৫ সন্তানের জননী পরকীয়ার টানে লাপাত্তা

chakaria (kalarmarshara) 23-4-17

চকরিয়া প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার কালামারছড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ ঝাপুয়া এলাকার প্রবাসী আবদু শুক্কুর প্রকাশ ভুট্টুর স্ত্রী ৫ সন্তানের জননী হুমাইরা বেগম পরকীয়া প্রেমে আসক্ত হয়ে এলাকা ছেড়ে লাপাত্তা হয়েছেন। এ নিয়ে পরিবারের লোকজন মহেশখালী থানায় সাধারণ ও নিখোজ ডায়েরী রুজু করেছেন ভোক্তভোগী পরিবার।

অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, কালারমার ছড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ ঝাপুয়া এলাকায় বিগত ২৮ দিন পূর্বে  হাজ্বী মোহাম্মদ ছৈয়দের কন্যা ৫ কন্যা সন্তান রেখে নগদ টাকা স্বর্ণলংকার ও বিভিন্ন মালামাল নিয়ে পরকীয়া টানে হুমাইরা বেগম তার শ্বশুর বাড়ি এলাকা ছেড়ে লাপাত্তা হয়েছেন। রেখে যাওয়া ৫ নাতি সন্তান নিয়ে হুমাইরার শ্বশুর মো. হারুনুর রশিদ চরম ভাবে দুঃচিন্তায় রয়েছেন।

হুমাইরার স্বামী প্রবাসে থাকার সুবাধে সে শ্বশুর বাড়ির আত্বীয় স্বজন ও লোক চক্ষুর আড়ালে পরকীয় আসক্ত হয়। সে দীর্ঘ ২৮দিন ধরে বাড়ি না ফেরায় তার ৫ কন্যা সন্তান ও পরিবারের মাঝে চরম ভাবে হতশায় দিনাতিপাত করেছেন ভোক্তভোগী পরিবার। সুত্রে জানান, দীর্ঘ দিন ধরে পরকীয়া প্রেমে আসক্ত হওয়ার ফলে হঠাৎ পাচঁ কন্যা শিশু রেখে অন্যজনের হাত ধরে চলে যান হুমাইরা। হুমাইরা রেখে যাওয়া ৫ কন্যা সন্তানেরা হলেন, ৫ম শ্রেণির ছাত্রী নয়ন মনি(১৫), চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রী ছোট মনি (১৩), তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী শান্তা মনি( ১০) শিশু শ্রেণীর ছাত্রী সেজুতি (৭) ও এক বছরের কন্যা শিশু জেসমিন।

হুমায়রার শ্বশুর হারুন রশিদ অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, আমার ছেলে প্রবাসে অবস্থান করার সুবাদে পুত্র বধু হুমায়রা পর পুরুষের সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে যায়। বাড়ির অপরাপর লোকজন জানতে পারার কারণে সে তার ৫ শিশু সন্তানকে ফেলে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার সহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির পরও তার খোঁজ মেলেনি। এনিয়ে মহেশখালী থানায় পৃথক ২টি বিশেষ ডায়েরী দায়ের করা হয়েছে। তা কেউ খোজ দিতে পারলে ২০ হাজার টাকা পুরস্কার দেবেন বলে জানান।




ডিজিটাল আইল্যান্ড প্রকল্পে বদলে যাচ্ছে মহেশখালী

m copy
মহেশখালী প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীতে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্হা (আইওএম) ও কোরিয়ান টেলিকমের(কে টি) আর্থিক সহযোগিতায় এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের সহযোগিতায় বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে ডিজিটাল গিগা আইল্যান্ড মহেশখালী প্রকল্প৷ ওই প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, এবং ই লার্নিং’র উপর৷

