মহালছড়িতে ইয়াবাসহ এক ব্যক্তি আটক

মহালছড়ি, প্রতিনিধি
খাগড়াছড়ির জেলার মহালছড়ি উপজেলায়  দয়াল বনিক (৪০) নামে এক মাদকসেবীকে ইয়াবাসহ আটক করেছে মহালছড়ি  সেনা জোনের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।  সে মহালছড়ি মাষ্টার পাড়ার মৃত চিত্তরঞ্জন বনিকের মানিক ছেলে।
এ সময় তার কাছ থেকে ১০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।
নিরাপত্তাবাহিনী সুত্রে জানা গেছে, মহালছড়ি ২৪ মাইল এলাকায়  ইয়াবা বিক্রি করছেন, এমন সংবাদের ভিত্তিতে মহালছড়ি সেনা জোনের একটি টহলদল রোববার সন্ধ্যার দিকে দয়াল বনিক কে ২৪ মাইল থলিপাড়া মন্দির  এলাকা  থেকে ইয়াবাসহ আটক করে।
মহালছড়ি  থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জোবায়ের রহমান  ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজুর করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।



মহালছড়ি উপজেলার কালাপাহাড় জামে মসজিদ নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকায় মুসল্লিরা নামাজ পরে খোলা আকাশের নিচে রাস্তায়

মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলার কালাপাহাড় গ্রামের শতভাগ মুসলমান সম্প্রদায়ের জনগণের একমাত্র মসজিদ কালাপাহাড় জামে মসজিদ। শুরুতে গ্রামের গরীব জনসাধারণ নিজেরা নিজেদের সামর্থ অনুযায়ী গ্রামের মধ্যখানে কালাপাহাড় আরএমকে সড়কের পাশে টিনশেডের একটা কাঁচা ঘর করে এলাকার মুসল্লিরা নামাজ আদায়সহ নানা ধর্মীয় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলেন।

সময়ের পরিক্রমায় জনসংখ্যা ও মুসল্লির সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় চাহিদার প্রেক্ষিতে মসজিদটি ভবন নির্মাণ ও সম্প্রসারণের জন্য সদাশয় সরকার পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে তিনতলা ভবন বিশিষ্ট মসজিদটির উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেন এবং ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হয় উন্নয়ন কাজে। শুরুতে ঠিকাদার গত এপ্রিল মাসে পুরানো মসজিদটি ভেঙ্গে ফেলে এলাকার মুসল্লিদের নামাজ পড়ার বিকল্প ব্যবস্তা না করে মসজিদের নির্মাণ কাজে হাত দেন।

এলাকার মুসল্লিরা বিকল্প হিসেবে পাশাপাশি একটি ঝুপরির মত ঘর করে সেখানে বিগত ৭/৮ মাস যাবত নামাজ আদায় করে আসছেন। গত শুক্রবার (১৩ অক্টোবর)সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় শতাধিক মুসল্লি রাজপথের উপর জুমার নামাজ আদায় করছেন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে। সরজমিনে আরো দেখা যায় মসজিদের গ্রেট বীমগুলি কমপ্লিট করে কয়েকটি পিলার করেই নির্মাণ কাজ বন্ধ রেখেছেন ঠিকাদার।

এলাকাবাসীর অভিযোগ হলো, মসজিদটি এভাবেই পরে রয়েছে ছয় মাস ধরে। মসজিদের অভাবে এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের নি নিদারুণ দুভোর্গ পোহাতে হচ্ছে তা স্বচক্ষে না দেখলে কল্পনা করা যায় না। এলাকাবাসীর অভিযোগ নয়, তাদের দাবি হলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আর সময় ক্ষেপন না করে যত তারাতারি সম্ভব মসজিদটি নির্মাণ করে দিলে এলাকাবাসী একটু শান্তিতে নামাজ পড়তে পারবেন আল্লাহর ঘর মসজিদে বসে।

