মহেশখালীর মাতারবাড়িতে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প পরির্দশনে নৌ-পরিবহন মন্ত্রী

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালীর মাতারবাড়িতে দেশের সবচেয়ে বৃহত্তর কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প পরিদর্শন করেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের  মন্ত্রী মো. শাজাহান খান। বুধবার সকাল ১১টায় এক ঝটিকা সফরে মন্ত্রী দেশের সবচেয়ে বৃহত্তর প্রকল্পটি পরিদর্শনে আসেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম, মূখ্য সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, এসডিজি বিষয়ক মূখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী, বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, বাংলাদেশ ইকোনোমিক জোন অথরিটি (বেজা)’র চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী , নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ, চট্টগ্রাম বন্দর কতৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় এমপি আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা প্রশাসক  মো. আলী হোসেন পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন, মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম, সহকারী কমিশনার ভুমি বিভীষন কান্তি দাশ, ওসি প্রদিপ কুমার দাশ সহ স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ  নেতৃবৃন্দ।




মহেশখালী চ্যানেলে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান ২২ হাজার কারেন্ট জালসহ ৫০ কেজি পোনা মাছ জব্দ

মহেশখালী প্রতিনিধি:

সাগরের মহেশখালী চ্যানেলে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে ২২ হাজার মিটার নিষিদ্ধ জাল ও ৫০ কেজি মাছের পোনা জব্দ করা হয়েছে।

বুধবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ৫ঘন্টাব্যাপী মহেশখালী চ্যানেলের পূর্ব পাশে সদর উপজেলার আওতাধীন চৌফলদন্ডি, পোকখালী ও গোমাতলীর উপকূল এ অভিযান চলে। এতে জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা প্রিয়াংকা।

জানা গেছে, সকালে গোমাতলী এলাকায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাতজন জেলে মাছ ধরার প্রাক্কালে দূর থেকে মোবাইল কোর্টের উপস্থিতি টের পেয়ে জাল ফেলে পালিয়ে যায়। এ সময় ফেলে যাওয়া প্রায় ২ হাজার মিটার নিষিদ্ধ চর জাল ও প্রায় ৫০ কেজি পোনামাছ এবং পরে অন্যান্য এলাকা থেকে প্রায় ২০ হাজার মিটার নিষিদ্ধ চরঘেরা জাল জব্দ করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা প্রিয়াংকা বলেন, জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেনের নির্দেশনানুযায়ী নিয়মিতভাবে পরিচালিত হচ্ছে এ অভিযান। ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশসহ অন্যান্য মাছ ধরায় যারা লিপ্ত রয়েছে বা মাছ ধরতে নিষিদ্ধ জাল ব্যবহার করছে তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।

অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে ছিলেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মো. আব্দুল অলীম, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মঈনউদ্দিন আহমেদ, কোস্টগার্ড এবং আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্য, পেশকার মিজানুর রহমানসহ সংশ্লিষ্টরা।

পরে জব্দকৃত ২২ হাজার মিটার জাল সংশ্লিষ্টদের উপস্থিতিতে পুড়িয়ে ফেলা হয় এবং মাছগুলো ২টি এতিমখানায় দিয়ে দেয়া হয়। জব্দকৃত জাল ও মাছের আনুমানিক মূল্য প্রায় ছয় লক্ষ ছাপ্পান্ন হাজার টাকা বলে মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে।




মহেশখালীতে জনতার উপর পুলিশের গুলি, নাটকীয়তার আশ্রয় পুলিশের

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালী উপজেলার কালামার ছড়ায় সিএনজি ড্রাইভারকে আটকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট ঘটনায় পুলিশের গুলিতে আট জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