ইতিমধ্যে তারই অংশ হিসেবে মহেশখালী পৌরসভাসহ মোট তিনটি ইউনিয়নকে ডিজিটালাইজ করা হয়েছে৷ তারমধ্যে প্রাইমারি স্কুল, মাদ্রাসা, কমিউনিটি ক্লিনিকসহ সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানে স্থাপন করা হয়েছে অত্যাধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্পূর্ণ ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট কানেকশন৷

ডিজিটাল মহেশখালীর প্রকল্পের আওতায় ই-সেবার মাধ্যমে স্কুল মাদ্রাসা সমূহে ই-লার্নিং ক্লাস সমূহ পরিচালিত হবে৷ সকল কমিউনিটি ক্লিনিক, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ই-সেবার আওতায় অত্যাধুনিক চিকিৎসার সরঞ্জামাদির মাধ্যমে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে৷ মহেশখালীর জনগোষ্ঠীকে দক্ষ জনগোষ্ঠী হিসেবে গড়ে তুলতে স্থাপন করা হয়েছে ই-লার্নিং ট্রেনিং সেন্টার৷

বিগত ১১ এপ্রিল ওই প্রকল্পের অংশ হিসেবে সেবা স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নের জন্য কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আঠারো জন আবাসিক মেডিকেল অফিসারদের তিনদিনের মৌলিক প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়৷

20170413_153245 copy

গত ১৩ এপ্রিল আঠারো জন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার, কোরিয়ান টেলিকম ও আইওএমের প্রতিনিধিসহ মোট বিশজনের এক প্রতিনিধি দল মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সকাল নয়টা হতে দুপুর একটা পর্যন্ত বিনামূল্যে ৬০জন গরীব দুস্ত রুগীদের চিকিৎসাসেবা প্রদান করেন৷ যে সকল রুগের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয় তারমধ্যে রোগভেধে আল্ট্রাসনোগ্রাফি, ইউরিন টেস্ট, ইসিজি ইত্যাদি৷

ওই চিকিৎসাসেবা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ  আবুল কালাম, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও সাজ্জাদ হোসাইন চৌধুরী, সহকারি কমিশনার ভূমি বিভীষণ কান্তি দাশ, কেটির টিম ম্যানেজার Hyoun Jun Sang, হেলকেরিঅনের এরিয়া ম্যানেজার Steven Kim, ক্লিনিক্যাল স্পেশালিস্ট Kim Sujin প্রমুখ৷

20170412_154340 copy

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, ওই প্রকল্পের ন্যাশনাল প্রোগ্রাম অফিসার রিয়াজুল আলম  মাসুম, প্রজেক্ট এসিসট্যান্ট আব্দুল্লাহিল কাফি৷ চিকিৎসা ক্যাম্প শেষে কক্সবাজারের অভিজাত হোটেলে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ডাক্তারদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়৷

আগামী ২৭ এপ্রিল ডিজিটাল গিগা আইল্যান্ড মহেশখালী প্রকল্পটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, তথ্য  যোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এমপি৷

ওই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে পুরো মহেশখালীর চিত্র পাল্টে যাবে বলেও স্থানীয় জনসাধারণ অভিমত ব্যক্ত করেন৷




মহেশখালীতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপিত

17-4-17 copy

মহেশখালী প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টার সময় উপজেলার নিবার্হী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম’র সভাপতিত্বে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। ‌র‌্যালিটি উপজেলা চত্ত্বর থেকে শুরু হয়ে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা প্রাঙ্গনে এসে মিলিত হয়। এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এম আজিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার পাশা চৌধুরী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামশুল আলম, মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক গিয়াস উদ্দীন, মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দীন চৌধুরী, আদিনাথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিঠুন ভট্রাচার্য্য, মহেশখালী ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক এহেছানুল করিম, মহেশখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি হারুনর রশিদ।

‌র‌্যালি ও আলোচনা সভায় মহেশখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, মহেশখালী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবুল বশর পারভেজ। ওই অনুষ্ঠানের সভাপতি মহেশখালী উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম  ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন।