মসজিদটি নির্মাণে সংশ্লিষ্ট সকলের শুভ বুদ্ধির উদয় হোক আল্লাহর দরবারে। এই দোয়াই করেন এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও জনসাধারণ।




মহালছড়িতে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে একজন নিহত ও একজন আহত

মহালছড়ি  প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় মহালছড়ি সদর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের কুমিল্লা টিলার বাসিন্দা মো. জসিম উদ্দিন (৫৫), পিতা মৃত মোজাম্মেল,  ৭ অক্টোবর সকাল ৯টায় নিজ বাড়িতে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মারা যান।

এসময় বাড়িতে থাকা ডিসের ক্যাবলের সাথে বিদ্যুৎ এর তার জড়িয়ে যায়। তিনি ক্যবল দুইটি আলাদা করতে যাওয়ায় বিদ্যুৎপৃষ্ট হন।  তাকে উদ্ধার করতে আসলে আলম মিয়া নামে এক ব্যাক্তিও বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়।

গুরুতর আহত আবস্থায় তাদেরকে মহালছড়ি উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জসিম উদ্দিনকে মৃত ঘোষণা করেন।

আহত আলম মিয়া চিকিৎসাধীন আবস্থায় মহালছড়ি উপজেলা সদর হাসপাতালে রয়েছে ।




মহালছড়িতে অস্ত্রের মুখে জেএসএস নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্য অমিয় চাকমা অপহৃত

অপহরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে অস্ত্রের মুখে জেএসএস (এমএন) গ্রুপের নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্য অমিয় চাকমাকে অপহরণ করেছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা।  সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার বডানালা এলাকায় অপহরনের ঘটনা ঘটনা ঘটে। জেএসএস এ ঘটনার জন্য ইউপিডিএফকে দায়ী করেছে।

মহালছড়ি উপজেলা জনসংহতি সমিতি(এমএন) গ্রুপের সহযোগী সংগঠন যুব সমিতির সভাপতি সুজন চাকমার অভিযোগ, রাত সাড়ে ৮টার দিকে ইউপিডিএফর সন্ত্রাসী সজিৎ চাকমা ও মিন্টু চাকমার নেতৃত্বে ১২/১৪ সশস্ত্র সন্ত্রাসী বডানালায় জেএসএস নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্য অমিয় চাকমার বাড়িতে হানা দিয়ে জোরপূর্বক তাকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়।

মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা যোবাইরুল হক জানান, জেএসএস(এমএন) গ্রুপের নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্য অমিয় চাকমাকে কে কারা তুলে নিয়ে গেছে বলে শুনেছি। তবে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি।




মহালছড়িতে বজ্রপাতে কলেজ ছাত্রীর মৃত্যু

মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় বজ্রপাতে এক কলেজ ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।  সোমবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে মহালছড়ি  উপজেলার ধুমনীঘাট নামক গ্রামের চন্দ্রজয় ত্রিপুরা মেয়ে মল্লিকা ত্রিপুরা (১৮) ঘুমন্ত অবস্থায় বজ্রপাতের ফলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু ঘটে।

এসময় ঘরের ভিতরে থাকা এক নারী ও এক শিশু আহত হয়। নিহত মল্লিকা ত্রিপুরা মহালছড়ি ডিগ্রি কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মহালছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ জোবাইয়েরুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।




মহালছড়িতে জেএসএস সংস্কার এর উপজেলা কমিটি সম্পন্ন

মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার সময় উপজেলা টাউন হলে উপজেলা জেএসএস সংস্কারের সভাপতি প্রিয় কুমার চাকমার সভাপতিত্বে উপজেলা সম্বেলন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠত হয়।

ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, জেএসএস সংস্কারের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক তাতিন্দ্র লাল চাকম ওরফে পেলে বাবু, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেএসএসর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহালছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান বিমল কান্তি চাকমা, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিস্ কাকলি খীসা, উপজেলা জেএসএস যুব সমিতির সভাপতি সুজন চাকমা প্রমুখ।