স্থানীয় চেয়ারম্যান তারেকের বড় ভাই এডভোকেট নোমান শরীফ জানান ১৩ অক্টোবর জুম্মার নামাজের পর তারেক ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে অবস্থানকালে উপজেলা চেয়ারম্যান হোসাইন ইব্রাহীম এর উপস্থিতে এলাকার লোকজন তাদের সাথে দেখা করতে আসে। হঠাৎ এস আই রাজু তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এসে সবাইকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়ে চলে যায়।

এক পর্যায়ে তারেক চেয়ারম্যান দাওয়াতের উদ্দেশ্যে রওনা হয় বিকাল ৫টার দিকে পুনরায় এসআই রাজু ডিজিটাল সেন্টারে এসে ভাংচুর চালায় এবং এক জন সিএনজি ড্রাইভারকে  আটক করে নিয়ে যায়, খবর পেয়ে তারেক এসআই রাজুর সাথে দেখা করে ভাংচুর ও আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এসআই রাজুর নির্দেশে পুলিশ গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলে আট জন গুলি বিদ্ধ হয়। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আহতদের পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

কালারমার ছড়ার ঘটনার বিষয়ে প্রাথমিক ভাবে পুলিশের বক্তব্য এঘটনায় পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছে ও পুলিশের গুলি ভর্তি ম্যাগজিন ছিনতাই করা হয়েছে বলে পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্রের দাবি।

ওসি প্রদীপ কুমার দাশ  টেলিফোনে ঘটনার বিষয়ে পুলিশের অবস্থান তুলে ধরেন।

তিনি বলেন গত ৩-৪ দিন ধরে কালারমার ছড়া ও বদরখালী কেন্দ্রিক দু’টি বিবাদমান পরিবহণ সমিতির মধ্য পরিবহণ সংশ্লিষ্ট ইস্যুতে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি এনিয়ে ফৌজদারী অপরাধজনক ঘটনা সৃষ্টি হলে মহেশখালী থানায় একটি মামলা হয়। আজ মামলার এক আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করলে আসামি ছিনিয়ে নিতে পুলিশের উপর হামলা হয়। গুরুতর আহত করা হয় পুলিশকে। পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই এর চেষ্টা চালানো হয়। এসময় গুলিভর্তি পিস্তলের ম্যাগজিন ছিনতাই করা হয় বলে ওসি জানান।




মহেশখালীর বড় রাখাইন পাড়ায় নিজ বসতবাড়ি থেকে বিধবা মাখিং কে তাড়িয়ে দেওয়ার পাঁয়তার করছে দুর্বৃত্তরা

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালী উপজেলার মহেশখালী পৌরসভাস্থ বড় রাখাইন পাড়া এলাকার মৃত বাবু সে এর স্ত্রী-সন্তানদের ভিটেবাড়ী থেকে তাড়িয়ে দিয়ে, বাড়িঘর ছাড়া করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় মৃত ধুং পে এর স্ত্রী হ্লা চাং এবং তার ছেলে মিস্য গং এর নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত।

সুত্রে জানা যায়, বিগত ১৫ বছর আগে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মাখিং এর স্বামী বাবু সে গোরকঘাটা মৌজার বি এস খতিয়ান -১৬০, সৃজিত খতিয়ান নং-২১৬০ এবং বিএস দাগ নং-৭২০,৭২১ এর থেকে ২ শতক জমি, হ্লা চাং এর কাছ থেকে ক্রয় করে এবং ২০০৩ সাল থেকে ভোগ দখলে স্থীত আছে।

বর্তমানে জায়গা জমির মুল্য বেড়ে যাওয়ায় হ্লা চাং এবং তার ছেলে মেয়েরা অতি লোভের বশিভুত হয়েস্বামী হারা মাখিংকে ঘর থেকে তাড়িয়ে দিয়ে পথে বসানোর পায়তারা করছে।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর তারিখে মাখিং এর বাড়িঘর দখলে নিতে হামলা চালায় হ্লা চাং গং এর লোকজন।