হোয়ানকে হামলার শিকার যুবক

IMG_20170403_150046 copy

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক কেরুনতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে দিন দুপুরে হামলার শিকার হয়েছে উত্তম কুমার নামের এক যুবক।

হামলার শিকার উত্তম কুমার বলেন, ২১ মার্চ আমার বাবা মারা যান, এ উপলক্ষে শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের দাওয়াত দেয়ার জন্য সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় কেরুনতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গেলে স্থানীয় লোকমানের ছেলে আনিছুর রহমান, আব্দুল আজিজ প্রকাশ সান্টুসহ কয়েকজন লাঠিয়াল বাহিনী আমার উপর প্রকাশ্যে দিবালোকে মারধর শুরু করে, আমি কিছু বুঝে উঠার আগে এলোপাতাড়ি মারপিট করে টাকা, মোবাইলসহ মুল্যবান জিনিস পত্র ছিনিয়ে নেয় এবং আমার পরনের কাপড়চোপড় টানাহেছড়া করে নষ্ট করে দেয়।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, কেরুনতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী নিয়োগের বিষয় নিয়ে উভয় জনের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। আনিছুর রহমান ও উত্তম কুমার উভয়ে স্কুলের দপ্তরী পদে নিয়োগের জন্য প্রধান শিক্ষক ও স্কুল সভাপতির বরাবর সুপারিশ করেছে।

এব্যাপারে উত্তম কুমার বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বলেও জানান।




মহেশখালীতে ৭টি বন্দুক, মদসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

unnamed copy

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালী থানা পুলিশ উপজেলার বড়মহেশখালী ইউনিয়নের দেবাঙ্গারপাড়া গ্রামে বিশাল মদের মহলে অভিযান চালিয়ে ৭টি  দেশীয় তৈরি বন্দুক, ১হাজার লিটার চোরাই বাংলা মদসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। সোমবার বিকালে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

গ্রেফতাকৃতরা হলেন, বড়মহেশখালী ইউনিয়নের পূর্ব দেবাঙ্গা পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের স্ত্রী নুরুন্নাহার (৫৫), তার পুত্র বধু আরিফ উল্লাহ’র স্ত্রী শাকিলা (৩০) ও ঢাকার চকবাজার থানার ৬৫ নং ওয়ার্ড এলাকার আব্দুল আজিজের পুত্র এরশাদ (৩৫)

unnamed (1) copy
এব্যাপারে মহেশখালী থানার ওসি প্রদিপ কুমার দাশ জানান, মদ, অস্ত্র, জলদস্যুদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলছে এবং চলবে। মহেশখালীতে কোন ধরনের অপরাধীদের ছাড় দেয়া হবেনা।




মহেশখালীতে নৌ-পারাপারে স্পিড বোট উল্টে ১ মহিলা নিঁখোজ ১১জন উদ্ধার

মহেশখালী প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের মহেশখালীতে নৌ-পারাপারে স্পিড বোট ডুবে এক মহিলা নিঁখোজ রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের উত্তরে মহেশখালী কক্সবাজার নৌ-পারাপারের বাকখালী নদী মোহনায়।

রবিবার বিকাল ৩টায় কক্সবাজার সদরে চিকিৎসা শেষে ৬নং জেটি ঘাট থেকে ১২জন যাত্রী ১টি স্পিড বোট মহেশখালীর উদ্দেশ্যে রওনা হয়। স্পিড বোটটি বাকঁখালী নদীর মাঝখানে উত্তাল ঢেউয়ের মাঝে হঠাৎ উল্টে গেলে এ সময় সকল যাত্রীরা নদীতে পড়ে যায়।

এ সময় দুরপাশ থেকে অপরাপর নৌকার লোকজন দ্রুত এসে নদীতে পড়ে যাওয়া ১১জন যাত্রীকে লোকজন উদ্ধার করতে পারলেও নুরুজ্জাহান (৫০) নামের ১ বৃদ্ধ মহিলাকে এখনো উদ্ধার করতে পারেনি। নদীতে নিঁখোজ বৃদ্ধ মহিলা উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের জাগিরাঘোনা গ্রামের মৃত বাঁচা মিয়ার স্ত্রী বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান নিঁখোজ মহিলার সন্ধানে সাগরে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্ধার অভিযান অব্যহত রয়েছে।




