কাপ্তাইয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে লাল-সবুজ স্টিকার বিতরণ

CARD UNO

কাপ্তাই প্রতিনিধি :
সকল স্কুল শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতামূল সৃষ্ঠির লক্ষ্যে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ব্যাতিক্রমধর্মী উদ্যোগ। কাপ্তাই উপজেলার মাধ্যমিক স্কুলের সকল ছাত্র/ছাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজে দু’টি স্টিকার প্রদান করেন। একটি স্টিকার লাল অন্যটি সবুজ রঙের। লালটিতে সচেতনতার জন্য লেখা রয়েছে বাল্য বিবাহকে না বলুন, যৌতুককে না বলুন, মাদকে না বলুন এবং সবুজ স্টিকারে লেখা রয়েছে গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান, সবার জন্য শিক্ষা ও বন্য প্রাণী রক্ষা করুন।

তিনি সকল শিক্ষার্থীদের এ দু’টি স্টিকার নিজ বইয়ের উপরে লাগানোর জন্য শিক্ষার্থীদের আহবান জানান। কাপ্তাই উপজেলা আ’লীগ সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইছাইন চৌধুরী  বলেন, নির্বাহী কর্মকর্তার এ কাজটি একটি ব্যাতিক্রম ধর্মী মহৎতী উদ্যোগ যা প্রসংশার দাবিদার।

৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্র্থী ফারজানা আমিন বর্ষা এবং দশম  শ্রেণীর ছাত্র মানিক বলেন, আমাদের মঙ্গলের জন্য এ স্টিকারটি প্রদান করা হয়েছে। এ জন্য নির্বাহী কর্মকর্তা কে ধন্যবাদ জানাই।

কাপ্তাই উচচ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মাহাবুব হাসান বলেন, এ ধরনের উদ্যোগ আমার মনে হয় এ প্রথম দেখলাম। এ ধরনের মহৎতী উদ্যোগ নিতে বা সচেতনতা সৃস্টির লক্ষ্যে কাজ করছে তা অবশ্যই প্রশংসা করার মত। কাপ্তাই মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সৈয়দ মাহামুদ হাসান বলেন,নির্বাহী অফিসার নিজ উদ্যোগে যে ব্যবস্থা নিয়েছেন তা ছাত্র/ছাত্রীদের বাস্তব জীবনে চলার পথকে সুন্দার করবে বলে আশার বিশ্বাস। এ ধরনের উদ্যোগ আমাদের সকলের নেওয়া প্রয়োজন বলে তিনি মতা প্রকাশ করেন।

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলম বলেন, আমি দেখছি বর্তমান সময়ে অনেক ছোট, ছোট ছাত্রীদের মা-বাবা বাল্য বিবাহ দিচ্ছে। যা সংসার জীবনে তথা সরকারী আইনকে অমান্য করার মত। এবং স্কুল পর্যায়ে অনেক শিক্ষার্থী মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে। যা একটি পরিবার তথা দেশ ও রাষ্টের জন্য ক্ষতিকার বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এছাড়া তিনি আরো বলেন,স্কুল পর্যায়ে জদি আমরা এদের সচেতনতা মূলক ভাল কিছু শিক্ষা  দিতে পাড়ি তাহলে চলার পথ সুন্দার হবে। জদি একজন ছাত্র একটি গাছ লাগায় তাঁর দেখা-দেখি পিতা মাতাও লাগানোর জন্য আগ্রহ প্রকাশ করবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।  এবং এর ফলে অবশ্যই ভাল কিছু ফলাফল পাওয়া যাবে। ভাল কিছু জন্য সমাজ ভাল হবে এবংসকলে ভাল থাকবে চলার পথ সুন্দার হব হবে। তাই স্কুল শিক্ষার্থীদের নিজ উদ্যোগে এ লাল,সবুজ স্টিকার প্রদান করে ব্যাতিক্রম ধর্মী একটি উদ্যোগ নিয়েছি বলে মন্তব্য করেন।