উক্ত বিরোধীয় ভিটিবাড়ি নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে বেশ কয়েকবার অভিযোগ করেছে স্বামী হারা মাখিং। বর্তমানে মাখিং দুর্বৃত্তদের ভয়ে পিতা হারা শিশু সন্তানদের নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে বলে পার্বত্যনউজকে জানান।

সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেছেন বিধবা মাখিং।




মহেশখালীতে জনতার উপর পুলিশের গুলি, আহত ৮

মহেশখালী প্রতিনিধি:
মহেশখালী উপজেলার কালামার ছড়ায় সিএনজি ড্রাইভারকে আটকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট ঘটনায় পুলিশের গুলিতে আট জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
স্থানীয় চেয়ারম্যান তারেকের বড় ভাই এডভোকেট নোমান শরীফ জানান, ১৩ অক্টোবর জুম্মার নামাজের পর তারেক ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে অবস্থানকালে উপজেলা চেয়ারম্যান হোসাইন ইব্রাহীম এর উপস্থিতে এলাকার লোকজন তাদের সাথে দেখা করতে আসে। এসময় হঠাৎ এস আই রাজু তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এসে সবাইকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়ে চলে যায়। এক পর্যায়ে তারেক চেয়ারম্যান দাওয়াতের উদ্দেশ্যে রওনা হয় বিকাল ৫টার দিকে পুনরায় এস আই রাজু ডিজিটাল সেন্টারে এসে ভাংচুর চালায় এবং একজন সিএনজি ড্রাইভারকে আটক করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে তারেক এস আই রাজুর সাথে দেখা করে ভাংচুর ও আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এস আই রাজুর নির্দেশে পুলিশ গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলে আট জন গুলি বিদ্ধ হয়। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আহতদের পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।
অন্যদিকে কালারমার ছড়ার ঘটনায় পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছে ও পুলিশের গুলি ভর্তি ম্যাগজিন ছিনতাই করা হয়েছে বলে পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্রের দাবী। ওসি প্রদীপ কুমার দাশ  টেলিফোনে ঘটনার বিষয়ে পুলিশের অবস্থান তুলে ধরেন।
তিনি বলেন গত ৩-৪ দিন ধরে কালারমার ছড়া ও বদরখালী কেন্দ্রিক দু’টি বিবদমান পরিবহণ সমিতির মধ্য পরিবহণ সংশ্লিষ্ট ইস্যুতে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি এনিয়ে ফৌজদারী অপরাধজনক ঘটনা সৃষ্টি হলে মহেশখালী থানায় একটি মামলা হয়। শুক্রবার মামলার এক আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করলে আসামি ছিনিয়ে নিতে পুলিশের উপর হামলা হয়। গুরুতর আহত করা হয় পুলিশকে। পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই এর চেষ্টা চালানো হয়। এসময় গুলিভর্তি পিস্তলের ম্যাগজিন ছিনতাই করা হয় বলেও ওসি জানান।



জনগণের কল্যাণের জন্যই সরকার সার্বিক উন্নয়ন কাজ পরিচালনা করছে

মহেশখালী প্রতিনিধি:

উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়নে এলাকার উন্নয়নে সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে জবাবদিহিতামূলক এক সভা বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঘটিভাঙ্গা এলাকায় অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে স্থানীয় বিপুল সংখ্যক জনসাধরণ অংশগ্রহণ করে উন্নয়ন সমস্যা নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন তোলেন এবং সরকারি কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিগণ তার জবাব দেন।

বিকেল ৩টায় স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে ইউনিয়নটির এক নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার নুরুল আমিন খোকার সভাপতিত্বে ওয়ার্ড সভা শিরোনামে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে প্রধান আলোচক ছিলেন সরকারের এলজিএসপি’র কক্সবাজার জেলা ডিএফ আহসান উল্লাহ চৌধুরী মামুন, প্রধান অতিথি ছিলেন কুতুবজোম ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন খোকন, বিশেষ অতিথি ছেলেন আওয়ামী লীগ নেতা ডা. আমিরুজ্জামান আনজু, মো. হাবিব উল্লাহ, আমির হোসেন, ঘটিভাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক নেতা মাস্টার শহিদুল্লাহসহ ইউপি সচিব ও ইউপি সদস্যগণ।