মহেশখালী গ্রীল ওয়ার্কসপ মালিক সমিতির পরিচিতি সভা

pic-1---- copy

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালী উপজেলার গ্রীল ওয়ার্কসপ মালিকদের নিয়ে গড়া সংগঠনের প্রথম পরিচিতি সভা মঙ্গলবার সকাল ১১টায় উপজেলা মিলনায়তনে সংগঠনের সভাপতি হারুন উদ্দিন রুবেল’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। ওই পরিচিতি সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মহেশখালী কুতুবদিয়ার সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক এমপি।

প্রধান উদ্বোধক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন  মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন, মহেশখালী পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মকছুদ মিয়া, থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম আবুল বশর মোহাম্মদ ছামসুউদ্দিন, পৌর কাউন্সিলর বাবু মংলায়েন, রতন কান্তি দে, সনজিত চক্রবর্তি, গোরাকঘাটা বাজার কমিটির সাবেক সভাপতি আবুছালেহ সহ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দরা।

প্রধান অতিথি বলেন, ওর্য়াকসপ মালিকরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে গ্রাহকদের সুবিধা দিয়ে সুনাম অর্জন করলে তাদের প্রতি মানুষ সম্মান দেখাবে। তিনি ওই সংগঠনের সভাপতি সম্পাদকসহ সকল নেতৃবৃন্দকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

পরিচিতি সভার শুরুতে সংগঠনের পক্ষ থেকে অতিথিদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন সংগঠনের সদস্যরা। গণতান্ত্রিক পন্থায় চলতি বছরের ১১ ফেব্রুয়ারির  নির্বাচনে হারুন উদ্দিন রুবেলকে সভাপতি ও বাবু ননীপদ দে সাধরণ সম্পাদক করে ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয় আগামী ৩বছরের জন্য। ওই কমিটির অন্যান্যরা হলেন অর্থ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, সদস্য মো. হাবিব উল্লাহ, ছৈয়দুল করিম, হুমায়ুন উদ্দিন রুকন, স্বপন পাল, বিকাশ, নয়ন দে, মো. জাহাঙ্গির, লিটন।

পরিচিতি সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সমিতির সদস্য যথাক্রমে  নাছির উদ্দিন, আজম, খোকন, রাউজান, শুবল, নেপাল, আব্দু ছমদ, কালীপদ, নুরুল আবছার, এনাম, প্রদীপ, মানিক, রাখাল, সনজয়, সিপন, স্বপন দে, দ্রুভ, দেবাশীষ, হেলাল উদ্দিন ,মো. আজম ও মজনু।




কক্সবাজারে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক ১

Pic 01 (1)
নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার:
কক্সবাজার শহরে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও গুলিসহ একজনকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে কক্সবাজার শহরের ফিশারীঘাট এলাকায় এ অভিযান চালানো হয় বলে জানান জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি অংসা থোয়াই।

এসময় উদ্ধার করা হয়েছে দেশিয় তৈরী ১ বন্দুক ও ৩ রাউন্ড গুলি।

আটক মোহাম্মদ হোসেন (৪৮) মহেশখালী উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়নের নয়াপাড়া এলাকার মৃত মোস্তাক আহহমদের ছেলে।

ওসি অংসা থোয়াই বলেন, মহেশখালী থেকে অস্ত্রপাচার হওয়ার খবরে ডিবি পুলিশের একটি দল কক্সবাজার শহরের ফিশারীঘাট এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় সন্দেহভাজন একজন ব্যক্তিকে থামিয়ে তল্লাশী করা হয়। পরে আটক মোহাম্মদ হোসেনের দেহ তল্লাশী করে কোমড়ে লুকানো অবস্থায় দেশিয় তৈরী একটি বন্দুক ও ৩ রাউন্ড গুলি পাওয়া যায়।

আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে কোন ধরনের অপরাধ সংঘটনের অভিযোগে মামলা রয়েছে কিনা পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে বলে জানান তিনি।

অংসা থোয়াই জানান, আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।




মহেশখালীতে জলদস্যুদের বিরুদ্ধে জেলেদের মানববন্ধন

17409950_1374912082565889_297074156_n copy

মহেশখালী প্রতিনিধি:

সাগরে জলদস্যুতা বন্ধ করতে মহেশখালী উপকূলের জেলে ও বোট মালিকদের মানববন্ধন। জেলেদের দাবি আমরা বাঁচতে চাই। জলদস্যুদের কবল হইতে আমাদের রক্ষা করুন। অন্যতায় আমরা জীবনের ঝুকি নিয়ে জলদস্যুদের বিরুদ্ধে লড়াই করবো।

২০ দিন ধরে মহেশখালীর ৩০টির ফিশিং ট্রলার ডাকাতির শিকার হয় সাগরের বিভিন্ন পয়েন্টে। এতে ২জন জেলে জলদস্যুদের হাতে প্রাণ হারায়। সোমবার সকাল ১১টায় মহেশখালী বোট মালিক ও জেলেদের আয়োজনে উপজেলা চত্ত্বরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে পৌর মেয়র, সাবেক চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন অংশ গ্রহণ করে। জেলেদের মুখে প্রতিবাদের ভাষা মরবো না হয় মারবো আর একজন জেলে ভাইকেও মরতে দেব না।

মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে স্বারকলিপি প্রদান করে জেলেরা।  জেলেরা জানান, মহেশখালীর বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তিরা জড়িত রয়েছে বলেও জানান।




কালারমারছড়ায় চিংড়ি জমি নিয়ে বিরোধে একজনকে কুপিয়ে হত্যা

maheskhali pic 8-3-2017 copy

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার:

কক্সবাজারের মহেশখালীতে লবণ মাঠ নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে জয়নাল আবেদিন (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত জয়নাল আবেদিন মহেশখালী উপজেলার কালারমার ছড়ার ঝাপুয়া এলাকার আবদুল মালেকের ছেলে।

বুধবার বিকাল ৫ টার দিকে মহেশখালী কালারমারছড়া ইউনিয়নের ঝাপুয়া এলাকা এ ঘটনা ঘটে। এতে আহত জয়নাল আবেদিনকে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে রাত ৮ টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

নিহত জয়নালের পরিবার সদস্য ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঝাপুয়া এলাকার লবণ মাঠ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল জয়নাল আবেদিন ও একই এলাকার দলিলুর রহমানের ছেলেদের সাথে। এ বিরোধ মীমাংসা করতে জয়নাল আবেদিন মহেশখালী থানায় একটি আবেদন করেন। এর প্রেক্ষিতে বুধবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশ ফিরে যাওয়ার পর দলিলুর রহমানের ছেলে নাসির উদ্দিন, তৌহিদসহ কয়েকজন ক্ষিপ্ত হয়ে জয়নালকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। বিকাল ৪টার দিকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় জয়নালকে আত্মীয়রা উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. ছাবের জানান, আহত হওয়ার পর বিলম্বে হাতপাতালে নিয়ে আসা হয় জখমিকে। এতে অতিরিক্ত রক্ত করণে তার মৃত্যু হয়।

মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, লবণ মাঠের বিরোধ নিয়ে পুলিশ তদন্তে যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিপক্ষরা জয়নালকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলেও শুনেছি। লাশ ময়নাতদন্ত করা হবে। অভিযোগ পাওয়ার পর মামলা হবে। তবে, হত্যার ঘটনা শোনা মাত্রই হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।