বাঙাল হালিয়া স্কুলে কাপ্তাই তথ্য অফিসের আয়োজনে উদ্বুদ্ধকরণ সভা

27-04- copy

কাপ্তাই প্রতিনিধি:

কাপ্তাই উপজেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে বাঙাল হালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগসমুহ ব্র্যান্ডিং বিভিন্ন সেক্টরে সরকারের অর্জিত সফলতা ও উন্নয়ন ভাবনা, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যসমূহ(এসডিজি) এবং মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ বিষয়ে আলোচনা সভা, উদ্বুদ্ধকরণ সঙ্গীতানুষ্ঠান ও চলচ্চিত্র প্রদর্শন কাপ্তাই উপজেলা ও রাজস্থলী নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কাপ্তাই উপজেলা সহকারী তথ্য অফিসার মোহাম্মাদ হারুন।

বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান ক্রয়ইসুই মারমা, বাঙাল হালিয়া কলেজ অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন তালকুদার, ইউপি চেয়ারম্যান ক্রাসং মারমা, বিদ্যালয় প্রধা শিক্ষক সাখ্যঅং চৌধুরী, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম, মংচিং (হেডম্যান), সাংবাদিক আজগর আলী, চন্দ্রঘোনা থানার প্রতিনিধি এসআই মো. ওয়াদুদ, সহকারী প্রধান শিক্ষক কনক বড়ুয়া, শিক্ষক রতন কুমার প্রমুখ। এ সময় বিভিন্ন গনমাধ্যম কর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি বলেন, সরকারের উন্নয়ন, সফলতা ধরে রাখতে হলে আমাদের সকলের একযোগে কাজ করতে হবে। তাহলে আমরা মধ্যমায়ের দেশে পরিনত হব।

নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলম শিক্ষার্থীদের বলেন, তোমরা মাদক, বাল্যবিবাহ, এবং সকল খারাপ কাজ হতে দূরে থাকবে। কেউ খারাপ কাজ করছে, তাদের প্রশাসনের মাধ্যমে প্রতিরোধ করতে এগিয়ে আসবে।




বাঘাইছড়িতে চাঁদার জন্য তিন বাঙ্গালী শ্রমিককে মারধর করেছে উপজাতীয় সন্ত্রাসীরা

hg copy

সাজেক প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটি বাঘাইছড়ি উপজেলার তিনজন বাঙ্গালী শ্রমিককে চাঁদার জন্য মারধর করেছে উপজাতীয় সন্ত্রাসীরা।

বুধবার বিকাল ৪টার সময় রুপকারী দোখাইয়া নামক স্থানে পাবলিক হেল্থ কর্তৃক টেন্ডারকৃত রাঙ্গামাটির ঠিকাদার রুবেল’র দু’টি রিংওয়েলের কাজ করার জন্য বাঘাইছড়ি উপজেলার পশ্চিম মুসলিম ব্লকের বাসিন্দা স্থানীয় শ্রমিক মো. শাহ আলম (২৬) পিতা মো. আলী হোসেন, মো. নুরমোহাম্মদ (২৮) পিতা জামাল হোসেন, মো. তাজুল ইসলাম (৪৫) পিতা. মো. চানমিয়া  ওই এলাকায় কাজের উদ্দেশ্যে যায়।

সেখানে চাঁদার টাকা আগে পরিশোধ না করে কেন কাজ করতে এসেছে এমন কথা বলে ৭/৮ জন উপজাতীয় সন্ত্রাসী লাঠি-সোটা এবং রড নিয়ে তাদের এলোপাথাড়ি মারধর করতে থাকে। পরে কাজের স্থান থেকে জঙ্গলের ভিতরে নিয়ে পুনরায় লাথি ও কিল ঘুষি এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। তারা নিজেদেরকে ইউপিডিএফ’র সদস্য বলে দাবি করেছে বলেও জানায়।

