দীঘিনালায় বিষ প্রয়োগে মুক্তিযোদ্ধার পুকুরের মাছ নিধনের অভিযোগ

Dighinala news Picture 20-03-2017 copy

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

দীঘিনালায় এক মুক্তিযোদ্ধার পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন করার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি রবিবার ৩ নম্বর কবাখালী ইউনিয়নের মুসলিম পাড়া গ্রামে ঘটে। এতে পুকুরের অধিকাংশ মাছ মারা যায়। এঘটনায় মাছ চাষী এবং মুক্তিযোদ্ধা (অবঃ সেনা কর্পোরাল) মো. আবু সুফিয়ান অজ্ঞাত আসামী করে দীঘিনালা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

জানা যায়, এক একর কুড়ি শতক আয়তনের পুকুরটি গত মাসে খনন করেন। এরপর নদী থেকে পানি নিয়ে ভরাট করে পুকুরে পোনা মাছ ছাড়েন। পোনা মাছ ছাড়ার পর রবিবার থেকে হঠাৎ করেই মাছের পোনা পুকুরে খাবি খাওয়া শুরু করে। পরে দিনভর পুকুরে পোনা মারা যায়।

এব্যাপারে মাছ চাষী এবং মুক্তিযোদ্ধা (অবঃ সেনা কর্পোরাল) মো. আবু সুফিয়ান জানান, গত মাসে তিনটি পুকুরে মাছের পোনা ছাড়া হয়। প্রতিদিনের মতো সকালে মাছের খাবার দিতে আসলে দেখি সব মাছই পুকুরে খাবি খাচ্ছে। এক পর্যায়ে দিন বাড়ার সাথে সাথে পোনা মাছগুলো পুকুরে মরে ভেসে উঠে। নতুন এ পুকুরে প্রায় চারশত কেজি পোনা ছাড়া হয়েছে। এখন মাছ নাই বললেই চলে। এসময় তিনি আরও জানান, এতে প্রায় চার লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

দীঘিনালা উপজেলার শ্রেষ্ঠ মৎস চাষী মো. শাহজাহান জানান, পুকুরে অপরিমিত রাসায়নিক সার প্রয়োগের কারণে মাছ মারা যেতে পারে আর অন্যদিকে বিষ প্রয়োগের কারণে মারা যেতে পারে।

এব্যাপারে দীঘিনালা থানার এসআই পলাশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঘটনায় পুকুরের পার্শ্ববর্তী এলাকার লোকজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে এবং এখনো তদন্ত চলছে।




দীঘিনালায় এক আনসার সৈনিক ৪ দিন যাবৎ পলাতক

20170319_183947

দীঘিনালা প্রতিনিধি :

দীঘিনালা থেকে এক আনসার সৈনিক গত বৃহস্পতিবার থেকে পলাতক রয়েছে। পলাতক আনসার সৈনিকের নাম মো. বায়েন উদ্দীন। তার পিতার নাম মৃত লাহার উল্লাহ। সে দীঘিনালা উপজেলার ৩১ নং আনসার ব্যাটালিয়নের সৈনিক। এদিকে ঘটনার পর থেকে কর্মস্থলে যোগদানের জন্যে তার স্থায়ী ঠিকানায় নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

৩১ আনসার ব্যাটালিয়ন সুত্রে জানা যায়, সৈনিক বায়েন উদ্দীন ব্যাটালিয়ন পরিচালিত ক্যান্টিন পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন। গত ১৬ মার্চ সন্ধ্যা ৬টায় উপজেলার জামতলী সদর দফতরে রোল কল করার পর তাকে কর্মস্থলে অনুপস্হিত পাওয়া যায়। ঘটনার পর খোঁজাখুঁজির পর তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। এদিকে তার সন্ধান পেতে গত ১৭ মার্চ তার স্থায়ী ঠিকানা রাজশাহী জেলার মোহনপুর উপজেলার শরমইল গ্রামে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে ৩১ আনসার ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক মো. সাজ্জাদ মাহমুদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, বিষয়টি উর্ধত্বন কতৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে এবং পলাতক সৈনিক বায়েন উদ্দীনকে সাত দিনের মধ্যে কর্মস্থলে যোগ দিতে তাঁর গ্রামের ঠিকানায় নোটিশ প্রেরণ করা হয়েছে।