সভায় বক্তরা বলেন, বর্তমান শেখ হাসিনার সরকার মানুষের সার্বিক কল্যাণের জন্যই বহুমুখি উন্নয়ন কাজ পরিচালনা করছে। এরই অংশ হিসেবে কুতুবজোমে ব্যপক উন্নয়ন কাজ পরিচালিত হচ্ছে। এসময় স্থানীয় জনতার কাছ থেকে এলাকার উন্নয়ন সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন আহ্বান করে সমাবেশেই তার জবাব দেন ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন খোকন। ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনটি এলাকায় বেশ সাড়া জাগিয়েছে।




মহেশখালীতে ইলিশ ধরার দায়ে ৭ জেলের অর্থদণ্ড

মহেশখালী প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের মহেশখালীতে ইলিশ ধরার দায়ে ৭ জেলেকে অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।

বুধবার (৪ অক্টোবর) গভীর রাতে মহেশখালী চ্যানেলের মুদিরছড়া নদীতে জাল পেতে ইলিশ ধরার সময় মহেশখালী উপজেলা মৎস্য অফিস ও স্থানীয় বদরখালী নৌ-পুলিশের বুধবার গভীর রাতে ০৯টি জাটকা ইলিশ ও ১০মিটার নিষিদ্ধ ক্যারেন্ট জালসহ জব্দ করে।

পরে ৫ অক্টোবর জাল ও মাছ সহ জব্দ ও আটকৃত জেলেদের মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর আদালতে হাজির করলে বিজ্ঞ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আবুল কালাম সংশ্লিষ্ট আইনে ৭ জেলেকে ২১ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করে।

দণ্ডিত জেলেরা হলেন মো. রশিদ, জয়নাল আবেদনী, নুরুল হাকিম, আব্দুর রহিম, সাইদুর রহমান, শাকের উল্লাহ, আব্দু রশিদ দন্ডপ্রাপ্ত জেলেদের বাড়ী কক্সবাজার জেলার সদর উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়ন ও মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা।

অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ছাবেদুল হক, বদরখালী নৌ-পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ পায়েল হোসেন।




মহেশখালীতে বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালীর মাতারবাড়িতে কোহেলিয়া নদীর ব্রিজের নিচ হতে সুঠামদেহী (২৫) এক অজ্ঞাত ব্যক্তির বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (২ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৭টার সময় কোহেলিয়া নদীর তীরে লাশটি ভেসে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লোকজন পার্শ্ববর্তী নদীর তীরে একটি সুতার বস্তা দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে। পরে বস্তাটি খুলে একটি অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ দেখতে পাই। সাথে সাথে এ ব্যাপারে মহেশখালী থানায় অবহিত করা হয়েছে বলে জানা যায়।

এদিকে কয়েকদিন আগে অন্যত্র হত্যা করে বস্তাবন্দি করে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশটি সাগরে ফেলে দেয়া হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন৷

পুলিশ লাশটির পরিচয় নিশ্চিত করতে ওই এলাকায় অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়৷




মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদযাপন


মহেশখালী প্রতিনিধি:
মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী ইউনিয়নে বেগম রোকেয়া নারী জাগরণ ও নবজীবন নারী সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে ৩০ সেপ্টম্বর জাতীয় কন্যাশিশু দিবস-২০১৭ পালিত হয়েছে। নানা কর্মসূচী মাধ্যমে এবছর দিবসটি উদযাপিত হচ্ছে।