ধাপে ধাপে তিনবার শ্রমিকদের উপর নির্যাতন চালায় সন্ত্রাসীরা। পরে রাত আটটার দিকে তাদেরকে ছেড়ে দেয় বলেও জানায়।

এসময় সেখানে তারা কয়েজনকে চিনতে পেরেছে বলে জানালেন, আহত মো. শাহ আলম। চিহ্নিতরা হলো-আসেন্দু চাকমা(২৪) পিতা  অঞ্জ্যত গ্রাম গোলাছড়ি, বদল চাকমা (২৪) পিতা বড় পেদা গ্রাম বালুখালি, মটর চাকমা (২০) পিতা ঘুধু চাকমা গ্রাম বালুখালি, রনজিৎ চাকমা(২৮) পিতা সিন্দু লাল চাকমা গ্রাম মগবান, আমিক্কো চাকমা(২২)।

আহতরা কোনরকম প্রাণে বেঁচে এসে রাত ১০টার দিকে বাঘাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে তারা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎিসাধীন রয়েছে।

এবিষয়ে বাঘাইছড়ি উপজেলা ইউপিডিএফ’র পরিচালক জুয়েল চাকমা বলেন, ঘটনাটি সম্পর্কে আমার জানা নেই। আমি বর্তমানে এলাকার বাহিরে আছি তবে আমি খোঁজ নিয়ে দেখছি এ ধরনের ঘটনা আমাদের কেউ করেছে কিনা। তবে এমনও হতে পারে কেউ ঘটনা ঘটিয়ে আমাদের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে।

এবিষয়ে বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন বলেন, আহতদের অভিযোগের প্রেক্ষিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাদের অভিযোগটি বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আহতদের অবস্থার উন্নতি হলে তারা মামলা করবে বলেও জানিয়েছে আহতদের স্বজনরা।




ছাদিকুল হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাঙ্গামাটিতে বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের সমাবেশ

18191272_1267663426673938_129562633_n copy

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার উদ্যোগে ১২ এপ্রিল নানিয়াচর উপজেলার ঘিলাছড়িতে ছাদেকুল ইসলাম (২৩) হত্যার বিচার ও নিরাপত্তাবাহিনীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধ করা এবং পাহাড়ে সেনা ক্যাম্প বৃদ্ধির দাবিতে রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ মিছিলও প্রতিবাদ সমাবেশ পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় পৌরসভার সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান, সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মো. নূর শফিউল্লাহ্, যুগ্ম সম্পাদক মো. নাজিম, কলেজ শাখার আহ্বায়ক ফয়জুল্লাহ মোরশেদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দগণ।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য নাগরিক পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার আহ্বায়িকা বেগম নূর জাহান,

তিনি বলেন, নামধারী একটি মহল পার্বত্যাঞ্চলকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে। এছাড়া দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারীদের নিরাপত্তাবাহিনীর ভাবমর্তি ক্ষুন্ন করতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। বহুদিন যাবৎ পার্বত্যাঞ্চলে নামধারী কতিপয় উপজাতীয় আঞ্চলিক সংগঠনগুলো বাঙালিদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রেখেছে। তাদের অবৈধ অস্ত্রের মুখে পাহাড়ের মানুষ আজ নিরাপত্তাহীন।

অন্যান্য বক্তারা আরও বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে উপজাতি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী গুম, খুন, চাঁদাবাজি, অপহরণ অব্যাহত রেখেছে। স্বাধীনতার পর থেকে বিভিন্ন সময় এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ (চল্লিশ) হাজার সাধারণ বাঙালিকে হত্যা করেছে এ উপজাতী সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো। এখন নতুন করে আবার বাংলাদেশ নিরাপত্তাবাহিনীকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তাদের এ ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করার জন্য বাঙালি সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। সেই সাথে সাদেকুল সহ পাহাড়ে সকল বাঙ্গালী হত্যার বিচার পূর্বক নিরাপত্তা বৃদ্ধির লক্ষে অধিক হারে সেনা ক্যাম্প স্থাপনের জোর দাবি জানান।




রমেল চাকমা হত্যার প্রতিবাদে নান্যাচর বাজার বয়কট

17992297_130084454202272_1637516393245414906_n copy

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

ছাত্র নেতা রমেল চাকমাকে হত্যার প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে রমেল হত্যা প্রতিবাদ কমিটি ও পিসিপির উদ্যোগে রাঙ্গামাটি জেলার নান্যাচর বাজার বয়কট কর্মসূচী পালন করেছে।

পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বুধবার বাজার বর্জন কর্মসূচির প্রতি নান্যাচর এলাকার জনসাধারণ সমর্থন জানিয়েছে বলে পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)’র পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

পিসিপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক রোনাল চাকমা স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, বুধবার নান্যাচর বাজারের সাপ্তাহিক হাটের দিন হওয়া সত্ত্বেও স্কুলের পরীক্ষার্থী ব্যতীত কাউকে বাজারে আসতে দেখা যায়নি। বাজারে কোন লোকজন না আসাতে অধিকাংশ দোকান পাট বন্ধ দেখা যায়। তবে কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে বাজার এলাকায় ব্যাপকভাবে সেনা ও পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে।




রাঙ্গামাটিতে বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের দুই নেতা গ্রেফতার, ১২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম, পরবর্তীতে মুক্তি

18155228_705265913009343_291558235_n

নিজস্ব প্রতিনিধি :

রাঙামাটিতে ছাত্র ইউনিয়নের মানবন্ধন কর্মসূচিতে হামলার অভিযোগে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের দুই নেতাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। বুধবার সকাল ১১টার দিকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে ছাত্র ইউনিয়নের মানববন্ধন চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

ছাত্র ইউনিয়ন নেতারা জানান, মানববন্ধন ও সমাবেশ চলাকালে তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীরা। মানবন্ধনের ব্যানারটি কেড়ে নিয়ে নেতাকর্মীদেরও মারধর করে ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীরা।

এ সময় টহলরত পুলিশ পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক এক বিবৃতিতে ১২ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারকৃত নেতাদের মুক্তির দাবি জানিয়ে বলা হয়, নাম সর্বস্ব একটি বাম সংগঠন রাষ্ট্র বিরোধী সমাবেশে সাম্প্রদায়িক ও সংবিধান বিরোধী বক্তব্যদানকালে তাদের বাধা দেওয়ার সময় পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের দুই নেতাকে পুলিশ বেআইনিভাবে আটক করেছে। ১২ ঘণ্টার মধ্যে তাদের নিঃশর্ত মুক্তি না দিলে বিক্ষোভ মিছিল, অবরোধ ও হরতালের মতো কঠোর কর্মসুচি দেওয়া হবে।

জানা যায়, পরে উভয়পক্ষের সমঝোতার ভিত্তিতে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের আটককৃত দুই নেতাকে ছেড়ে দেয়া হয়। রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রশীদ ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 




কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয়ে সেকায়েপের বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ

KM M copy

কাপ্তাই প্রতিনিধিঃ

কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয়ে সেকায়েপ প্রকল্পের আওতাধীন পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান বুধবার বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌ: আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, কাপ্তাই নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হোসেন। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইছাইন চৌধুরী, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সৈয়দ মাহামুদ  হাসান, সহকারী প্রধান শিক্ষক মাহাবুব হাসান ও সাংবাদিক কবির হোসেন প্রমুখ।

এ সময় সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। নির্বাহী কর্মকর্তা শিক্ষার্থীদের বলেন, তোমরা শিক্ষকদের কথা মানবে এবং তাদের সম্মান করবে। তাহলে তোমরা একদিন বড় হতে পারবে।উল্লেখ্য, ২৪৫জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরীক্ষায় ১২জন কৃর্তকার্য অর্জন করায় তাদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।