দীঘিনালা শুকনাছড়া গ্রামে ডায়রিয়ার প্রকোপ

17352621_1240220199418508_402045277_n copy

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

দীঘিনালা উপজেলার ৩নম্বর কবাখালী ইউনিয়নের শুকনাছড়ি গ্রামে ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। এ পর্যন্ত গ্রামের শতাধিক বাসিন্দা ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। ইতিমধ্যে অনেকে দীঘিনালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য হলেও নতুন করে আবারও আক্রান্ত হচ্ছেন।

সরেজমিনে রবিবার দীঘিনালা উপজেলার শুকনাছড়ি গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, শান্তিলতা চাকমা (৫৫) নামে একজনকে ডায়রিয়া রোগের স্যালাইন দেয়া হচ্ছে।

এব্যাপারে গ্রামের কার্বারী(গ্রাম প্রধান) সুরেশ বিহারী কার্বারী জানান, যিনি স্যালাইন নিচ্ছেন, তিনি আমার শাশুড়ী। আমার স্ত্রী জয়শ্রী চাকমা(৪২) এবং মেয়ে ইয়ানা চাকমা (৭) তারা দুজনে ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এর আগে আমি নিজেও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছি।

গ্রামের বাসিন্দা সিন্ধুদেবী চাকমা (৫৭) জানান, ছড়ার পানি পান করে আমি নিজে এবং আমার নাতনী ইতি চাকমা (০৫) আক্রান্ত হয়েছি। বর্তমানে দুজনেই চিকিৎসা নিচ্ছি।

গ্রামের অন্য আরেক জন ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত হওয়া চিজিবি চাকমা (২৬) জানান, বুধবার বৃষ্টির পর থেকে আমাদের গ্রামে হঠাৎ করেই ডায়রিয়া বেড়ে গেছে। এতে আমার মেয়েও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়।

গ্রামের রনিল বিকাশ চাকমা জানান, এ গ্রামে মোট ৭৫ পরিবারের বসবাস। সবাই ছড়া, কুয়া এবং রিং টিউবওয়েলে পরিষ্কার পানি পান করে। বুধবার বৃষ্টি হওয়ার পর ছড়া, কুয়া এবং রিং টিউবওয়েলের পানি পান করার পর গ্রামের অধিকাংশ লোকজনই ডায়েরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। কিছু চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন এবং এখনো নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছে।

দীঘিণালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার ডা. দীপঙ্কর ধর জানান,  গত ১১মার্চ থেকে-১৯ মার্চ পর্যন্ত বহিঃ বিভাগে শতাধিক ডায়েরিয়া রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এছাড়া যারা মারাত্মক ভাবে আক্রান্ত তাদের বিশেষ করে শিশুদের ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

দীঘিণালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. নুরুল আনোয়ার ডায়েরিয়া  সম্পর্কে জানান, ডায়েরিয়া থেকে রক্ষা পেতে নলকুপের পানি পান করতে হবে। এছাড়া ছড়া, কুয়ার পানি অবশ্যই ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে পান করতে হবে। এছাড় ছড়া ও কুয়ার পানি বিশুদ্ধকরণ বড়ি দিয়েও পানি বিশুদ্ধ করে পান করা যায়। এব্যাপারে সকলকে সচেতন করে তুলতে হবে।

এব্যাপারে দীঘিনালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মো. শহিদুল ইসলাম জানান, শুকনা ছড়া এলাকায় ডায়রিয়া রোগীদের চিকিৎসা এবং এলাকাবাসীদের নিরাপদ পানি পান করা সর্ম্পকে সচেতন করতে খুব শীঘ্রই একটি মেডিকেল টিম পাঠানোর উদ্যোগ নেয়া হবে।




দীঘিনালায় ট্রাক্টরের চাপায় শ্রমিক নিহত

17360692_1239169419523586_1692046766_n copy

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

দীঘিনালায় ট্রাক্টরের চাপায় এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহত শ্রমিকের নাম মো. আবুল হোসেন (৩২)। তিনি উপজেলার জামতলী এলাকার ইসলাম পুর গ্রামের সুলতান আহমেদ এর ছেলে। শনিবার উপজেলার উদাল বাগান এলাকার খামার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে।

