খাগড়াছড়ির সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতির বন্ধনকে আরও সুদৃঢ় করার আহ্বান জানালেন কংজরী চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

হৃদয়ে অসাম্প্রদায়িক চেতনা ধারন করে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের অংশ গ্রহণে হিন্দু-মুসলমানসহ প্রতিটি ধর্মের উৎসব গুলো সম্প্রীতির মহা পরিচয় বহন করে উল্লেখ করে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী বলেছেন, ঈদের আনন্দ যেমন সবাই ভাগ করে নেয়, তেমনি পুজোৎসবও সব ধর্মের লোকজন ভাগাভাগি করে নেয়।

খাগড়াছড়ি জেলাকে সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতির জনপদ উল্লেখ করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রয়েছে বলেই সরকারের উন্নয়ন তরান্বিত হচ্ছে। আগামীতেও সবসময় খাগড়াছড়ির সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতির বন্ধনকে আরো সুদৃঢ় ও অটুট রাখার আহ্বান জানান কংজরী চৌধুরী।

রোববার বিকাল সাড়ে তিনটায় মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দিরে ভগবান জগন্নাথ দেবের রথযাত্রার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় সার্বজনীন শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যান সংসদের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মনিন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রশান্ত কুমার ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সুবাস চাকমা, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিলন কান্তি ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় রক্ষাকালী মন্দিরের সভাপতি বাবুল আইচ ও সাধারণ সম্পাদক স্বপন কান্তি পালসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সনাতন সম্প্রদায়ের জগন্নাথ ভক্তবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে তিনি জগন্নাথ দেবের হাজারো ভক্তদের সাথে নিয়ে রথ টেনে ভগবান শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।




বর্তমান সরকারের আমলে সনাতন ধর্মালম্বীরা স্বাচ্ছন্দে নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসব পালন করছে: কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেছেন, জগন্নাথ দেবের আদর্শ থেকে শিক্ষা নিয়ে সনাতনী সম্প্রদায়ের লোকজন আরো ঐক্যবদ্ধভাবে তাদের নিজ নিজ ধর্ম পালন করবে।বর্তমান সরকারের নানা উন্নয়নমুখী কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নের ফলে সনাতন ধর্মালম্বীরা স্বাচ্ছন্দে নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসব পালন করতে আরো উৎসাহিত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার বর্তমান সরকার এটা প্রমান করেছে।

তিনি রোববার বেলা ১১টার দিকে মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দিরে ভগবান জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও পুজোৎসবের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরার সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও পুজোৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাটিরাঙ্গা জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল কাজী শামশের উদ্দিন পিএসসি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

জাতি গোষ্ঠির মধ্যে ঐক্যের বন্ধন সৃষ্টি করার আহ্বান জানিয়ে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি জনগণকেও সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।  তবেই মন্দিরসহ সব ধর্মীয় উপাসনালয়ের কাঙ্খিত উন্নয়ন সম্পন্ন হবে। তিনি জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জনমত তৈরিসহ নিরাপত্তাবাহিনী ও পুলিশকে সহযোগিতা করারও আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যান সংসদের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মনিন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রশান্ত কুমার ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সুবাস চাকমা, মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. হারুন অর রশীদ ফরাজী, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিলন কান্তি ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় রক্ষাকালী মন্দিরের সভাপতি বাবুল আইচ ও সাধারণ সম্পাদক স্বপন কান্তি পালসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সনাতন সম্প্রদায়ের জগন্নাথ ভক্তবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে ভগবান জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা উপলক্ষ্যে পুজোৎসবের উদ্বোধন করেন।




মাটিরাঙ্গায় বিএনপি নেতা নজরুল ইসলামের পরিবারের মাঝে তারেক রহমানের ঈদ উপহার

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

বিগত পৌরসভা নির্বাচন চলাকালীন দুর্বৃত্তের হামলায় নিহত বিএনপি নেতা মো. নজরুল ইসলাম (রঙ মিয়া) পরিবারের মাঝে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান’র পাঠানো ঈদ উপহার প্রদান করা হয়েছে। শনিবার (২৫ জুন) বিকালের দিকে তারেক রহমানের পক্ষ থেকে নিহতের পরিবারের হাতে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ।

একই সময়ে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ঈদ শুভেচ্ছা কার্ড তুলে দেয়া হয় নিহত বিএনপি নেতা মো. নজরুল ইসলামের স্ত্রীর হাতে। এসময় আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন মো. নজরুল ইসলামের বিধাব স্ত্রী।

