মহালছড়িতে নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত 

IMG_20170430_112027 (2) copy

মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার সময় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে জেলা তথ্য অফিস ও গণযোগাযোগ অধিদপ্তর আয়োজনে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালাটি মহালছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাদিম সারওয়ারর সভাপতিত্বে যৌতুক এবং বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, অটিজম ও শিশুর মানসিক স্বাস্থ্য, স্যানিটেশন, পরিবেশ ও জন্ম নিবন্ধন, মাদক এবং জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য পরিচর্যা, নিরাপদ মাতৃত্ব, নারীর ক্ষমতায়ন ও নিরাপত্তা কার্যক্রমসমূহ ইত্যাদি বিষয়ের উপর এ কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহালছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বাবু বিমল কান্তি চাকমা, খাগড়াছড়ি জেলা তথ্য অফিসার মো. মহসিন তালুকদার, মহালছড়ি উপজেলা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. তনয় চাকমা, স্থানীয় ব্যক্তিবর্গসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।




মহালছড়িতে শিশু ও নারী উন্নয়নে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত

Khagrachhari pic 04
নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:
শিশু ও নারী উন্নয়নে যোগাযোগ কার্যক্রম (৪র্থ পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের (জিওবি) আওতায় নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার মহালছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাদিম সারওয়ার সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে খাগড়াছড়ি জেলা তথ্য অফিস, ও গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের আয়োজিত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা তথ্য অফিসার মহসীন হোসেন তালুকদার।

কর্মশালায় শিশু ও নারী উন্নয়নে যোগাযোগ কার্যক্রম (৪র্থ পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের (জিওবি) আওতায় যৌতুক এবং বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, অটিজম ও শিশুর মানসিক স্বাস্থ্য, স্যানিটেশন, পরিবেশ ও জন্ম নিবন্ধন, মাদক ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ, মাও শিশুর স্বাস্থ্য পরিচর্যা, নিরাপদ মাতৃত্ব, নারীর ক্ষমতায়ন ও নিরাপদ মাতৃত্ব, নারীর ক্ষমতায়ন ও নিরাপত্তা কার্যক্রমসমূহ, নারীর সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিসমূহ, শিশুর পানিতে ডুবা প্রতিরোধ, পরিবেশ সুরক্ষা ও দূর্যোগকালীন নারী ও শিশুর সচেতনতা নিয়ে আলোচনা হয়।




মহালছড়ি উপজেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক

IMG_20170424_143259 copy

মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সাপ্তাহ-২০১৭ উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী মেলার উদ্বোধন করলেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম। সোমবার সকাল ১০টায় তিনি মহালছড়ি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যলয়ের অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত ওই মেলার উদ্বোধন করেন। বর্ণাঢ্য ও অত্যন্ত জাঁকজমক এবং উৎসব মুখরভাবে অনুষ্ঠিত  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন বিদ্যলয়ের শিক্ষক – শিক্ষার্থী বৃন্দ।

মহালছড়ি উপজেলা প্রশাসন এবং জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যাদুঘর, আগারগাঁও ঢাকার আয়োজনে আর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত ওই মেলার উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি বৃন্দ মেলায় অংশ গ্রহণকারী উপজেলার ১২টি উচ্চ বিদ্যলয়ের ছাত্র/ছাত্রীদের উদ্ভাবনী প্রকল্প ও স্টলগুলি ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং ক্ষুদে উদ্ভাবক বিজ্ঞানীদের সাথে কথা বলেন। শেষে অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভায় অতিথিবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

মহালছড়ি উপজেলার নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাদিম সারওয়ার’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান বাবু বিমল কান্তি চাকমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাকলী খীসা, নবাগত উপজেলা সহকারী ভূমি কমিশনার তামান্ন নাসরীন ঊর্মি, সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান  রতন কুমার শীল, মহালছড়ি মডেল  উচ্চ বিদ্যলয়ের প্রধান শিক্ষক নিপুল বিকাশ খীসা ও অন্যান অতিথি বৃন্দ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দর্শন বাংলাদেশ উন্নয়ন এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন ও বিজ্ঞান সম্মত উন্নয়ন। বক্তারা আরও বলেন,  বিজ্ঞান উন্নতির স্বপ্ন দেখায় তাই প্রাত্যহিক জীবনে বিজ্ঞানকে প্রাধান্য দেওয়া দরকার তারা প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহারে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অনুসরণ করার পরামর্শ দেন, পার্বত্যাঞ্চলের উন্নয়নের বর্তমান ধারাকে বিজ্ঞানের অবদান বলে আখ্যায়িত করেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার অনুষ্ঠানসূচী শেষ করে মহালছড়ি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মত বিনিময় সভায় মিলিত হন জেলা প্রশাসক। ওই মত বিনিময় সভায় সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা অংশ গ্রহণ করেন।




মহালছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হচ্ছে

IMG_20170419_111518 copy

মহালছড়ি, প্রতিনিধি:

মহালছড়িতে ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক মো. ছাদিকুল ইসলামের হত্যাকারীদের গ্রেফতার, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ক্ষতিপূরণ ও উপজাতি সন্ত্রাসীদের অব্যাহত চাঁদাবাজির প্রতিবাদে খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটিতে বুধবার সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালিত হচ্ছে।

হরতালের কারণে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে সকাল থেকে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ আছে। হরতালে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা সহ-সভাপতি ও মহালছড়ি উপজেলার সমান্বয়ক মো. শাহাদাৎ হোসেনের নেতৃত্বে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পিকেটিং করেছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের নেতৃবৃন্দসহ হরতাল সমর্থকরা। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ টহল দিচ্ছে উপজেলার বিভিন্ন সড়কে।

এদিকে হরতালে খোঁজখবর জানতে চাইলে মহালছড়ি থানার অফিসার ইনর্চাজ মো. সেমায়ুন কবির চৌধুরী জানান, তার জানা মতে, এখনো পর্যন্ত কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য তারা সর্বদা প্রস্তুত আছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় ১০ এপ্রিল ছাদিকুল ইসলাম (২৩) নামে এক ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালককে দুই উপজাতি লোক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় মহালছড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে রাঙ্গামাটির ঘিলাছড়ি উদ্দেশ্যে তাকে ভাড়া করে নিয়ে যায়। সে ১০ এপ্রিল  রাতে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি পরদিন সকাল থেকে বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভিন্ন জাগায় খোঁজাখুঁজি করে পাওয়া যায়নি তাকে। তিনদিন পর গত ১৩ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকালে তার মরদেহ পাওয়া যায় ঘিলাছড়ির নাঙ্গল পাড়ায়। ১৪ এপ্রিল বিকাল সাড়ে ৫টায় তার লাশ দাফন করা হয়।

এ ঘটনায় নানিয়ারচর থানায় একটি হত্যা মামলা করা হয়, মামলা নাম্বার (০২)তাং ১৪/০৪/২০১৭ইং। এদিকে এ ঘটনায়  একজন আটক করেছে নানিয়ারচর থানা পুলিশ।




খাগড়াছড়ির মাইসছড়ি থেকে তিনজনকে অপহরণ

অপহরণ

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলার মাইসছড়ি ইউনিয়নের তিনজনকে মোটরসাইকেলসহ অপহরণ করা হয়েছে। মাইসছড়ি থেকে ফটিকছড়ি উপজেলার চিকনছড়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে মাইসছড়ি থেকে রওয়ানা হওয়ার পর থেকে তারা নিখোঁজ। তবে কোথায় থেকে তাদেরকে অপহরণ হয়েছে তা নিশ্চিত নয়।

অপহরণ হওয়া ব্যক্তিরা হলেন, মো. আবুল কালাম, মো. আমির হোসেন ও মো. দুলাল মিয়া। তারা সকলেই মাইসছড়ি ইউনিয়নের বাসিন্দা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেমায়ুন কবির জানান, অপহরণ হওয়া আবুল কালামের পিতা আব্দুল মালেকের মুঠোফোনে বিকেল ৪টার দিকে অপরিচিত নাম্বার থেকে কল দিয়ে একলক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছে। এর আধাঘণ্টা পরে আবারও কল দিয়ে দুইটি বিকাশ নাম্বার দেয়। তবে ঘটনাটি খতিয়ে দেখা  হচ্ছে। অপহৃতদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত ১০ এপ্রিলে অপহরণের ৩ দিন পর খাগড়াছড়ির মহালছড়ির মোটর সাইকেল চালক ছাদিকুল ইসলামের লাশ গত বৃহস্পতিবার বিকালে রাঙামাটির নানিয়াচর উপজেলার ঘিলাছড়িতে মাটি চাপা দেওয়া অবস্থায় উদ্ধার হয়। মোটর সাইকেল চালক ছাদিকুল হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সন্দেহে পল্টু চাকমা নামে এক পাহাড়ি সন্ত্রাসীকে আটক করেছে যৌথবাহিনী। এই ঘটনায় খাগড়াছড়ি এবং রাঙ্গামাটিতে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর মধ্যেই মহালছড়ির মাইসছড়ি থেকে আরও ৩ জন অপহরণের ঘটনা ঘটল।




ছাদিকুল হত্যাকারীদের গ্রেফতারে ও চাঁদাবাজির প্রতিবাদে মহালছড়িতে মানববন্ধন, হত্যাকারীদের গ্রেফতারে আশ্বাস প্রশাসনের

Khagrachari Pic (1) copy

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক ছাদিকুল ইসলামকে হত্যা ও পাহাড়ি সন্ত্রাসীগুলোর অব্যাহত চাঁদাবাজির প্রতিবাদে  ফুসে উঠেছে খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলাবাসী। ছাদিকুল ইসলাম হত্যাকাণ্ড ও চাঁদাবাজদের গ্রেফতারের দাবিতে শনিবার সকালে মহালছড়িতে প্রায় পৌঁনে এক কিলোমিটার দীর্ঘ মানববন্ধন করেছে হাজারো জনতা। এ মানববন্ধন থেকে সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনা না হলে হরতাল-অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুমকি দেওয়া হয়েছে। পক্ষান্তরে প্রশাসন হত্যাকারীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছেন।

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, খাগড়াছড়ি জেলাবাসী দীর্ঘদিন ধরে ইউপিডিএফ, জেএসএস ও জেএসএস(এমএন) এ তিন গ্রুপের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে অতিষ্ট। চাঁদার শ্রমিক অপহরণ, হত্যা, গুম, পণ্যবাহী গাড়িতে গুলি বর্ষন ও অগ্নিসংযোগ  এখানে যেন নিত্য দিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সর্বশেষ গত ১০ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালক ছাদিকুল ইসলামকে  (২৩) দুই উপজাতি মহালছড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে রাঙ্গামাটির ঘিলাছড়ি উদ্দেশ্যে ভাড়া করে নিয়ে যায়। কিন্তু ছাদিকুল ইসলাম আর ফিরে আসেনি। তিনি নিখোঁজের পর বৃহস্পতিবার বিকালে রাঙামাটির নানিয়াচর উপজেলার ঘিলাছড়ি এলাকায়  ছাদিকুল ইসলামের ক্ষতবিক্ষত লাশ মাটি চাপা দেওয়া অবস্থায়  পাওয়া যায়।

Khagrachari Pic 03 (1) copy

এদিকে শনিবার সকালে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমিন  মহালছড়ি উপজেলা পরিষদ পরিদর্শনে আসলে হাজারো জনতা প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে উঠে। বিক্ষুব্ধ জনতা উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন করে এবং ছাদিকুল ইসলাম হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমীন ও খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলামকে স্বারকলিপি দেয়।

স্বারকলিপি গ্রহণকালে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক ছাদিকুল ইসলাম হত্যাকারীদের আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দিয়ে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম  বলেন, বিষয়টি সরকারের তরফ থেকে আমরা গভীর পর্যবেক্ষনে রাখছি এবং মনিটরিং করছি। বিষয়টি আইনানুগভাবে নিষ্পত্তি হবে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, নিহত ছাদিকুল ইসলামের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম, বাঙালি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সভাপতি সাহাদাত হোসেন, মহালছড়ি উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক মাসুদ, ছাত্রলীগের সভাপতি জিয়াউর রহমান, ইউপি মেম্বার মো. আনোয়ার হোসেন ও সাবেক ছাত্রনেতা জহিরুল ইসলাম।

অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও চাঁদাবাজদের আইনের আওতায় আনার মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতি বজায় থাকুক এ প্রত্যাশা এ অঞ্চলের শান্তিপ্রিয় মানুয়ের।




মহালছড়ি মোটরসাইকেল চালকের লাশ দাফন: প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ

IMG_20170414_183328

মহালছড়ি প্রতিনিধি:
আজ শুক্রবার বেলা ৩টার সময় উপজাতি সন্ত্রাসী দ্বারা নিহত মোটরসাইকেল চালক সাদিকুল এর লাশ রাঙ্গামাটি থেকে ময়নাতদন্ত শেষে মহালছড়িতে পৌঁছালে তাৎক্ষনিকভাবে বিক্ষোভ মিছিল করে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ। বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা চত্তরে এসে বিক্ষোভ সমাবেশ করে শেষ হয়।

 এসময় বিক্ষোভ সমাবেশে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের জেলা সহ সভাপতি মোঃ শাহাদাৎ হোসেন তার বক্তব্য বলেন সাদিকুল ইসলামকে পরিকল্পিত তুলে নিয়ে গিয়ে হত্যা করেছে উপজাতি সন্ত্রাসীরা। এ হত্যাকান্ডে জড়িত সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবিসহ এ হত্যাকান্ডে তীব্র নিন্দা জানান তিনি।

উল্লেখ্য,  খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় গত ১০ এপ্রিল রোজ সোমবার ছাদিকুল ইসলাম (২৩) নামে এক ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালককে দুই উপজাতি লোক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় মহালছড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে রাঙ্গামাটির ঘিলাছড়ি উদ্দেশ্যে তাকে ভাড়া করে নিয়ে যায়।

চারদিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে তার মরদেহ পাওয়া যায় ঘিলাছড়ির নাঙ্গল পাড়ায়। আজ বিকাল সাড়ে ৫ টায় তার লাশ দাফন করা হয়।

সে সোমবার রাতে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি পরদিন সকাল থেকে আজ বুধবার সন্ধা পর্যন্ত বিভিন্ন জাগায়  খোঁজাখুঁজি করে  পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় নানিয়ারচর থানায় একটি হত্য মামলা করা হয়,মামলা নাম্বার (০২) তাং ১৪/০৪/২০১৭ইং। এদিকে এ ঘটনায় এলাকায় লোকজনের মাঝে উৎকন্ঠা ও চাপা বিরাজ করছে।




ছাদিকুল হত্যাকারীদের গ্রেফতারে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম বাঙালি ছাত্র পরিষদের

Khagrachari Picture(02) 13-04-2017 copy

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

মহালছড়ির ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক ছাদিকুল ইসলামের হত্যাকারীদের আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতারের আল্টিমেটাম দিয়েছে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল উত্তর সমাবেশ থেকে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, অন্যথায় লাগাতার কর্মসূচি দেওয়া হবে।

নিখোঁজের তিনদিন পর খাগড়াছড়ির মহালছড়ির ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক ছাদিকুল ইসলামের লাশ বৃস্পতিবার বিকালে রাঙামাটির নানিয়াচর উপজেলার ঘিলাছড়ি এলাকায় মাটি চাপা দেওয়া অবস্থায় উদ্ধার হয় বলে নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছে।

বাঙালি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. মাইনউদ্দিন’র সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি  জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এসএম মাসুম রানা ও সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা কামাল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাঙালি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পারভেজ আলম, খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. ওমর ফারুক ও পৌর সভাপতি মো. আশরাফুল ইসলাম রনি।

সমাবেশে বক্তারা মো. মাইনউদ্দিন ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক ছাদিকুল ইসলামকে হত্যার নিন্দা জানিয়ে বলেন, প্রশাসনের নিরবতার কারণে একের পর এক এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। এর আগেও  পানছড়ির শহিদুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গার শান্ত, দীঘিনালার মোহাম্মদ আলিকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে উগ্র সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসীরা। আর কত বাঙ্গালির রক্ত ঝরবে, আর কত বাঙ্গালি খুন হলে খুনিরা শাস্তি পাবে এমন প্রশ্ন রাখেন প্রশাসনের কর্তাদের কাছে। তিনি পাহাড়ের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, চাঁদাবাজসহ অপহরণকারী সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানান।

Khagrachari Picture(03) 13-04-2017 copy

সমাবেশে বক্তারা, জঙ্গি দমন করা গেলে পাহাড়ের সন্ত্রাসীদের কেন দমন করা যাচ্ছে না এমন প্রশ্নও রাখেন। এর আগে চেঙ্গী স্কোয়ার থেকে একটি মিছিল বের হয়ে আদালত সড়ক ঘুরে শাপলা চত্বরে সমাবেশ করে। মিছিলে আগে পিছে ছিল কড়া পুলিশী নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

মহালছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেমায়ুন কবীর জানান, গত সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ছাদিকুল ইসলাম (২৩) নামে এক ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালককে দুই উপজাতি লোক মহালছড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে রাঙ্গামাটির ঘিলাছড়ি উদ্দেশ্যে তাকে ভাড়া করে নিয়ে যায়।

কিন্তু ছাদিকুল ইসলাম আর ফিরে না আসায় এ ঘটনায় ছাদিকুল ইসলামের বড় ভাই হাদিকুল ইসলাম মহালছড়ি থানায় একটি জিডি করেন। জিডি নাম্বার (৪২৯) তাং১০/০৪/২০১৭ইং।

সেমায়ুন কবীর আরও জানান, ছাদিকুল ইসলামের লাশ পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে মহালছড়িতে উত্তেজনা দেখা দেয়। তবে নিরাপত্তা বাহিনীর দ্রুত হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এখন পরিস্থিতি শান্ত।

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মো. আলী আহমেদ খান হত্যাকারীদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে এমন দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে রাঙামাটির নানিয়াচরে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।




মহালছড়িতে ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেল চালক তিন দিন যাবত নিখোঁজ

FB_IMG_1492013026610

মহালছড়ি প্রতিনিধি :

খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলায় গত ১০ এপ্রিল রোজ সোমবার ছাদিকুল ইসলাম (২৩) নামে এক ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালককে দুই উপজাতি লোক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় মহালছড়ি বাসস্ট্যান্ড থেকে রাঙ্গামাটির ঘিলাছড়ি উদ্দেশ্যে তাকে ভাড়া করে নিয়ে যায়।

সে সোমবার রাতে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি পরদিন সকাল থেকে আজ বুধবার সন্ধা পর্যন্ত বিভিন্ন জাগায়  খোঁজাখুঁজি করে  পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় মহালছড়ি থানায় একটি জিডি করা হয়, জিডি নাম্বার (৪২৯) তাং১০/০৪/২০১৭ইং।

এদিকে এ ঘটনায় এলাকায় লোকজনের মাঝে উৎকন্ঠা বিরাজ করছে।




মহালছড়ি জোন কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭ উদ্বোধন

IMG_20170410_155925 copy

মহালছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার মহালছড়ি উপজেলায় মহালছড়ি জোনকতৃক শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়ন এ প্রতিপাদ্যে মহালছড়িতে শুরু হয়েছে জোন কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭।

সোমবার  বিকালে মহালছড়ি ষ্টেডিয়ামে বর্ণাঢ্য আনুষ্ঠানিকতায় জোন টুনামেন্টের উদ্বোধন করেন, মহালছড়ি আর্মি জোনের জোন কমান্ডার লে. কর্নেল সৈয়দ মো. আব্দুল্লাহ্ জুনায়েদ পিএসসি।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মহালছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু বিমল কান্তি চাকমা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মো. মোমিন, মহালছড়ি ৬ আর্মড পু্লিশ ব্যাটালিয়নের উপ অধিনায়ক মো. শাহনেওয়াজ খালেদ, মহালছড়ি থানা অফিসার ইনর্চাজ মো. সেমায়ুন কবির চৌধুরী, মহালছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান বাবু রতন কুমার শীল, মহালছড়ির  মো. শাহজাহান পাটোয়ারী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন  ও স্থানীয় সাংবাদিকসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এ টুর্নামেন্টে মোট ১২টি ক্লাবের ১২টি দল অংশ গ্রহণ করবে, এর মধ্যে উদ্বোধনীয় খেলায় অংশ গ্রহণ করে শাপলা সংঘ বনাম বন্ধন একাদশ।