জানা যায়, শনিবার উপজেলার ২ নম্বর দীঘিনালা ইউনিয়নের উদাল বাগানের খামার পাড়া এলাকায় ট্রাক্টরে গাছ বোঝাই করে ফেরার পথে পাহাড় থেকে নামার সময় একটি গাছের টুকরো  ট্রাক্টরের চালকের পাশে বসা আবুল হোসেন’র উপর পড়ে যায়।  এতে আবুল হোসেন  ছিটকে ট্রাক্টরের নিচে পড়ে যায়। ট্রাক্টরের চাকার নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি। ঘটনাস্থল থেকে দীঘিনালা থানার পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে।

দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।




দীঘিনালায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের জন্মদিন উদযাপন

unnamed copy
দীঘিনালা প্রতিনিধি:


“বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, বাংলাদেশের খুশির দিন” এ প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে দীঘিনালা উপজেলায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিবস উদযাপন করা হয়েছে।

শুক্রবার উপজেলা প্রশাসন এবং মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি উপজেলা কমপ্লেক্স থেকে শুরু হয়ে লারমা স্কোয়ার প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শিশু সমাবেশে গিয়ে মিলিত হয়।

শিশু সমাবেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মো. শহিদুল ইসলাম’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমান। পরে চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।




বোয়ালখালী দশবল বৌদ্ধ রাজ বিহারের শতবর্ষপূর্তিতে প্রাক্তন ছাত্রদের সংবর্ধণা

IMG_20170317_170001
দীঘিনালা প্রতিনিধি :
দীঘিনালার বোয়ালখালী দশবল বৌদ্ধ রাজ বিহারের শতবর্ষপূর্তি ও পার্বত্য চট্টল বৌদ্ধ অনাথ আশ্রমের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে তিনদিন ব্যাপী বৌদ্ধ মেলা শেষ হয়েছে।

শুক্রবার মেলার সমাপনী দিনে কৃতী ছাত্রদের সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা।

খাগড়াছড়ির কমলছড়ি পার্বত্য বৌদ্ধ মিশন এর প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক শ্রীমৎ সুমনালংকার মহাস্থবীর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুশফিকুর রহমান, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য শতরুপা চাকমা, এ্যাডভোকেট আশুতোষ চাকমা, দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা, দীঘিনালা উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. জওহর লাল চাকমা, বাঘাইছড়ির শিজক কলেজের প্রভাষক লালন কান্তি চাকমা, সাবেক প্রকৌশলী রমেশ বিকাশ চাকমা, কবাখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিশ্ব কল্যাণ চাকমা, দীঘিনালা মডেল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক রঞ্জন কুমার চাকমা।

অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টল বৌদ্ধ অনাথ আশ্রমের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে আয়োজিত পূনর্মিলনীতে প্রাক্তন ১শ ৫১ ছাত্রছাত্রীদের সংবর্ধণা প্রদান করা হয়।

এর আগে বিহার প্রাঙ্গনে বুদ্ধপূজা, সিবলী পূজা ও পঞ্চশীল গ্রহণসহ হাজার প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও ফানুস উড়ানো হয়।




দীঘিনালার কবাখালী বাজার কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

দীঘিনালা উপজেলার কবাখালী বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত চলে এ ভোট গ্রহণ। নির্বাচনে সভাপতি পদে মো. আবদুল বারেক এবং সাধারণ সম্পাদক পদে মো. নুর হোসেন নির্বাচিত হয়েছে।

নির্বাচন পরিচালনা কমিটি সূত্রে  জানা যায়, সভাপতি পদে চেয়ার প্রতীক নিয়ে মো. আবদুর রউফ ৪০ভোট পেয়েছেন। অন্যদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী  মো. আবদুল বারেক (ছাতা) ১শত ৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। সহসভাপতি পদে মো. নুরুন্নবী মজুমদার দেয়াল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে ৬৩ ভোট পেয়েছেন অন্যদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী  মো. সিরাজুল ইসলাম হরিণ প্রতীক নিয়ে ১শত ৫১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
সাধারণ সম্পাদক পদে মো. জসিম মজুমদার প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে ৮৩ ভোট পেয়েছেন অন্যদিকে কলসি প্রতীক নিয়ে মো. নুর হোসেন ১শত ৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