এসময় মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নাছির আহাম্মদ চৌধুরী, মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. বদিউল আলম, মাটিরাঙ্গা পৌরসভা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. বাদশা মিয়া, খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মো. ইব্রাহিম খলিল, মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান, মাটিরাঙ্গা পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহজালাল কাজল, উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মো. ফোরকান ইমামী ও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মো. লাতু মিয়া লিডার সহ বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মো. ইব্রাহিম খলিল বলেন, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভুইয়ার নেতৃত্বে বিএনপির নেতাকর্মীরা দুঃসময়ে আপনাদের পাশে আছে। সুসময়ে বিএনপি নিহত নজরল ইসলামের পরিবারের দায়িত্ব নেবে ওয়াদুদ ভুইয়ার এমন প্রতিশ্রুতির কথা জানিয়ে তিনি বলেন, নিহত নজরল ইসলামের হত্যার যথাযথ বিচার হবে। প্রকৃত হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় আনা হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ২২ ডিসেম্বর খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচন চলাকালীন রাত পৌনে ৮টার দিকে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইসলামপুর এলাকায় মাটিরাঙ্গা উপজেলা কৃষকদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম (রঙ মিয়া) কে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।




মাটিরাঙ্গায় পাইপগান ও কার্তুজ উদ্ধার করেছে পলাশপুর বিজিবি

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

পাহাড়ের স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসেবে পার্বত্য খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলাধীন দুর্গম তাকারমনিপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে দেশে তৈরী একটি পাইপ গান (বাটসহ লম্বা ২০.৫ ইঞ্চি), তিন রাউন্ড কার্তুজ এবং চাঁদা আদায়ের রশিদ উদ্ধার করেছে বিজিবি জওয়ানরা।

বৃহস্পতিবার রাত পৌনে একটার দিকে এসব উদ্ধার করা হয়। তবে এসময় স্বশস্ত্র চাঁদাবাজদের কাউকেউ আটক করতে পারেনি তারা।

পলাশপুর জোন সূত্রে জানা গেছে, পার্বত্য শান্তি চুক্তিবিরোধী ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট ইউপিডিএফের স্বশস্ত্র চাঁদাবাজরা চাঁদা সংগ্রহের লক্ষ্যে দুর্গম পাহাড়ী জনপদ গোকুলমনিপাড়া ক্যাম্প হতে আনুমানিক ৪ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে তাকামনিপাড়ার একটি পরিত্যাক্ত ঘরে অবস্থান করছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে পলাশপুর জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. খালিদ আহমেদের নেতৃত্বে একটি টহল দল অভিযান চালিয়ে এসব উদ্ধার করে।

এসময় স্বশস্ত্র চাঁদাবাজরা বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে  দ্রুত এলাকা ত্যাগ করে।

পাইপগানসহ উদ্ধারকৃত মালামাল মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন মাটিরাঙ্গার পলাশপুর জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. খালিদ আহমেদ।

বারবার এসব এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় উপজাতি অধ্যুষিত এলাকায় সন্ত্রাসীদের অস্ত্র ভান্ডার কতোটা সম্বৃদ্ধ তা পরিস্কার বোঝা যায় বলে উল্লেখ করে গোমতি-বেলছড়ি এলাকার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা গোকুলমনি ক্যাম্প গুরুত্বপূর্ণ বলে দাবী করে। একই সাথে তারা পাহাড় থেকে সেনা ক্যাম্প প্রত্যাহার নয় বরং সেনাক্যাম্প বাড়ানোর দাবী করে।

 

 

 




মাটিরাঙ্গা জোনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে মাটিরাঙ্গা সেনা জোনের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (২১ জুন) মাটিরাঙ্গা জোন সসদরের সুবিশাল প্যান্ডেলে অনুষ্ঠিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ কামরুজ্জামান। বিজিবির গুইমারা সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল জাবেদ সুলতান, বিজিবিএমএস বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

ইফতার মাহফিলে রামগড় বিজিবির জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল এম জাহিদুর রশীদ, লক্ষীছড়ি জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. মিজানুর রহমান মিজান, ৪০ বিজিবির পলাশপুর জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. খালিদ আহমেদ, বর্ডার গার্ড হাসপাতালের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. আব্দুল ওহাব, গুইমারা রিজিয়নের বিএম মেজর সম সালাহ উদ্দিন আকরাম, যামিনীপাড়া জোনের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর মো. রফিকুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান, মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সাহাদাত হোসেন টিটো, গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জোবায়েরুল হক ও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে আমন্ত্রিত সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তাদের ইফতার মাহফিলে স্বাগত জানান মাটিরাঙ্গা জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল কাজী শামশের উদ্দিন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ কামরুজ্জামান সম্প্রতি পার্বত্য রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধ্বসে সেনাবাহিনী ত্রাতার ভুমিকায় অবতীর্ণ হয়ে সাধারণ মানুষের জানমাল রক্ষায় যে ভুমিকা রেখেছে তা থেকে সকলের শিক্ষা নেয়ার আহবান জানান। তিনি সকলকে শান্তিপুর্ণ সহাবস্থানের আহবান জানিয়ে বলেন, সব বিভেদ ভুলে ঐক্য ও ভাতৃত্ববোধ সৃষ্টি করতে হবে।

ইফতার পূর্বে রাঙ্গমাটির পাহাড় ধ্বসে নিহত সামরিক বেসমরিক লোকদের আত্মার শান্তি ও দেশ-জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করা হয়।




মাটিরাঙ্গার পলাশপুর জোনের শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা সহায়তা প্রদানের ধারাবাহিক কর্মকাণ্ডে অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার গোমতি বি. কে হাই স্কুলে ১০ জোড়া বেঞ্চ বিতরণ করেছে ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন ( পলাশপুর জোন)।

বুধবার সকালের দিকে পলাশপুর জোন সদরে গোমতি  বি. কে হাই স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. মনির হোসেনের হাতে বেঞ্চ তুলে দেন পলাশপুর জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ খালিদ আহমেদ, পিএসসি।

এসময় তিনি বলেন, পলাশপুর জোন নিজেদের ব্যবস্থাপনায় একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যতেও এ ধরনের সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

এসময় গোমতি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন লিটন, ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. শাহজাহান ও মো. ওসমান গনি প্রমু উপস্থিত ছিলেন।




নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে ফেনীছড়া নদী

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধ্বসের পাশাপাশি নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে ফেনীছড়া নদী। ফেনীছড়া নদীর ভাঙনরোধে ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন উদ্যোগ নিলেও তা আলোর মুখ দেখছেনা।

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার দেওয়ানপাড়া বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় (পিলার নং ২২৩৮/৩০-এস) এর সন্নিকটে ফেনীছড়া নদীর ভাঙনের পর এবার বড় আকারে ভাঙন দেখা দিয়েছে অযোধ্যা বিওপি সংলগ্ন এলাকায়। প্রবল বর্ষণকে উপেক্ষা করে ফেনীছড়া নদীর ভাঙন রোধে আবারও এগিয়ে গেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ(বিজিবির পলাশপুর জোন)।

জানা গেছে, গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণের ফলে ফেনী নদীর মাটি ক্রমেই বিলীন হয়ে যাচ্ছে ফেনী নদীতে। এ ভাঙন অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশের একটি বড় অংশ বিলীন হয়ে যাবে। স্থানীয়রা ফেনীছড়া নদীর ভাঙনরোধে সরকারের জরুরী উদ্যোগ দাবি করেছেন।

এবিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান বলেন, ফেনীছড়া নদীর ভাঙনের বিষয়টি জেনেই আমি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে চিঠি দিয়েছি। আশা করছি খুব দ্রুতই এ বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করবে সংশ্লিষ্টরা।

এবিষয়ে জানতে চাইলে বিজিবির পলাশপুর জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ খালিদ আহমেদ পিএসসি বলেন, প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট ভাঙনের ফলে আমাদের দেশের বিশাল অংশ নদীতে তলিয়ে যাচ্ছে। দেশের ভূমি রক্ষায় পলাশপুর বিজিবির উদ্যোগে ফেনীছড়া নদীতে ব্লক ফেলে ভাঙন রোধের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে এটা স্থায়ী কোন সমাধান নয় বলেও মন্তব্য করে তিনি।




মাটিরাঙ্গায় সেনাবাহিনী-বিজিবি’র সহায়তা সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

মাটিরাঙ্গায় সেনাবাহিনী ও বিজিবি’র সহায়তা ভিন্ন দুটি সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা-খাগড়াছড়ি সড়কে পাহাড় ধ্বসে একটি বড় আকারের গাছ ভেঙে পড়ে খাগড়াছড়ির সাথে ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী যানবাহন আটকা পড়ে। অন্যদিকে একই সময়ে মাটিরাঙ্গা-তাইন্দং সড়কের করল্যাছড়িতে বালু বোঝাই একটি দ্রুতগামী ট্রাক খাদে পড়ে গেলে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে দুটি সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে জনভোগান্তির সৃষ্টি হয়।