বক্তারা জুমজাতিকে একতাবদ্ধ্য থেকে জাতির জন্য কাজ করা এবং রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে যাতে কোন অপ্রিতিকর ঘটনা না ঘটে সেই ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

বক্তব্য শেষে নিলয় রন্ঞ্জন চাকমাকে সভাপতি, সন্তোষ কুমার চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক ও সাধনপূর্ন চাকমাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা কমিটি গঠন করা হয়।




‌’উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হল আ’লীগ সরকারের বিকল্প নেই’


মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় সরকারী বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, উদ্বোধন ও সদস্য সংগ্রহ অভিযান উদ্বোধন উপলক্ষে বিশাল কর্মী সমাবেশ আয়োজন করে মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ।

১৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকাল ১০টায় চৌংড়াছড়ি গুচ্ছগ্রামে তাহফিজুল কোরান নূরাণী ও হাফিজিয়া মাদ্রাসা ভবণ নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও পথসভা, মহালছড়ি ফায়ার ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ষ্টেশন স্থাপনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও সদস্য সংগ্রহ অভিযান উদ্বোধন এর পর মহালছড়ি টাউন হল প্রাঙ্গনে এক বিশাল কর্মী সমাবেশে খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি প্রধান অতিথির তার বক্তব্যে বলেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হলে, আওয়ামীলীগ সরকারের বিকল্প নেই। পাহাড়ি বাঙ্গালী সম্প্রীতি বজায় রেখে আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা স্থিতিশীল রাখতে আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার আহবান জানান।

মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি নিলোৎপল খীসার সভাপতিত্বে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ এর সহ সভাপতি রণ বিক্রম ত্রিপুরা, জেলা পরিষদ সদস্য মংক্যচিং চৌধুরী, মনির হোসেন খাঁন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রইছ উদ্দিন, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য এড. আশুতোষ চাকমা, জেলা উপদপ্তর সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য জুয়েল চাকমা, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য আবদুল জব্বার, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. সুপাল চাকমা, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ও জেলা পরিষদ সদস্য শতরূপা চাকমা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা পৌর মেয়র  সামশুল হক ও মহিলা নেত্রী নিগার সুলতানা।

সমাবেশে মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক রতন কুমার শীল।

বক্তব্য রাখেন, মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, মহালছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগ এর সভাপতি জিয়াউর রহমান, যুবলীগ এর সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, উপজেলা সৈনিক লীগ এর সভাপতি বাবলু চৌধুরী ও কার্তিক শীল প্রমূখ।

এসময় বক্তারা বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে স্বাধীনতার বিপক্ষীয় শক্তি নানামূখী ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে বড় ধরণের সংঘাত সৃষ্টি করে রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের চেষ্টা করা হচ্ছে। আওয়ামীলীগ সেই অপশক্তির প্রত্যেকটি ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়ে দেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে আবারো নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার আহবান জানান বক্তারা।




মহালছড়িতে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে বিদেশি অস্ত্র ও গুলিসহ ইউপিডিএফ সদস্য আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়িতে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে একটি বিদেশি অস্ত্র, দুই রাউন্ড গুলি ও বিপুল পরিমাণ রাষ্ট্র বিরোধী লিফলেট এবং ইউপিডিএফ’র সাংগঠনিক নথিপত্রসহ সুপায়ন চাকমা নামে এক সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়েছে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার ভোর ৪টায় মহালছড়ির লেমুছড়িতে এ অস্ত্র ও গুলিসহ অন্যান সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহালছড়ি জোনের নিরপত্তা বাহিনীর সদস্যরা লেমুছড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় ইউপিডিএফ’র সক্রিয় সদস্য সুপায়ন চাকমাকে একটি ইউএসএ-এর তৈরি একটি স্টিভেনস (শর্টগান মডেল ৯৪ এফ ১২ গেজ) শর্টগানের দুই রাউন্ড গুলিসহ আটক করা হয়।

পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইউপিডিএফ’র আস্তানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ রাষ্ট্রবিরোধী লিফলেট, ব্যানার, ইউপিডিএফ’র সাংগঠনিক গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র, ধারালো অস্ত্র, মোবাইল ফোন, সিম কার্ড, মেগাফোন, ঔষধপত্র আটক করা হয়। পরে আটক সুপায়ন চাকমাকে মহালছড়ি থানায় সোপর্দ করা হয়।

মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবীর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় অস্ত্র আইনে মামলা হয়েছে।




মহালছড়িতে ৫ শতাধিক দুঃস্থ-অসহায় মানুষকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে নিরাপত্তাবাহিনী

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়ন কর্মসূচির অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ির দূর্গম তবলছড়ি গ্রামে ৫ শতাধিক দুঃস্থ ও অসহায় পাহাড়ি-বাঙালিকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ করেছে  নিরাপত্তাবাহিনী।

সোমবার সকালে এ চিকিৎসা ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন মহালছড়ি সেনা জোনের বিদায়ী অধিনায়ক লে. কর্ণেল সৈয়দ মো. আব্দুল্লাহ জুনায়েদ পিএসসি ও নবাগত জোন অধিনায়ক লে. কর্ণেল মুহাম্মদ মোসতাক আহমেদ পিএসসি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ৩ নং ক্যায়াংঘাট ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিত চাকমা, ইউপি সদস্য মো. আলমগীর ও মুক্তিযোদ্ধা মোবারক আলী।

এ মেডিকেল ক্যাম্পেইনে চিকিৎসা সেবা দেন মহালছড়ি জোনের মেডিকেল অফিসার ক্যা্প্টেন নাহিদ নেওয়াজ ও খাগড়াছড়ি রিজিয়নের মেডিকেল অফিসার ক্যাপ্টেন মো. শামীমুজ্জামান।

এর আগে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় এলাকার উন্নয়নে পাহাড়ি-বাঙালি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার আহাবান জানানো হয়।

ক্যায়াংঘাট ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিত চাকমা নিরাপত্তাবাহিনীর এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এর ফলে এলাকার চিকিৎসা বঞ্চিত হতদরিদ্র ও অসহায় পরিবারগুলো বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা পেল। তিনি সেনাবাহিনীকে এ ধরণের কার্যক্রম অব্যাহত রাখার জন্য অনুরোধ জানান।




মহালছড়ি উপজেলা বিএনপি অফিসে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জেলা বিএনপির

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

 

২৬ আগস্ট সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার সময় মহালছড়ি উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে দলীয় নেতাকর্মীরা বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা করার সময়ে কোন কারণ ছাড়াই আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জিয়া ওরফে টুইঠ্যাং জিয়া, সোহেল, মাসুদসহ ছাত্রলীগের ২০-৩০ জন সন্ত্রাসী জড়ো হয়ে লাঠি-সোটা নিয়ে অতর্কিত বিএনপি অফিসে হামলা চালিয়ে বিএনপির ৮-১০টি ঈদ শুভেচ্ছা ব্যানারে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি। হামলার সাথে সাথে নিরাপত্তা বাহিনী ও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এমতাবস্থায় ঈদকে সামনে রেখে পরিস্থিতি উত্তপ্ত না করার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীরা ধৈর্য্য ও সহনশীলতার পরিচয় দিয়ে বাড়াবাড়ি থেকে বিরত থাকে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের এ নগ্ন হামলা ও ঈদ শুভেচ্ছা ব্যানারে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে জেলা বিএনপি।

ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগের সভাপতি টুইঠ্যাং জিয়া, সোহেল, মাসুদসহ সহযোগী সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনকে অনুরোধও জানিয়েছে তারা।

অন্যথায় খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি গণতান্ত্রিক পন্থায় যে কোন কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবে বলে তারা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।