এর আগে গত ০২ মার্চ মনোনয়নপত্র ক্রয়ের শেষ তারিখে একক প্রার্থী হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হয়েছেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে মো. আল আমিন, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মো. আবদুর রহিম, কোষাদক্ষ পদে মো. বাচ্চু মিয়া, দফতর সম্পাদক মো. জাকির হোসেন, প্রচার সম্পাদক মো. আবদুল আলিম,  সদস্য পদে মো. কাজল মিয়া, মো. আবদুস সাত্তার এবং আতিকুর রহমান।

এব্যাপারে কবাখালী বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্বে থাকা ১নং কবাখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. বদিউজ্জামান জানান, নির্বাচন খুব শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে মোট  ২২৫ ভোটারের মধ্যে ২১৬ জন ভোটার তাদের ভোট প্রদান করেছেন।

এব্যাপারে কবাখালী বাজার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো. আবু হানিফ জানান, একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন উপহার দিতে পেরে সকলের নিকট কৃতজ্ঞ। খুব শীঘ্রই তাদের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হবে।




দীঘিনালায় উৎসব মুখর পরিবেশে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী বৌদ্ধমেলা

Dighinala picture 15-03-2017 copy

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় উৎসব মুখর পরিবেশে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ মেলা। বোয়ালখালী দশবল বৌদ্ধ রাজ বিহারের শতবর্ষপূর্তি ও পার্বত্য চট্টল বৌদ্ধ অনাথ আশ্রমের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে এ মেলার আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে বুধবার সকাল ৮ টায় উপজেলার লারমা স্কোয়ার থেকে বের করা হয় বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা। খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা মঙ্গল শোভায় শান্তির পায়রা উড়িয়ে শতবর্ষপূর্তি ও সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী কর্মসূচির  উদ্বোধন করেন। শোভাযাত্রায় বৌদ্ধ ধর্মালম্বী নারী পুরুষ শিশু কিশোরসহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ গ্রহণ করে।

শোভাযাত্রা শেষে দেশ ও জাতির শান্তি কামনায় বিশেষ প্রার্থনাসহ রাজ বিহার মাঠে অনুষ্ঠিত হয় ধর্মীয় সভা। কাচালং শিশু সদনের পরিচালক তিলোকানন্দ মহাস্থবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯১৬ খ্রি: তৎকালীন রাজা ভূবন মোহন রায় ভগবান গৌতম বুদ্ধের মানবতা বাণী সমূহ প্রচারের মাধ্যমে অহিংস সমাজ ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ঐতিহ্যবাহী বোয়ালখালী দশবল বৌদ্ধ রাজ বিহার। আজকের এ আয়োজনে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের উপস্থিতি প্রমান করে যে লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য নিয়ে রাজা ভূবন মোহন রায় এ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছিলেন তার সে লক্ষ্য উদ্দেশ্য বাস্তবে প্রতি ফলন ঘটেছে।

আমাদের সবাইকে মনে রাখতে হবে আমাদের এ দেশে ধর্ম যার যার উৎসব সবার। তিনি বলেন, সব ধর্মেই শান্তি সম্প্রীতি এবং অহিংসার কথা বলা হয়েছে। তাই আমরা প্রত্যেকে যদি স্ব স্ব ধর্মীয় নির্দেশনা পালন করি তাহলে সমাজে হিংসা হানাহানি সংঘাত সন্ত্রাস কিছুই থাকবে না। পরিশেষে তিনি পারষ্পরিক ভ্রাতৃত্ববোধ ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির  ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস বজায় রেখে স্বাধীনতার চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও জাতির সামগ্রীক স্বার্থে কাজ করার জন্য উপস্থিত সকলের প্রতি আহ্বান জানান। এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মো. শহীদুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য আশুতোষ চাকমা, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী মো. কাশেম, দীঘিনালা ইউপি চেয়ারম্যান চন্দ্র রনজন চাকমা ও রাজ বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি খোকন বিকাশ চাকমা বক্তব্য রাখেন।