এবারের প্রতিপাদ্য কন্যাশিশুর নিরাপদ, সমৃদ্ধ করবে বাংলাদেশ। কন্যাশিশুদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহবান জানানো তথা তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে এই প্রতিপাদ্য খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বাংলাদেশে বর্তমানে শিশু- কিশোর সংখ্যা ৩ কোটি ২০ লাখ (মোট জনগোষ্ঠী৪৫ শতাংশ) যাদের ৪৮ শতাংশই কন্যাশিশু। এ কন্যাশিশুরাই আগামী দিনের নারী, ভবিষ্যৎ প্রজন্মোর নিয়ামক শক্তি। কারণ ভবিষ্যত প্রজন্ম গড়ে ওঠে একজন মা’ কে কেন্দ্র করে। তাই নিরাপত্তা নিশ্চিত করে মানসম্মত শিক্ষা ও পুষ্টি – সহ অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে কন্যাশিশুদের গড়ে তোলা প্রয়োজন।

অনুষ্টানের সভাপতিত্ব করেন বেগম রোকেয়া নারী জাগরণ সংগঠনের সভাপতি ডা. রোজি খাঁন, অনুষ্টান সঞ্চালনায় বেগম রোকেয়া নারী জাগরণ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মুবিন আরা বেগম, প্রধান অথিতির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্যা ও মহেশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সংগ্রামী সভাপতি মশরফা জন্নাত,বিশেষ বক্তা যথাক্রমে চট্টগ্রাম অঞ্চলিক নেত্রী শাহেনা বেগম, বিকসিত নারী নেটওর্য়াক হাসিনা,জোসনা বেগম, নবজীবন সংগঠনের রেহেনা বেগম,সাধারণ সম্পাদক শাহীন মোস্তাফা,সভানেত্রী নবজীবন নারী উন্নয়ন সংগঠনের মাসুকা আক্তার,ব্যবস্হাপনা পরিচালক প্রকৌশলী জিয়া উদ্দিন আহমদ,বেগম রোকেয়া নারী জাগরণ সংগঠনের মাঠকর্মী মুন্নি দাস, শিখা দাস, আখি দাস,কাউছার, রোকসা বেগম,আনোয়ারা হামিদ, ছারা বেগম, লাইলা বেগম, মিরাজু, ছেনুয়ারা, জোসনা বেগম, পলি, মুন্নি, হাসমত প্রমুখ।




মহেশখালীতে ছিনতায়কারীর হামলায় আহত কেজি স্কুলের শিক্ষক, নগদ টাকা লুট

 

মহেশখালী প্রতিনিধি:

ছিনতায়কারীর হামলায় মহেশখালী কেজি স্কুলের উপাঅধ্যক্ষ হারুন গুরুতর আহত, নগদ ১লাখ ৭৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় হামলাকারীরা। ২৮ সেপ্টম্বর সকাল ১০টায় পৌরসভার নতুন পালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত শিক্ষককের ভাই ব্যবসায়ি সিরাজুর হক জানান, বৃহস্পতিবার সকালে তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যাংকে যাওয়ার পথে পুটিবিলা পাল পাড়ার মোড়ে স্থানীয় মৃত আব্দুল হকের পুত্র আব্দুর গফুর প্রকাস গফ্ফর গংরা অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে শিক্ষক হারুন কে গুরুতর আহত করে তার কাজ থেকে নগদ ১ লাখ ৭৭ হাজার টাকা লুট করে নেয় হামলা কারীরা।

আহত শিক্ষককে স্থানীয়রা প্রথমে উদ্ধার করে মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কতব্যরত চিকিৎসকরা তাকে সদর হাসপাতালে প্রেরন করে। তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানা গেছে তার চোখ এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফুলা জখম হয়েছে।

এদিকে এই বিষয় নিয়ে আহতরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিয়ে মহেশখালী থানার তদন্ত ওসি সফিকুল ইসলাম বলেন লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অপর দিকে মহেশখালী কেজি এন্ড প্রি ক্যাডেট স্কুলের উপাঅধ্যক্ষ হারুনর রশিদের উপর হামলা করায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন।