স্মৃতিসৌধে ফুল দিতে আ’লীগ ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে বাধার অভিযোগ জেলা বিএনপির

Khagrachari Pic 05 copy

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়িতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে ফুল দিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেছে জেলা বিএনপি। দিবসটি উপলক্ষে বেলা ১১টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সমাবেশে জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ এ অভিযোগ করেন।

জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি প্রবীন চন্দ্র চাকমার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মণীন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, ক্ষেত্র মোহন রোয়াজা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নাসির আহমেদ চৌধুরী, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল মালেন মিন্ট, সাংগঠনিক সম্পাদক এমএন আবছার, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম সবুজ, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল।

এদিকে জেলা বিএনপির সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে অভিযোগ করেন, মহান স্বাধীনতা ও বিজয় দিবস উপলক্ষে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছিল। তারই ধারাবাহিকতায় ২৬ মার্চ সকাল ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি মুক্তিযুদ্ধে স্মৃতিসৗধে ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ভাস্কর্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। কিন্তু কর্মসূচিকে সামনে রেখে গত ২/৩ দিন ধরে রামগড়, মাটিরাঙ্গা, মাইসছড়ি ও দিঘীনালা উপজেলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর আওয়ামী সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। প্রশাসন এ সব ন্যাক্কারজনক ঘটনার কোন প্রকার প্রতিকার ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

২৬ মার্চ খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির ‌র‌্যালিতে হামলা করার জন্য আওয়ামী সন্ত্রাসীরা আওয়ামী অফিসসহ একাধিক স্থানে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র সজ্জিত হয়ে সন্ত্রাসীদের জড়ো করে রাখে। এ অবস্থায় নেতাকর্মীরা বেলা ১১টা পর্যন্ত দলীয় অফিসে অবস্থান করে।  কিন্তু বেলা সাড়ে ১১টা  পর্যন্ত প্রশাসন নেতাকর্মীদের স্মৃতিসৌধে যাওয়ার বিষয়ে সম্মতি দেননি।

পরে প্রশাসনের অসহযোগিতা ও আওয়ামী সন্ত্রাসীদের পরিকল্পিত হামলা ও মামলা থেকে নেতাকর্মীদের রক্ষার্থে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি মহান স্বাধীনতা ও বিজয় দিবস উপলক্ষে দলীয় কার্যালয় সম্মুখে এক সমাবেশ থেকে স্মৃতিসৗধে যাওয়ার পূর্ব নির্ধারিত র‌্যালি বাতিল ঘোষণা করতে বাধ্য হয়। জেলা বিএনপি এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

উল্লেখ্য, গত ১৬ ডিসেম্বর বিএনপির র‌্যালিতে পুলিশের সামনে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে একাধিক নেতাকর্মী আহত করে এবং মিথ্যা মামলা দায়ের করে বলেও অভিযোগ করে।




রামগড় আ,লীগের সংবাদ সন্মেলনে দাবী : উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসভবনে কথিত হামলার ঘটনা মিথ্যা

20170325_185712

রামগড় প্রতিনিধি
রামগড় উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম ভুইয়ার বাসায় হামলা এবং তাঁর প্রাণ নাশের চেস্টার অভিযোগ মিথ্যা ও সাজানো নাটক বলে দাবি করেছে আওয়ামীলীগ।

বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে অভিযোগ করে, রামগড়ে  আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীরের নেতৃত্বে ৩০/৩৫ জন সন্ত্রাসী উপজেলা চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম ভুইয়ার বাস ভবনে হামলা চালায় এবং তাঁর  প্রাণ নাশের চেষ্টা করা হয়। বিএনপির এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি পার্বত্যনিউজ ডট কমসহ কয়েকটি অন লাইন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এর প্রেক্ষিতে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সন্মেলনের আয়োজন  করে আওয়ামীলীগ।

সংবাদ সন্মেলনে আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দলীয় অফিসে গণ হত্যা দিবস ও স্বাধীনতা দিবস পালনের প্রস্তুতি সভা হয়। এতে আওয়ামীলীগ ও অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীরা সবাই উপস্থিত  ছিলেন। রাতে অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত বিএনপির প্রেস রিলিজে তারা জানতে পারেন  উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসায় কথিত হামলার কথা।

আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, হামলার ঘটনা মিথ্যা। আর হয়ে থাকলে তা বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দল  অথবা পারিবারিক দ্বন্দ্বে হতে পারে। আবার সাজানো ঘটনা ঘটিয়ে আওয়ামীলীগের সুনাম নষ্ট করার ষড়যন্ত্রও হতে পারে।

বিগত বিএনপি জামায়াত সরকারের আমলে রামগড়ে আওয়ামীলীগের নেতা কর্মী সমর্থকদের উপর অত্যাচার, নির্যাতন ও বাড়িঘর ছাড়া করার কথা উল্লেখ করে তারা বলেন, আওয়ামীলীগ নেতার মায়ের জানাজায়ও আসতে দেয়া হয়নি। অথচ দল ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামীলীগ অত্যাচার,  নির্যাতনের প্রতিশোধ না নিয়ে সব দলের সহবস্থানের পরিবেশ গড়ে তোলা হয়েছে। শান্তি পূর্ণ সহবস্থান নষ্ট করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে বিএনপি  একের পর এক মিথ্যা  অভিযোগ তুলছে।

সংবাদ সন্মেলনে উপজেলা চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম ভুইয়ার বিরুদ্ধে সরকারি বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের টাকা লুটপাটসহ দাপ্তরিক নানা অনিয়ম, দুর্নীতির অভিযোগ করা হয়।

সংবাদ সন্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহবায়ক কাজী  নুরুল আলম (আলমগীর)। বক্তব্য দেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য শের আলী ভুইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক ও ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহ আলম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মো. মোস্তফা হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক  রফিকুল ইসলাম কামাল।

উপস্থিত ছিলেন, পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহবায়ক বিশ্ব ত্রিপুরাসহ আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতৃবৃন্দ  ।




খাগড়াছড়িতে গণহত্যা দিবস পালন

Khagrachari Pic 01
নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:
খাগড়াছড়িতে নানা আয়োজনে গণহত্যা দিবস পালন করছে আওয়ামীলীগ।

শনিবার সকালে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার নেতৃত্বে শহীদ স্মরণে একটি শোক র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক ঘুরে টাউন হলের সামনে মুক্তিযুদ্ধে চেতনা মঞ্চে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা নুরুন্নবী চৌধুরী, সহ-সভাপতি কল্যান মিত্র বড়ুয়া, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য নির্মলেন্দু চৌধুরী, জেলা পরিষদ সদস্য মংশিপ্রু চৌধুরী অপু, এডভোকেট আশুতোষ চাকমা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শানে আলম, জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান হেলাল, সাধারণ সম্পাদক কে এম ইসমাইল হোসেন ও পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো জাবেদ হোসেনসহ জেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।




কল্পনা চাকমা অপহরণ মামলার শুনানী পেছানোয় প্রতিবাদ

কল্পনা চাকমা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : পার্বত্য চট্টগ্রামের ৫ নারী সংগঠন (হিল উইমেন্স ফেডারেশন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘ, নারী আত্মরক্ষা কমিটি, সাজেক নারী সমাজ ও ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি) এর নেতৃবৃন্দ ২২ মার্চ ২০১৭, বুধবার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেছেন, শুনানী পেছানোর নামে কল্পনা চাকমা অপহরণে জড়িত চিহ্নিত অপরাধীদের রক্ষার প্রচেষ্টা জনগণ মানবে না। নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে চিহ্নিত অপরাধীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে চলমান আন্দোলন অব্যাহত রাখবে বলেও ঘোষণা প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, ২২ মার্চ কল্পনা চাকমা অপহরণ মামলার শুনানী ছিল। কিন্তু অপরাধীদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ প্রদান না করে শুনানীর দিন আবারো পিছিয়ে ২ মে, ২০১৭ ধার্য করা হয়েছে।

নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, চিহ্নিত অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ না করে বারবার শুনানী পেছানোর মাধ্যমে আদতেই প্রকৃত অপরাধীদের রক্ষা করার চেষ্টা করা হচ্ছে কি না তা এখন আমাদের ভাবাচ্ছে।

নেতৃবৃন্দ শুনানীর নামে বারবার কালক্ষেপন করে কল্পনা চাকমার পরিবারকে হয়রানি করা হচ্ছে অভিযোগ করে বলেন, শুনানী পেছানোর নামে চিহ্নিত অপরাধীদের রক্ষার প্রচেষ্টা জনগণ মানবে না।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের সভাপতি সোনালী চাকমা, নারী আত্মরক্ষা কমিটির আহ্বায়ক এন্টি চাকমা, সাজেক নারী সমাজের সভাপতি নিরুপা চাকমা ও ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি কাজলী ত্রিপুরা।




চকরিয়ায় লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

chakaria faytng jubaleug 21-03-2017
চকরিয়া প্রতিনিধি :
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চকরিয়া উপজেলাধীন লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন শাখার বর্ধিত সভা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ সাইকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক জুবাইদুল হক মিন্টুর পরিচালনায় গতকাল ২১ মার্চ বিকাল ৫টায় জিদ্দাবাজারস্থ চাইল্ড মর্ডান স্কুল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এডভোকেট শহিদুল্লাহ্ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহীদ, বিশেষ অথিতি লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রেজাউল করিম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক খ ম আওরঙ্গজেব বুলেট।

প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দীন কছির, বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর মুজিবুল হক মুজিব, সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান, উপজেলা শ্রমিকলীগের আহবায়ক জামাল উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা বশির আলম, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মো. রাসেল ও শফিউল আজম, সাংগঠনিক সম্পাদক অহিদুজ্জামান অহিদ, তারেকুল ইসলাম চৌধুরী ও ফরহাদ হোসেন পার্কেল, অর্থ সম্পাদক আজিজুল হক, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মাহামুদুল হক চৌধুরী তফসির, সহ সম্পাদক ওসমান গণি, উপজেলা যুবলীগের সহ সম্পাদক ফোরকানুল ইসলাম, জয়নাল হাজারী, মঈনুল ইসলাম, উপজেলা তাঁতী লীগের আহ্বায়ক মো. সলাহউদ্দীন, ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মঈনউদ্দীন, আবদুল্লাহ আল মামুন, মো. সাদেক, আজাহার উদ্দীন, নজরুল ইসলাম, শখাওয়াত হোসেনসহ ইউনিয়ন ও ওর্য়াড়ের নেতৃবৃন্দ।




চকরিয়ায় এরশাদের জন্মদিন পালিত

chakaria japa- m.p elias 20-3-2017
চকরিয়া প্রতিনিধি :
জাতীয় পার্টি চকরিয়া উপজেলা, পৌরসভা ও মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা শাখার বিশেষ বর্ধিত সভা, প্রধান কার্যালয় উদ্বোধন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মু. এরশাদের ৮৮তম জন্মদিন কেক কেটে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হয়েছে।

২০ মার্চ উপজেলা পরিষদ সড়কের সমাজসেবা কার্যালয়ের সামনে জাতীয় পার্টির প্রধান কার্যালয় প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধন করেন চকরিয়া পেকুয়া আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য, কক্সবাজার জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ মোহাম্মদ ইলিয়াছ (এম.পি)।

চকরিয়া পৌরসভা জাতীয় পার্টির সভাপতি সাবেক কমিশনার মো. জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও মাতামুহুরী উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কক্সবাজার জেলা জাতীয় পার্টির সিনিয়র সহসভাপতি মোশারফ হোসেন দুলাল, সহসভাপতি আনোয়ারুল এহেছান বুলু মিয়া, প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদীকা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসমাউল হুসনা, বিশেষ অতিথি চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন এমইউপি, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, মাতামুহুরী উপজেলা সাবেক সভাপতি মৌলভী ছিদ্দিক আহমদ, বর্তমান কমিটির সভাপতি টিপু সোলতান, পৌরসভা সাধারণ সম্পাদক মুবিনুল হক নওশাদ, উপজেলা সহসভাপতি ও ডুলাহজারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল আমিন, চকরিয়া উপজেলা মহিলা পার্টির সভাপতি আসমাইল হোসনা, পৌরসভা সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য রেহেনা খানম রাহু, উপজেলা সাধারণ সম্পাদক সজরুন্নাহার বুলু, পৌরসভা সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর আনজুমান আরা বেগম, মাতামুহুরী সহসভাপতি বদিউল আলম সহ জাতীয় পার্টি, ওলামা পার্টি, মহিলা পার্টি, কৃষকপার্টি, যুব সংহতি, জাতীয় ছাত্র সমাজের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।




খাগড়াছড়িতে তিন শতাধিক রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের বিএনপিতে যোগদান

Khagrachari Pic 20-03-2017 copy

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙার সাবেক পৌরসভার মেয়র ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নাসির আহমেদ চৌধুরীর নেতৃত্বে তিন শতাধিক রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ বিএনপিতে যোগ দিয়েছে। সোমবার দুপুরে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূইয়ার হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে তারা বিএনপিতে যোগ দেন।

যোগদানকারী অপর নেতৃবৃন্দের মধ্যে রয়েছে, মাটিরাঙা উপজেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কামাল উদ্দিন, মো. ফারুক হোসেন, হাজী মোকছদ, মো. দেলোয়ার হোসেন পিসি, মো. দেলোয়ার হোসেন, আবু ছায়েদ, বাদশা মিয়া পিসি, মোসলেম উদ্দিন, আবু তাদের, মো. কাদের মেম্বার, কামাল উদ্দিন চৌধুরী, আবু তাহেদ সদ্দার, ডা. জসিম উদ্দিন, চান মিয়া, আবু বক্কর সিদ্দিক, মো. হোসেন, ফরিদ উদ্দীন, মো. ইব্রাহিম ও আব্দুল বরেক।

যোগদান  অনুষ্ঠানে ওয়াদুদ ভূইয়া দলে নবাগতদের স্বাগত জানিয়ে সকল ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে নতুন-পুরাতন নেতৃত্বকে  মিলে দলকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।

যোগদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, দলে নবাগত নাসির আহমেদ চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি প্রবীণ চন্দ্র চাকমা, মণীন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক রামগড় উপজেলা চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম ফরহাদ, মাটিরাঙা উপজেলা চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, মাটিরাঙা উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আলী হোসেন বকুল, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বাদশা মিয়া।

এ সময় জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কৗচাইরী মারমা, মেংসাথোয়াই চৌধুরী, অনিমেষ দেওয়ান নন্দিত, মোসলেম উদ্দিন, ক্ষেত্র মোহন রোয়াজা, মোজাম্মেল হোসেন বাবলু, হাফেজ আহমেদ ভূইয়া, বেলাল হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল মালেক মিন্ট, আইয়ুব খান, অনিশেষ চাকমা রিংকু, সাংগঠনিক সম্পাদক এমএন আবছার ও আব্দুর রব রাজাসহও বিএনপি অঙ্গসহযোগ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।




পেকুয়ায় সদর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা

পেকুয়া প্রতিনিধি :
পেকুয়া সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৭ মার্চ শুক্রবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিন পালন ও পরবর্তীতে ২৫ মার্চ কালো রাত্রি, ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস-২০১৭ পালন এবং নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণকল্পে এদিন বিকাল ৩টায় পেকুয়া বাজারস্থ্য উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে পূর্ব নির্ধারিত এ সভা অনুষ্টিত হয়।

সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এম আযম খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বেলাল উদ্দিন বিএসসি’র সঞ্চালনায় অনুষ্টিত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য জি এম আবুল কাসেম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহনেওয়াজ চৌধুরী বিটু। প্রধান বক্তা ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কাসেম।

এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মফিজুর রহমান, সদর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি খলিলুর রহমান, ফিরোজ মেম্বার, সাবেক মেম্বার বদিউল আলম, জহিরুল আলম, মো. আলম, যুগ্ম-সম্পাদক ফোরকান এলাহি, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন খোকা, দপ্তর সম্পাদক মো. বাহাদুর, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংষ্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক তফসিরুল ইসলাম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন, মৎস্যজিবীলীগ নেতা জাকিরুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা মো. সেলিম, আবুল হোসেন, মফিজুর রহমান ভেট্টা, আবুল কালাম, আবদুল খালেক, আতিকুর রহমান, মনসুর আলম বাবুল, মফিজুর রহমান, হেলাল উদ্দিন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি সম্পাদক আমিরুল খালেদ, জাহাঙ্গীর আলম, নাছির উদ্দিন, নুরুল কাদের, আবদুল মান্নান, নুরুল আলম নুরু, মৌলভী ফরিদুল আলম, কায়সার উদ্দিন, মো. বাচ্চু, নুরুল আজিম, শাহ আলম, জয়নাল আবেদীন, মো. বাদশা, কায়ছার উদ্দিন, নাছির উদ্দিন মাঝি, মৌলভী আখতার হোছাইন, শাহ আলম ছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, শহিদুল আলম, মো. জহির, মনছুর আলম, আবুল কালাম, আবুল কাসেম, মোস্তাক আহমদ, হেলাল উদ্দিন, মনছুর আলম বাবুল, ছাত্রলীগ নেতা বেলাল উদ্দিন মিয়াজী প্রমুখ।




বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে মাটিরাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের বর্ণাঢ্য র‌্যালি

088

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে মাটিরাঙ্গা পৌর শহরে বর্ণাঢ্য র‌্যালি করেছে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগ।  শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মাটিরাঙ্গা দলীয় কার্যালয় থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিশালাকৃতির প্রতিকুতি নিয়ে বর্ণাঢ্য র‌্যালিটি শুরু করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

এসময় ‘শুভ শুভ শুভ দিন বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, আজকের এ দিনে মুজিব তোমায় পড়ে মনে’ এমন সব শ্লোগানে মাটিরাঙ্গা পৌর শহরজুড়ে অন্যরকম এক আবহ তৈরি হয়।

র‌্যালি শেষে দলীয় কার্যালয়ে মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র মো. আলাউদ্দিন লিটন, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও পৌর কাউন্সিলর মো আবুল হাশেম ভুইয়া ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. রফিকুল ইসলামসহ শীষ নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে কেক কেটে জন্মদিনের উৎসব করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
1076
পরে মাটিরাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র মো. আলাউদ্দিন লিটন। মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও পৌর কাউন্সিলর মো. আবুল হাশেম ভুইয়া ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। মাটিরাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মো. তসলিম উদ্দিন রুবেল অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত হয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করার আহবান জানিয়ে বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন এদেশের অবহেলিত ছাত্রসমাজের পথ প্রদর্শক। তিনিই বাংলাদেশের ছাত্রদের ঐক্যবদ্ধ করে আজকের বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেন। বঙ্গবন্ধুর পথ ধরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদেরও ছাত্র সমাজের পথ-প্রদর্শক হিসেবে আবির্ভুত হওয়ার আহবান জানান বক্তারা।




কঠোর গোপনীয়তার মধ্য দিয়ে চলছে পার্বত্য জনসংহতি সমিতি (সংস্কার)’র কেন্দ্রীয় সম্মেলন

received_1829754920580180

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি :
খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার খাগড়াপুর কমিউনিটি সেন্টারে পার্বত্য জনসংহতি সমিতি (সংস্কার) এর ১১তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন ১৭ মার্চ শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে শুরু হয়েছে। কঠোর গোপনীয়তা রক্ষা করে চলছে এ সম্মেলন। সম্মেলনে নির্দিষ্ট কিছু ব্যাক্তি এবং দলীয় নেতাকর্মী ব্যতীত অন্যান্য মিডিয়া কর্মীদেরও প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।

পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি দ্রুত বাস্তবায়নসহ আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকার আন্দোলন জোরদার করার লক্ষ্যে বৃহত্তর জুম্ম জাতীয় ঐক্য গড়ে তলুন এ শ্লোগান রেখে সম্মেলনে উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিদায়ী কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের সভাপতি সুধাসিন্ধু খীসা। ১৭, ১৮ ও ১৯ মার্চ তিনদিন ব্যাপী চলবে এ সম্মেলন।

এ সম্মেলনে দক্ষ ব্যক্তিদের দলের দায়িত্ব দেওয়া হবে বলে মন্তব্য করেন কাউন্সিলে আগত একজন নেতা। তিনি আরো জানান, আগামিতে জুম্ম জাতীর অধিকার আদায়ের সংগ্রাম এবং দলের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দেবে এমন দক্ষ ব্যক্তিদের দায়িত্ব দেওয়া হবে।