দিনব্যাপী বিহার প্রাঙ্গনে বুদ্ধপূজা, সিবলী পূজা ও পঞ্চশীল গ্রহণসহ নানা প্রকার ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে সন্ধ্যায় হাজার প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও ফানুস উড়ানো হয়। এদিকে প্রথম দিনেই জমে উঠেছে ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ মেলা। মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে দেখা যায় নানা শ্রেণী পেশার দর্শনার্থীর ভীর। মেলায় আসা বাঘাইছড়ি গ্রামের সীমা চাকমা, পুষ্পিকা চাকমা ও মধ্য বোয়ালখালীর লোচন দেওয়ান এবং মিলনপুরের ত্রিদিপ দেওয়ান জানান, অনেক বছর পর বৌদ্ধ মেলায় আসতে পেরে খুব ভাল লাগছে। পার্বত্য শান্তিচক্তির পর এবারই প্রথম উৎসব মুখর পরিবেশে বৌদ্ধ মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলেও জানান তারা। এদিকে মেলায় আগত দর্শনার্থীদের বিনোদনের জন্য রাখা হয়েছে মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও যাত্রাপালার ব্যবস্থা।




দীঘিনালার দশবল রাজ বিহারের শতবর্ষ পূর্তি এবং অনাথ আশ্রমের সুবর্ণ জয়ন্তীর তিন দিনের বর্ণাঢ্য কর্মসূচি শুরু

SONY DSC

নিজস্ব প্রতিবেদক,খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ির দীঘিনালার দশবল রাজ বিহারের শতবর্ষ পূর্তি এবং পার্বত্য চট্টল অনাথ আশ্রমের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে তিন দিনের বর্ণাঢ্য কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

এ উপলক্ষে বুধবার সকালে দীঘিনালা উপজেলা সদরের এমএন লারমা স্কোয়ার থেকে সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার নেতৃত্বে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী সহস্রাধিক নারী-পুরুষের অংশগ্রহণে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে মাইনী ভিক্ষু সংঘের সংঘনায়ক ভদন্ত ধর্মবংশ মহাথেরো’র নেতৃত্বে শোভাযাত্রাটি কয়েক কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে বিহার অঙ্গনে শেষ হয়।

বিহার অঙ্গনে বুদ্ধ গয়া থেকে এনে রোপিত ৫০ বছর বয়সী বোধি বৃক্ষের পূজা শেষে দেশের খ্যাতিমান বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরু ড. জ্ঞানশ্রী ভিক্ষু তিন দিনব্যাপী বুদ্ধ মেলা ও বূহ্যচক্রের উদ্বোধন করেন।

এসময় দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নবকমল চাকমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ শহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আশুতোষ চাকমা, জেলা পরিষদ সদস্য শতরুপা চাকমা, দীঘিনালার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান এবং প্রেসক্লাব সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম উপস্থিত ছিলেন।




খুব শীঘ্রই ২১টি পরিবারকে পূর্ণবাসন করা হবে: বিজিবি সেক্টর কমান্ডার

  unnamed (2) copy

দীঘিনালা প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি বিজিবি সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মতিউর রহমান বলেছেন, খুব শিঘ্রই ২১টি পরিবার পূণর্বাসনের একটি সুখবর দেয়া যাবে। আমরাও চাই তারা পূণর্বাসিত হোক। সবাই ইতিবাচক ভূমিকা রাখলে সমস্যা সমাধান হবেই। সমস্যার সমাধান হলে মামলা ও রিট সবই প্রত্যাহার হবে।

সোমবার দীঘিনালার উপজেলার বাবুছড়া ৫১বিজিবি’র দরবার হলে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

৫১বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল ইকবাল হোসেনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা, থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা (এসআই) হিমেল চাকমা, দীঘিনালা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান চন্দ্র রঞ্জন চাকমা, বাবুছড়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান সুগতপ্রিয় চাকমা ও প্রেসক্লাব সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম রাজু প্রমুখ। মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন হেডম্যান (মৌজাপ্রধান), কার্বারী (গ্রামপ্রধান) উপস্থিত ছিলেন।

জনপ্রতিনিধিরা বক্তব্যে বলেন, মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে ২১পরিবারকে পূর্ণবাসন করা প্রয়োজন। বিজিবি ব্যাটালিয়ন স্থাপনের কারণে ২১টি পরিবার গত দুই বছর মানবেতর জীবনযাপন করছে। এছাড়াও বিজিবি কর্তৃক দায়েরকৃত মামলাও প্রত্যাহারের অনরোধ জানানা হয়।