কাপ্তাইয়ে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের জেলা প্রশাসকের পক্ষ হতে চাল বিতরণ

PURIG copy

কাপ্তাইপ্রতিনিধি:

কাপ্তাই নতুনবাজার কেপিএম টিলায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৩টি পরিবারের  রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে বুধবার দুপুর ২টায় কাপ্তাই ৪নং ইউপি পরিষদ কার্যালয়ে বিশ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়। জেলা প্রশাসকের পক্ষে চাল বিতরণ করেন কাপ্তাই নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমান উপজেলা আ’লীগের সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান নুরনাহার বেগম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সুপ্তশ্রী শাহা, ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌ: আব্দুল লতিফ, উপজেলা ক্রীড়া আহ্বায়ক কাজী মাকসুদুর রহমান বাবুল, ফিরোজ আহমেদ, ইউপি সদস্য সজিবুর রহমান, আব্দুল আহাদ সেলিম, মহিম ও সাংবাদিক কবির হোসেনসহ এবং কাপ্তাই লগগেইট কালি মন্দির’র পুরোহিত সকল ক্ষতিগ্রস্তদের এ সময় একটি করে গামছা প্রদান করে।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে জেলা প্রশাসকের পক্ষ হতে আরও দশকেজি কেজি চাল বিতরণ করা হয় বলেও ইউপি চেয়ারম্যান উল্লেখ করেন। বর্তমানে ক্ষতিগ্রস্তরা ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে খোলা আকাশের নিচে অসুস্থ হয়ে মানবতার জীবন -যাপন করছে।




রাঙ্গামাটিতে বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

Rangamati News World Malaria Day 2017 copy

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও সহযোগী সংস্থা সমূহের আয়োজনে র‌্যালি ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে রাঙ্গামাটি জেলায় বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবস-২০১৭ পালিত হয়েছে।

“চিরতরে ম্যালেরিয়া হোক অবসান” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহরের তবলছড়ি জামে মসজিদ চত্বর থেকে শুরু হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সিভিল সার্জন কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

র‌্যালির পর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সভাকক্ষে সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালুকদারের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ডেপুটি সিভিল সার্জন সাবরিনা সুলতানা, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বিনোদ শেখর চাকমা সহ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মীসহ বিভিন্ন স্তরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা বসতবাড়ির চতুর্পার্শ্বে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা ও কীটনাশকযুক্ত মশারি ব্যবহারের উপর গুরুত্বারোপ করে সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য ম্যালেরিয়া মুক্ত পরিবেশ  গড়তে  সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

এছাড়া সিভিল সার্জন কার্যালয় চত্বরে স্বাস্থ্য ক্যাম্প করে বিনামূল্যে ম্যালেরিয়ার রক্ত পরীক্ষা ও রক্ত গ্রুপ নির্ণয় করা হয়।




পিসিপি’র অবস্থান ধর্মঘট পালিত

news pic (4) copy

রাঙামাটি প্রতিনিধি:

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) নেতা রমেল চাকমার সেনা হেফাজতে মৃত্যুর জন্য দায়ীদের শাস্তি ও বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবিতে রাঙামাটিতে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) নামে একটি আঞ্চলিক সংগঠন। মঙ্গলবার দুপুরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এ অবস্থান ধর্মঘট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এসময়  অবস্থান ধর্মঘটে হিল উইমেন্স ফেডারেশন এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা, রাঙামাটি জেলা শাখার পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি কুনেন্টু চাকমা, ৩নং বুড়িঘাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রমোদ খীসাসহ বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচির আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করেন। স্বারকলিপি গ্রহণ করে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক প্রকাশ কান্তি চৌধুরী। স্বারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, রমেল চাকমার মৃত্যুর পুরো ঘটনা তদন্তের জন্য একটি নিরপেক্ষ, স্বাধীন বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করতে হবে।

এসময় বক্তারা বলেন, রমেল চাকমার বিচার যদি না হয় সামনে কঠোর থেকে কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হবে।