মাটিরাঙ্গা জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল কাজী শামশের উদ্দিন পিএসসি’র নির্দেশে ১৭ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারী মাটিরাঙ্গা জোনের সেনা জওয়ানরা স্থানীয়দের সহযোগিতায় মাটিরাঙ্গার ব্যাঙমারা এলাকায় পাহাড় ধ্বসে ভেঙে পড়া গাছটি সড়িয়ে ঢাকা-খাগড়াছড়ি সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করে। এসময় মাটিরাঙ্গা পৌরসভার কাউন্সিলর মো. শহীদুল ইসলাম সোহাগ উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে একই সময়ে মাটিরাঙ্গা-তাইন্দং সড়কের করল্যাছড়িতে বালু বোঝাই একটি দ্রুতগামী ট্রাক খাদে পড়ে গেলে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এসময় ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন-পলাশপুর জোনের রাত্রিকালীন টহল গাড়িসহ বেশ কয়েকটি গাড়ি আটকা পড়ে। এসময় ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. খালিদ আহমেদ পিএসসি’র নেতৃত্বে বিজিবি জওয়ানরা খাদে পড়া বালু বোঝাই ট্রাকটি সড়িয়ে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করে।

এবিষয়ে ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন-পলাশপুর জোনের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. খালিদ আহমেদ পিএসসি রাস্তায় নতুন লাগানো নিরাপত্তা পিলার আর নাইট সাইনপোস্ট গুলোকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দ্রুতগতিতে ট্রাক চালানোকেই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী করেছেন।




মাটিরাঙ্গায় অবৈধ কাঠ আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী


নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

অবৈধ পথে পাচারের সময় ২‘শ ৫০ ঘনফুট আম কাঠ আটক করেছে মাটিরাঙ্গা সেনা জোনের সদস্যরা। যার আনুমানিক মূল্য ৭৫ হাজার টাকা বলে জানা গেছে। তবে এসময় আম কাঠ পাচারের সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ পতে নদী পথে কাঠ পাচার হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১৭ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারী মাটিরাঙ্গা জোনের জোনাল স্টাফ অফিসার মেজর রাহাত আহমেদ এর নেতৃত্বে শুক্রবার বিকাল ৫টার দিকে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার আর্দশ গ্রাম (ইসলাম নগর) এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব কাঠ জব্দ করে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

অবৈধ আম কাঠ আটকের বিষয় নিশ্চিত করে মাটিরাঙ্গা ফরেস্ট রেঞ্জার মো. মোশাররফ হোসেন জানান, আটক অবৈধ কাঠ জব্দ করা হয়েছে।




মাটিরাঙ্গায় বিএনপি নেতার মৃত্যুতে ওয়াদুদ ভুইয়ার শোক প্রকাশ


নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা :

পার্বত্য খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী হাজী মো. সিরাজুল ইসলাম বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে ফেনীর গোবিন্দপুরের নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নলিল্লাহে …….রাজেউন)। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, পুত্র-কণ্যা ও আত্মীয়স্বজনসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছে।

শুক্রবার (১৭জুন) বাদ জুমা মরহুমের গ্রামের বাড়ী ফেনীর গোবিন্দপুর (নতুন বাজার) ভূইয়া কোনা জামে মসজিদ মাঠে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হইবে।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী হাজী মো: সিরাজুল ইসলামের মৃত্যুতে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভুইয়া গভীর শোক প্রকাশ করে মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি ও শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। হাজী মো: সিরাজুল ইসলামকে বিএনপির দু:সময়ের কান্ডারী উল্লেখ করে শোকবার্তায় ওয়াদুদ ভুইয়া বলেন, তার মৃত্যুতে বিএনপির অপুরনীয় ক্ষতি সাধিত হয়েছে। যা কখনোই পুরণ হবার নয়।

অন্যদিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী হাজী মো: সিরাজুল ইসলামের মৃত্যুতে পৃথক পৃথক ভাবে শোক প্রকাশ করে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার সাবেক মেয়র আবু ইউসুফ চৌধুরী, মাটিরাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো: বাহাদুর খান, সাধারন সম্পাদক মো. বদিউল আলম ও সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান, মাটিরাঙ্গা পৌর বিএনপির সভাপতি মো: তৈয়ব আলী কোম্পনাী, সাধারন সম্পাদক মো: বাদশা মিয়া ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো: শাহজালাল কাজল।