ে মৌলিক ধারনা প্রদান করা হয়। উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি ভবনে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার লীজা খাজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান অংনুচিং মারমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ক্রয়সুইউ মারমা, রাজস্থলী থানা পুলিশ উপ-পরিদর্শক মো. ইউছুপ আলীসহ বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও রাজস্থলী হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক-শিক্ষিকা ও সহকারী শিক্ষিকা বৃন্দ।

কর্মশালার শুরুতে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা মিজানুর রহমান। কর্মশালায় বলা হয়, ভূ-সম্পদ আজ নানাভাবে মারাত্মক অবক্ষয়ের সম্মুখিন। জনসংখ্যা বৃদ্ধি, একই সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাদের জীবন জীবিকার মৌলিক চাহিদা। আর তাদের চাহিদা ও প্রয়োজনীয়তা মেটাতে গিয়ে মানুষের ভূমির অপরিকল্পিত ও অপরিমিত ব্যবহার বাড়ছে।

আবাদী জমি অপরিকল্পিতভাবে ঘরবাড়ি, কলকারখানা, রাস্তাঘাট ও বিভিন্ন শিল্প স্থাপনা নতুনত্বর নির্মাণ ইত্যাদি কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে। ফলে আবাদি জমি দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে এবং প্রকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে।

উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, জাতীয় ভূমি জোনিং প্রকল্পের আওতায় উপজেলা খসরা ভূমি জোনিং প্রকল্পের আওতায় ভূমি জোনিং ম্যাপ যাচাইকরণ বিষয়ক এ কর্মশালা ইতিমধ্যে বিভিন্ন উপজেলায় করা হয়েছে। কর্মশালার মুল উদ্দেশ্য হলো জমির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে মানুষকে সচেতন করে তোলা। রাস্তার আশপাশে অপরিকল্পিতভাবে কেউ যাতে বাড়ি ঘর নির্মাণ না করে, সে বিষয়ে সবাইকে সচেতন করা।

 অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সঞ্জয় দেবনাথ।




রাজস্থলীতে সড়ক দুর্ঘটনায় লংগদু বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ নিহত, আহত ৬

সড়ক দুর্ঘটনা
নিজস্ব প্রতিনিধি :

রাজস্থলীর চন্দ্রঘোনায় সড়ক দুর্ঘটনায় লংগদু বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ও সাবেক প্রধান শিক্ষক ভদন্ত মহাথের উঃ সুরাইয়া ভান্তে (৬০) নিহত হয়েছেন। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৬ জন।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় রাজস্থলী বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের সালাম মার্কেটের পূর্বদিকে যাত্রীবাহী একটি মাহিন্দ্র গাড়িকে অবৈধ জ্বালানী কাঠবাহী একটি চাদের গাড়ির (জীপ) মুখোমুখি সংঘর্ষের ফলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সংর্ঘষের ফলে মাহিন্দ্রটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে দুর্ঘটনাস্থলেই মহাথের উঃ সুরাইয়া ভান্তের মৃত্যু হয়। আহতদের মধ্যে মিসেস উমেনু মারমা (৩৭), মাক্যউ মারমা (৪০)’র অবস্থাও আশংকাজনক। এতে মাহিন্দ্রে থাকা অন্ত আরো ৪ জন যাত্রী আহত হয়।




পার্বত্য চুক্তির নব্বই ভাগ এ সরকারের মেয়াদে বাস্তবায়িত হবে: খাগড়াছড়িতে ওবায়দুল কাদের

khagrachari-picture-29-11-2016-copy

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে বেগম খালেদা জিয়া অংশ নিলে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের ইতিহাস অন্যভাবেও লেখা হতে পারতো। বিএনপি জনগণের প্রতি আস্থা হারিয়ে বিদেশীদের কাছে নালিশের রাজনীতি করছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

তিনি মঙ্গলবার খাগড়াছড়ি ও  রামগড়ে নির্মানাধীন সেতুর কাজ পরিদর্শনকালে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দেওয়া পৃথক দুটি গণসংবধর্নায় এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পার্বত্য চুক্তির নব্বই ভাগ এ সরকারের মেয়াদে বাস্তবায়িত হবে। ইতিমধ্যে ভূমি সমস্যা নিরসনের জন্য কমিশনের আইন সংশোধন করে বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য কাজ শুরু করা হয়েছে। উন্নয়নের মাধ্যমে পাহাড়ের দারিদ্রতাকে জাদুঘরে পাঠানো হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করেছে তাদের ক্ষমা নাই। দলে কোন্দল, কলহ সৃষ্টি করলে তাদের দলে থাকার অধিকার নাই। বসন্তের কোকিলদের জন্য যাতে দলের ত্যাগী নেতারা কোনঠাসা না হয়।

এ সময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামিম, নির্বাহী সদস্য দিপংকর তালুকদার, খাগড়াছড়ি আসনের সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, রাঙ্গামাটি আসনের মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক জাহেদুল আলমসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ দিকে ওবায়দুল কাদেরের আগমনকে কেন্দ্র সকালে জেলার রামগড়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ ও বিজিবি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।




কলেজ জাতীয়করণের দাবীতে  রাজস্থলীতে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাঙামাটি জেলার রাজস্থলীর বাঙ্গালহালিয়া কলেজটি জাতীয় করনের আদেশ পূর্নবহাল রাখার দাবীতে সকাল সন্ধ্যা অবরোধ কর্মসূচী পালন করেছে ওই এলাকাবাসী। বৃহষ্পতিবার সকাল থেকে অবরোধকারীরা অবস্থান নেয় রাজস্থলী উপজেলার বিভিন্ন সড়কে। উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পিকেটিংও করে তারা।

অবরোধের কারণে রাঙামাটি-বান্দরবান-কাপ্তাই-রাজস্থলী-চট্টগ্রাম-রাঙ্গুনিয়ার ৬টি সড়কে দূর-পাল্লার সব ধরণে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দোকান পাঠ বন্ধ ছিল। বসেনি হাট বাজার। স্কুল কলেনজ খোলা থাকলেও শিক্ষার্থীদের তেমন উপস্থিতি ছিলনা। উপজেলা বাজার এলাকায় বিক্ষোভ করে অবরোধকারীরা। তবে যে কোন নাশকতা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বাঙ্গালহালিয়া এলাকায়।

উল্লেখ্য, গত বুধবার রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া কলেজ জাতীয় করণের আদেশ পুনর্বহাল দাবীতে এক মানববন্ধন থেকে ওই এলাকায় সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ ঘোষণা করেন স্থানীয় এলাকাবাসী। অন্যদিকে, ১৯৯৮ সালে রাজস্থলী উপজেলায় বাঙ্গালহালিয়া কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হলেও এখন পর্যন্ত জাতীয়করণ করা হয়নি।  তাই শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের এ কলেজটি জাতীয় করণে দীর্ঘ দিনের দাবিপূরণে জন্য অবরোধ কর্মসুচী পালন করা হয়।




বাঙ্গালহালিয়া কলেজ জাতীয়করণের দাবিতে বৃহষ্পতিবার রাজস্থলীতে সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ

অবরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া কলেজ জাতীয় করণের আদেশ পূর্নবহাল রাখার দাবিতে বৃহষ্পতিবার সকাল-সন্ধ্যা অবরোধ ডেকেছে স্থানীয়রা। বুধবার সকালে রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া বাজারে মানববন্ধন থেকে এ ঘোষণা দেন বাঙ্গালহালিয়া কলেজ জাতীয়করণ আন্দোলন কমিটির নেতারা । এর আগে মানববন্ধনে বিভিন্ন দাবি সম্মলিত ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেছে ওই কলেজের শিক্ষার্থী ও সাধারণ নারী-পুরুষ।

এ সময় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ৩নং বাঙ্গালহালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও বাঙ্গালহালিয়া আন্দোলণ কমিটির আহ্বায়ক ও বাঙ্গালহালিয়ার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঞোমং মারমা,  আন্দোলন কমিটির সদস্য সচিব বিশ্বনাথ চৌধুরী, হেডম্যান প্রতিনিধি মংসিন চৌধুরীসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা ।

মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, ১৯৯৮ সালে রাজস্থলী উপজেলায় বাঙ্গালহালিয়া কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়।  রাঙামাটি শহর থেকে প্রত্যান্ত ও দূর্গম এলাকা হওয়ায় এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা উচ্চ শিক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত ছিল। কিন্তু বাঙ্গালহালিয়া কলেজ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর এ অঞ্চলে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে পড়ালেখা করতে পারছে। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি জাতীয়করণ না হওয়ায় সরকারি বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে পড়েছে এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

অবিলম্বে রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালীয়া কলেজ জাতীয় করণের আদেশ পূনর্বহাল করা না হলে আরও বৃহত্তর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে বলেও হুশিয়ালী দেন বক্তরা।




রাঙামাটিতে জেএসএস’র বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ

jss-rangamati-22-10

রাঙামাটি প্রতিনিধি:

রাঙামাটি জেলার  রাজস্থলী থানা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষ তঞ্চঙ্গ্যা বাচ্চু’কে গ্রেফতারের ঘটনাকে অন্যায় আখ্যায়িত করে এ গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি(জেএসএস) নামে একটি উপজাতীয় আঞ্চলিক সংগঠন।

বিক্ষোভ মিছিলটি শনিবার সকালে সদরের জিমনেশিয়াম প্রাঙ্গণ হতে শুরু হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে মিলিত হয়। পরে সেখানে একটি বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্যে রাখেন, জেএসএস’র কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পলাশ তঞ্চঙ্গ্যা, জেলা কমিটির ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক ত্রিজিনাদ চাকমা, পার্বত্য মহিলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক জোনাকি চাকমা, জেএসএস নেতা পদ্মলোচন চাকমা, যুব সমিতির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক বিনয় সাধন চাকমা, জেএসএস নেতা সুবর্ণা চাকমা ও কেন্দ্রীয় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল চাকমা প্রমূখ।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, রাজস্থলী থানা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষ তঞ্চঙ্গ্যা বাচ্চুকে ষড়যন্ত্র করে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার মামলা প্রত্যাহার করে তাকে নিঃর্শত মুক্তি দিতে হবে। তা না হলে কঠোর কর্মসূচি দিবে বলে সমাবেশ হুঁশিয়ারী দেন উপজাতীয় নেতা-কর্মীরা।




চাঁদাবাজি মামলায় বান্দরবানে জেএসএস নেতা গ্রেফতার

gsdger

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চাঁদাবাজির মামলায় রাজস্থলী জেএসএস’র সাংগঠনিক সম্পাদক সুবাশ চন্দ্র তঞ্চঙ্গ্যাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে বান্দরবান জেলা শহরের উজানী পাড়া থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত তদন্ত কর্মকর্তা কৃষ্ণ কুমার দাশ জানান, সুবাশ চন্দ্র তঞ্চঙ্গ্যাকে চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে সদর থানায় ২টি চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।




চাঁদা আদায়ের সময় যৌথবাহিনীর হাতে এক উপজাতীয় চাঁদাবাজ আটক

রাজস্থলী প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া বাজারে প্রকাশ্যে চাঁদা আদায়ের সময় উপজাতীয় এক চাঁদাবাজকে আটক করেছে যৌথবাহিনী। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা থেকে ১৮ কিমি: দুরস্থ বাঙ্গালহালিয়া বাজার থেকে তাকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে রাজস্থলী সেনা ক্যাম্প কর্তৃপক্ষ।

দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানিয়েছেন, একটি আঞ্চলিক সংগঠনের হয়ে বাঙ্গালহালিয়া বাজারে প্রকাশ্যে চাঁদা আদায় করছে এমন তথ্য পেয়ে বাজারে অভিযান পরিচালনা করে বাঙ্গালহালিয়ার যৌথবাহিনী। এ সময় চাঁদা টাকা সহ সূর্যরঞ্জন চাকমা (২০) নামের এক চাঁদাবাজকে হাতেনাতে আটক করা হয়। আটককৃতের বাড়ি বাঘাইছড়ি উপজেলার পাঙ্খুয়াছড়া গ্রামে বলে জানা গেছে। এসময় তার কাছ থেকে আদায়কৃত চাঁদার ৬৮১০ টাকা, ২টি মোবাইল সেট ও ৩টি সিমও উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

বাঙ্গালহালিয়া উপ থানার এএসআই আজাদ এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, যৌথ বাহিনী অভিযানের মাধ্যমে উক্ত চাঁদাবাজকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।




২৮ মাস বন্ধ বেতন: রাজস্থলীর ১৩ প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকদের মানবেতর জীবন যাপন

rajoctoli-pic-300x160

রাজস্থলী প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার রাজস্থলী উপজেলায় ১৩টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৮ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে শিক্ষকদের বেতন। দীর্ঘ এ সময়ে বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন এসব বিদ্যালয়ে নিয়োজিত শিক্ষররা।

জানা যায়, বেতন বন্ধ থাকা বিদ্যালয়গুলো হল শীলছড়ি নোয়াপাড়া, বগাছড়ি পাড়া, ছাবছড়া পাড়া, বুংবাইদং, খ্যংদং পাড়া, গাইন্দ্যা নোয়া পাড়া, খ্রোরাইম্ররং পাড়া, রোয়াসে পাড়া, দোছড়ি পাড়া, ধনুছড়ি, আড়াছড়ি, জীংম্ররং, বড় পাড়া এলাকায়। এসব প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করনের দাবী করেছেন সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকরা। বর্তমানে বেতন ভাতা না পাওয়ায় মানবেতর জীবন কাটতেছে তাদের। গত ২ বছর ৪ মাস ধরে তাদের বেতন ভাতা বন্ধ আছে বলে জানান শিক্ষকরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজস্থলী উপজেলার বিদ্যালয়গুলো ২০০৯ সাল থেকে ইউএনডিপি-সিএইচটিডিএফ প্রকল্পের অর্থায়নে মৌলিক শিক্ষা সহায়তা দান প্রকল্প হিসেবে চালু করে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ। ২০১৫ সালের জুন মাসে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়। প্রকল্পটি চালু অবস্থায় বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করণ করনের অন্তর্ভুক্ত করার কথা ছিল। কিন্তু আজ পর্যন্ত বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করণ করা হয়নি। তার আগে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতনভাতা বন্ধ হয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকরা জানিয়েছেন, রাজস্থলী উপজেলার ১৩টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ হওয়ার উপক্রম। এতে এসব বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের প্রাথমিক শিক্ষার ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি বেতন ভাতা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছেন কর্মরত শিক্ষকরা। কয়েকজন শিক্ষক এ প্রতিবেদককে বলেন, তারা বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করণ ও চাকুরী বেতনভাতা রাজস্ব খাতে হস্তান্তর হওয়ার আশায় কেবল ৪৭০০ (চার হাজার সাতশত) টাকা মাসিক সম্মানী নিয়ে চাকুরীতে যোগদান করেন। কিন্তু বিগত বছর পর্যন্ত অল্প বেতনের চাকুরী করার পরও বিদ্যালয়গুলো আজও জাতীয়করণ করনে আওতায় আনা হয়নি। তাদের বেতনভাতাও রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্ত হয়নি। বর্তমানে তাদের বেতন ভাতাও বন্ধ হয়ে গেছে। গত ২৮ মাস ধরে বেতন ভাতা না পাওয়ায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন তারা। এ অবস্থায় পাঠদান চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়।

এদিকে বিষয়টি মানবিক দিক বিবেচনা করে ঐসব বিদ্যালয় অবিলম্বে জাতীয়করণ সহ শিক্ষকদের চাকুরী ও বেতন ভাতা রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্তির জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবী জানিয়েছেন।




রাজস্থলীতে হিন্দু বিবাহ নিবন্ধক হয়েছেন মন্দিরের পুরোহিত

dilip-chakraborti-copy

রাজস্থলী প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলা হিন্দু সম্প্রদায়ের বিবাহ নিবন্ধক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মন্দিরের পুরোহিত দিলীপ চক্রবর্তী।

উপজেলার রাজস্থলী হরি মন্দিরের পুরোহিত শ্রী দিলীপ চক্রবর্তী আইন বিচার ও সংসসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  বিচার শাখা ৭/২ এন ২১/২০১৪-২৭৪ এর অনুমোদিত হিন্দু বিবাহ নিবন্ধক নিয়োগ প্রাপ্ত হয়েছেন। জন্ম সনদ ও জাতীয়তা সনদ এর ন্যায় বিবাহ সনদ মানব জীবনে প্রয়োজন হবে।

তিনি হিন্দু সমাজের বিবাহ নিবন্ধকের দায়িত্ব গ্রহণ করে সার্বিক সহযোগিতা করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন।