চকরিয়ায় মৎস্য প্রকল্পে অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তদের হামলা-লুটপাট, কর্মচারীকে পিটিয়ে জখম

 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নে একটি মৎস্য প্রকল্পে দিনদুপুরে অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে ব্যাপক লুটপাট করেছে। এসময় বাধা দিতে গেলে মৎস্য প্রকল্পের এক কর্মচারীকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। ঘটনার সময় মাছ, জালসহ মালামাল লুট ও বিপুল পরিমাণ মাছের পোনা ছেঁড়ে দেয়ায় প্রায় আড়াই লাখ টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে মৎস্য প্রকল্পটির ইজারাদার পক্ষের।

বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে ইউনিয়নের মেধাকচ্ছপিয়াস্থ আলীম উদ্দিন ওয়াকফ এসেস্টের কালাইয়াঘোনা ও ভরাখাল নামক স্থানে  এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় মৎস্য প্রকল্পের ইজারাদার খুটাখালী ইউনিয়নের হেতালিয়াপাড়া গ্রামের মৃত নুর হোসেনের ছেলে জিয়াউদ্দিন কাজল বাদি হয়ে  বৃহস্পতিবার বিকালে চকরিয়া থানায় চারজনের নাম উল্লেখ্য করে ১২জনকে আসামি করে একটি এজাহার দায়ের করেছে। অভিযুক্তরা হলো, একই ইউনিয়নের খাসঘোনা এলাকার তজিম উল্লাহ প্রকাশ তজু উল্লাহ’র ছেলে মনির আহমদ, নুর আহমদ, মোক্তার আহমদ ও ছৈয়দ উল্লাহ’র ছেলে মৌলভী রফিক।

মৎস্য প্রকল্পের ইজারাদার জিয়াউদ্দিন কাজল থানায় দায়ের করা এজাহারে জানান, বর্ণিত ঘটনাস্থলের ১৫ একর আয়তনের একটি মৎস্য প্রকল্প প্রায় ৮বছর যাবত মুল মালিক বাঁশখালীর আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক এমপি প্রয়াত সুলতানুল কবির চৌধুরীর পরিবার থেকে ইজারা নিয়ে তিনি মৎস্য চাষ করছেন। একইভাবে চলতি ২০১৭ সালে তিনি বিপুল টাকা পুজি বিনিয়োগ করে ইতোমধ্যে মৎস্য প্রকল্পে মাছের পোনা অবমুক্ত করে চাষ শুরু করেছেন।

ইজারাদার জিয়াউদ্দিন কাজল অভিযোগ করেছেন, সম্প্রতি সময়ে মৎস্য প্রকল্পে প্রচুর মাছ উৎপাদন হতে দেখে দুর্লোভের বশবর্তী হয়ে কিছুদিন ধরে অভিযুক্ত আসামিরা তার কাছ থেকে একলাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না দিলে মৎস্য প্রকল্প থেকে তাকে উচ্ছেদের নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখাতে শুরু করে। এ অবস্থায় তিনি টাকা দিতে রাজি না হলে সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্তরা দেশীয় নানা ধরনের অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মৎস্য প্রকল্পে হামলা চালায়। এসময় কর্মচারী সফিউল আলম তাদেরকে বাধা দিতে চেষ্টা করলে তাকে পিটিয়ে জখম করা হয়।

ইজারাদারের দাবি ঘটনার সময় অভিযুক্তরা তার মৎস্য প্রকল্পের খামারঘরে ঢুকে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এসময় মাছ, জাল ও মালামাল লুট করে। পরে মৎস্য প্রকল্পের পাউলবোট খুলে দিলে প্রায় লক্ষাধিক টাকার মাছের পোনা পানিতে ভেসে যায়। এ ঘটনায় তার প্রায় ২লাখ ৬০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে।




চকরিয়া পৌরসভা যুবদলের উদ্যোগে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী পালন

chakaria paura jubadal 19-1-17 copy

চকরিয়া প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল চকরিয়া পৌরসভা শাখার উদ্যোগে স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮১তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় পৌর শহরের চিরিংগা সিটি সেন্টার প্রাঙ্গনে চকরিয়া পৌরসভা যুবদলের সভাপতি মাহমুদুল করিমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম গিয়াস উদ্দিন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন পৌরসভা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক এম জয়নাল আবদীন, পৌর যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি একরামুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আলম, সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম সাইফু, সহসভাপতি জালাল উদ্দিন ছুট্টো, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মুহিবুল্লাহ, পৌরসভার ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি যথাক্রমে মাস্টার মো. ইউনুছ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, জয়নাল আবদীন, জকরিয়া বাপ্পী, মিজানুর রহমান বাদশা, আবদু শুক্কুর, সাইফুল ইসলাম, জমির উদ্দিন মনু, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহিদ, আবু বক্কর, মো. শোয়াইব, ৮নং ওয়ার্ডের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবদীন, পৌর যুবদলের অর্থ সম্পাদক ফারুক রানা, প্রচার সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সহ দপ্তর সম্পাদক মো. ইকবাল, পৌর যুবদল নেতা মো. আরমান, মিজানুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, পৌর শ্রমিকদল নেতা দিদারুল ইসলাম, পৌর ছাত্রদল নেতাদের মধ্যে সিনিয়র সহসভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদুল ইসলাম সুমন, ছাত্রদল নেতা সালাহউদ্দিন, মো. ছাদেক, মামুন, বাদশা, মো. ইউনুছ, মিনহাজ সহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।




চকরিয়ায় যাত্রীবাহী দুই গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে গরু ব্যবসায়ী নিহত, আহত ৫

সড়ক দুর্ঘটনা

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় যাত্রীবাহী ম্যাজিক গাড়ি ও সিএনজি চালিত অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে অটোরিক্সার এক যাত্রী নিহত হয়েছে। এ সময় গুরুতর আহত হয় চালকসহ আরও পাঁচজন যাত্রী। তন্মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে চকরিয়া-বদরখালী মহেশখালী সড়কের চকরিয়ার বাটাখালী রুহুল কাদের মিয়ার টেক নামক স্থানে এ  ঘটে।

নিহত যাত্রীর নাম আবদুল মামুন (৩৫)। তিনি চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার পশ্চিম গোমদণ্ডি গ্রামের নওয়াব আলীর পুত্র। আহতরা হলেন পূব গোমদণ্ডির মৃত আবদুর রশিদের পুত্র জসীম উদ্দিন (৩৫), পশ্চিম গোমদণ্ডি গ্রামের বদিউল আলম (৫৫), পেকুয়ার মগনামার মনুর আলীর ছেলে এমতাজুল হক (৫০), মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালীর মৃত ছাদেক আলীর পুত্র মো. শফি (৫০) ও অটোরিক্সা চালক চকরিয়ার বদরখালী ইউনিয়নের বাজার পাড়ার মৃত কামাল উদ্দিনের পুত্র নুর হোসেন (২২)। জসীম উদ্দিনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

নিহতের স্বজনেরা জানান, সকালে বোয়ালখালী থেকে চকরিয়ার ইলিশিয়া গরুর বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা দেন আবদুল মামুনসহ তিনজন। কিন্তু পথেরমধ্যে দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে একজন নিহত ও অন্য দুইজন আহত হন।

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুল আজম দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও পাঁচ যাত্রী আহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেন। দুর্ঘটনায় পতিত গাড়ি দুটি জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।




চকরিয়ার সাহারবিলে ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্ট ফাইনাল ম্যাচ সম্পন্ন

chakaria uno pic 18-1-17
চকরিয়া প্রতিনিধি :
চকরিয়ার শাহারবিল আনোয়ার মঞ্জিল ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত মো. জিন্নাত আলী (রনি) প্রদত্ত বিজয় দিবস ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্ট’১৬-১৭ ফাইনাল ম্যাচ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গত রাত ৯টায় উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের মৌলভীপাড়াস্থ আনোয়ার মঞ্জিল প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাহেদুল ইসলাম। চট্টগ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. জিন্নাত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন সাহারবিল আনোয়ার মঞ্জিলের চেয়ারম্যান ও বায়তুল আনোয়ার মসিজদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি জিল্লুর রহমান আনোয়ারী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মাতামুহুরী থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মহসিন বাবুল, চকরিয়া পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র শহিদুল ইসলাম ফোরকান, আবু ইব্রাহিম ছুট্টো মেম্বার, সাহারবিল কামিল মাদরাসার অধ্যাপক আ.ফ.ম ইকবাল হাসান।

অনুষ্ঠানের ব্যবস্থাপনায় ছিলেন সাহারবিল আনোয়ার আনোয়ার মঞ্জিল ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক অহিদুল কামাল, উপদেষ্টা আবু তুহিন আনোয়ারী, উপদেষ্টা আবু মুনিফ, যুবনেতা শহিদুল ইসলাম মানিক, খাইরুল বশর, আবু নঈম সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। বিজয় দিবস ব্যাডমিন্টন টূর্ণামেন্ট’১৬-১৭ এর ফাইনাল ম্যাচে সাহারবিল ইউনিয়ন বনাম কাকারা শাহওমারাবাদের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্ধীতায় বিজয়ী শিরোপা অর্জন করে কাকারা ইউনিয়ন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সম্মাননা ক্রেষ্ট তুলে দেন আনোয়ার মঞ্জিল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান আনোয়ারী।




চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

chakaria haspatal 18-1-17
চকরিয়া প্রতিনিধি :
চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ব্যবস্থাপনা কমিটির মাসিক সভা গতকাল ১৮ জানুয়ারি সকাল ১০টায় হাসপাতালের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি চকরিয়া-পেকুয়া আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য জননেতা আলহাজ মোহাম্মদ ইলিয়াছ।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আলহাজ ডা. আবদুস সালামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হাজী বশিরুল আলম, সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম, চকরিয়া পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশিরুল আইয়ুব, চকরিয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবদুল মজিদ, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ছাবের আহমদ, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বিধান কান্তি রুদ্র, এনজিও সমন্বয়কারী মোহাম্মদ নোমান সহ হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিগত সভার সিদ্ধান্ত সমূহ পাঠ ও অনুমোদন করা হয়।

হাসপাতালের প্রধান সভায় উল্লেখ করেন, ডিসেম্বর মাসে জরুরী বিভাগে মোট ২৪৬০জন রোগী, বহি:বিভাগে ৬৫৮৫জন, অন্ত:বিভাগে ১৫৬১জন,টিকা কেন্দ্রে ৮৩৮জন,প্যাথলজি বিভাগে ৭৭৩জন, ৫.১-ফ্রি কফ ও ম্যালেরিয়া পরীক্ষা ৫০৪জন, ইএমওসি বিভাগে ভর্তি ৩৫ জন,৭.১-মোট ডেলিভারী স্বাভাবিক ৩৩, সিজারিয়ান-২জন, ৭.২-অর্জন জীবিত ৩৫জন, কমিউনীটি ক্লিনিক চলমান ৪৩টি’তে ২২৯০৭জন, ২টি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে ৩৮৮৬জন, মাঠ কর্মীদের ইপিআই ৯৫৩২জন, এম্বুল্যান্স ভাড়া ১৮৮৮ কিলোমিটার ১৮৮৮০টাকা, নমূনা পাঠানো হয়েছে ২টি, পুলিশ ক্যাইস ৩টি, বেড অকপেন্সি রেইট ১৬৬%, সিসি’তে স্বাভাবিক ডেলিভারী ৩৭জন সহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। সভার সভাপতি হাজী মো: ইলিয়াছ এমপি হাসপাতালের সেবার মান বৃদ্ধি ও রোগীদের যথাযথ চিকিৎসা নিশ্চিত করতে চিকিৎসকদের প্রতি আহবান জানান।




চকরিয়ায় ভিন্নধারার স্কুল এন্ড কলেজের যাত্রা শুরু

Chakaria biddaly 18-01-2017 copy

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ছিকলঘাটা স্টেশনে হাজি নুরুল কবির চৌধুরী স্কুল এন্ড কলেজ নামের ভিন্নধারার নতুন একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু হয়েছে।

মেধাবী মানব সম্পদ তৈরীতে চ্যালেঞ্জ নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি চালুর উদ্যোগ নিয়েছেন চট্টগ্রাম শহরের মেরন সান স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান ড.লায়ন সানা উল্লাহ। নতুন বছরের শুরুতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদ্যালয়টি নিজস্ব ক্যাম্পাসে পাঠক্রম শুরু করেছে। ইতোমধ্যে বিদ্যালয়টিতে নার্সারী প্লে থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত ২৮৭জন শিক্ষার্থী শিক্ষার আলো গ্রহণ করতে সুযোগ নিয়েছে।

জানা গেছে, চকরিয়া উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ছিকলঘাট স্টেশনে নিজের আড়াই কানি (১শ শতক) জমিতে বিদ্যালয়টি চালু করেছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হাজি নুরুল কবির চৌধুরী।

আধুনিক মানের ও মনোরম পরিবেশে অবস্থিত ক্যাম্পাসের ভেতরে বাইরে রয়েছে শিক্ষার্থীদের জন্য থাকার ছাত্রাবাস, বিনোদন পার্ক, খেলার মাঠ ও নিজস্ব কেন্টিন। শিক্ষার্থীদের পরিধান ড্রেসে রয়েছে আলাদা বৈচিত্রময়। এছাড়া শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের জন্য বিদ্যালয়ের পাশে রয়েছে নামাজের ব্যবস্থা। নারী শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের জন্যও আলাদা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে বিদ্যালয়ে ১৪টি কক্ষে শুরু হয়েছে পাঠদান কার্যক্রম। অতি সহসা সকল শ্রেণীতে সংযুক্ত হচ্ছে ডিজিটাল প্রযুক্তি সমৃদ্ধ পাঠদান কার্যক্রম। এ জন্য ইতোমধ্যে পর্যাপ্ত কম্পিউটারসহ প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হয়েছে।

হাজি নুরুল কবির চৌধুরী বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা হলেও মুল উদোক্তা হলেন তার যুক্তরাজ্য প্রবাসী মেয়ে ফারহানা কবির চৌধুরী মুনমুন। বাবার অনুপ্রেরণায় গতানুগতিক ধারার লেখাপড়ার বদলে ভিন্নধারার শিক্ষাক্রমের মাধ্যমে চকরিয়া ও আশপাশের উপজেলা এবং কক্সবাজার জেলার পিছিয়ে থাকা নতুন প্রজন্মকে মফস্বল এলাকা থেকে এগিয়ে নিতে তিনি বিদ্যালয়টির প্রবর্তন করেছেন।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও মেরন সান স্কুল এন্ড কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল মো. শওকত ওসমান বলেন, চট্টগ্রাম শহরে মেরন সান স্কুল এন্ড কলেজের সুনাম ও সুখ্যাতি রয়েছে। ভাল লেখাপড়ার কারণে আমাদের ক্যাম্পাস গুলোতে হাজার হাজার শিক্ষার্থী অধ্যায়ন করছে।

মুলত আমাদের চেয়ারম্যানের ইচ্ছা থেকে আমরা মফস্বলে একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিই। আমাদের সেই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করতে অনুপ্রেরণা দেখিয়েছেন হাজি নুরুল কবির চৌধুরী ও তার মেয়ে যুক্তরাজ্য প্রবাসী মুনমুন চৌধুরী। তিনি বলেন, বছরের শুরুতে আমরা বিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু করি। ইতোমধ্যে স্কুলে ভর্তি হয়েছে ২৮৭জন শিক্ষার্থী।




চকরিয়ায় বাস টার্মিনালে ৯৮৮পিস ইয়াবাসহ পাচারকারী মহিলা গ্রেফতার

 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

চকরিয়ায় পুলিশের অভিযানে ৯৮৮পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় পাচারের অভিযোগে ফুলমতি বেগম (৩৯) নামের এক মহিলাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে পুলিশের একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই সুকান্ত চৌধুরীর নেতৃত্বে পৌর বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারকৃত মহিলা সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার বৈঠাখালী গ্রামের মৃত মিলন মিয়ার স্ত্রী।

চকরিয়া থানার ওসি মো. জহিরুল ইসলাম খাঁন বলেন, গ্রেফতারকৃত মহিলা দীর্ঘদিন ধরে নানা কৌশলে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামে ইয়াবা পাচার করে আসছেন।

মঙ্গলবার রাতে ইয়াবা পাচারের খবর পেয়ে চকরিয়ার বাস টার্মিনাল এলাকায় ফুলমতির বহন করা ডালের বস্তা থেকে ৯৮৮টি ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।




চকরিয়ায় বাস টার্মিনালে ৯৮৮ পিস্ ইয়াবাসহ মহিলা গ্রেফতার

ইয়াবা উদ্ধার
চকরিয়া প্রতিনিধি
চকরিয়ায় পুলিশের অভিযানে ৯৮৮ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় পাচারের অভিযোগে ফুলমতি বেগম (৩৯) নামের এক মহিলাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে পুলিশের একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  পৌর বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত মহিলা সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার বৈঠাখালী গ্রামের মৃত মিলন মিয়ার স্ত্রী বলে জানা গেছে।

চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. কামরুল আজম বলেন, গ্রেফতারকৃত মহিলা দীর্ঘদিন ধরে নানা কৌশলে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামে ইয়াবা পাচার করে আসছেন। মঙ্গলবার রাতে ইয়াবা পাচারের খবর পেয়ে চকরিয়ার বাস টার্মিনাল এলাকায় ফুলমতির বহন করা ডালের বস্তা থেকে ৯৮৫টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।




চকরিয়ায় বিদ্যালয়ের বেহাত হওয়া জমি উদ্ধারে প্রশাসনের তৎপরতা

chakaria islam nagar biddaly 15-1-17
চকরিয়া প্রতিনিধি:
চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইসলাম নগরে স্থাপিত শহীদ হোছাইন চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের বেহাত হওয়া জায়গা পুনরুদ্ধারের প্রক্রিয়া শুরু করেছে প্রশাসন। গত ১৫ জানুয়ারী রবিবার সকালে চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মাহবুব উল করিম বিদ্যালয় পরিদর্শনে এসে অবৈধ দখলদারদের সাথে কথা বলে তাদের সরে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

এলাকাবাসী জানায়, শিক্ষায় অনগ্রসর পশ্চাদপদ  অবহেলিত এলাকা কৈয়ারবিলের ইসলাম নগর। প্রায় ৪ হাজার লোকের বসবাসের এ গ্রামটিতে ছেলে মেয়েরা রয়েছে দীর্ঘদিন থেকে শিক্ষা বঞ্চিত। এ কথা বিবেচনায় রেখে প্রবীণ শিক্ষানুরাগী শহীদ হোছাইন চৌধুরী ১৯৯৩ সালে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক বরাদ্দ পাওয়া এক একর জায়গায় ২০০৯ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৫ সালে এ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এস এস সি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে শতভাগ ফলাফল অর্জন করে আসছে। বর্তমানে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৪ শত। রয়েছে দক্ষ ও অভিজ্ঞ ১০ জন শিক্ষক। যার ফলে এ বিদ্যালয়ের শিক্ষার সুনাম

ইসলামনগর ছাড়াও কৈয়ারবিল সহ আশেপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় মূল ভবনে ছাত্র ছাত্রী সংকুলন না হওয়ায় একাডেমিক ভবন সম্প্রসারণের প্রয়োজন হয়। কিন্তু এলাকার জনৈক আবু তালেব চৌধুরী সহ তিন ব্যক্তি স্কুলের জন্য বরাদ্দকৃত এক একর জায়গার ভিতর অবৈধ ভাবে ঘর নির্মাণ করে দখলে রাখার কারণে স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের পড়ালেখায় মারাত্বক বিঘ্ন দেখা দেয়। এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ভূমি মন্ত্রনালয় ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেন। ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) বিদ্যালয় এলাকা সরজমিনে পরিদর্শনে আসেন।

এসময় তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান সন্তোষজনক রয়েছে। শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে  এবং শান্তিপূর্ণভাবে স্কুলের জায়গা ভোগদখল নিশ্চিত করতে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদে আইনি সহযোগিতার আশ্বাস দেন। জমি দখলে থাকা আহমদ উল্লাহ ও মো. ইলিয়াছ ইতিপূর্বে বিদ্যালয়ের স্বার্থে জমি দখল হস্তান্তরের সিদ্ধান্তের কথাও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। পরিদর্শনকালে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও শিক্ষক শিক্ষিকাগন উপস্থিত ছিলেন।




চকরিয়ায় জমি দখলকে কেন্দ্র করে ৬ জনকে কুপিয়ে জখম

chakaria badarkhali 16-1-17
চকরিয়া প্রতিনিধি:
চকরিয়ায় চাষাবাদী জমি জবর দখলে নিতে জমি লাগোয়া বসতবাড়িতে ঢুকে একই পরিবারের ৬ জনকে কুপিয়ে গুরুতর জখমের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের ৩নং ব্লক ৬নং ওয়ার্ড মগনামা পাড়া গ্রামে ঘটেছে এঘটনা। এনিয়ে ১৬ জানুয়ারী থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেছে ভুক্তভোগীরা।

অভিযোগে জানায়, বদরখালী মগনামা পাড়া গ্রামের হাবিবুল্লাহ’র পুত্র নুর মোহাম্মদ গং বসতবাড়ি সংলগ্ন সাড়ে ৩ কানি জমি শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে থেকে ১৯৯৪সাল থেকে চাষাবাদ করে আসছেন। কিন্তু একই এলাকার নুরুল ইসলামের পুত্র টিপু গং তাদের কাছ মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে। সর্বশেষ গত ১৫ জানুয়ারী সন্ধ্যা ৭টার দিকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে জমি জবর দখলে হামলা চালায়। তাদের বাধা দিতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছে জমি মালিক হাবিবুল্লাহর পুত্র নুর মোহাম্মদ (৩৫), তার বোন আয়েশা বেগম (৩০), বড় ভাবি হাসিনা বেগম (৩৫), প্রতিবন্ধী ছোট বোন সাবিনা ইয়াসমিন (২৫), স্ত্রী কুহিনুর আক্তার (২৬), মা নুর খাতুন (৭০)।

আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহত আয়েশা বেগমকে আশংখাজনক অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। হামলাকালে এক পর্যায়ে জমি লাগোয়া তাদের বসতবাড়িতে ঢুকে অস্ত্রের মুখে লুট করে নিয়ে যায় আলমারীতে রক্ষিত ব্যবসায়ীক নগদ ৫০ হাজার টাকা, ৬০ হাজার টাকা মূল্যের দেড়ভরি স্বর্ণালংকার এবং বসতবাড়ি ভাংচুরে ৫০ হাজার টাকা সহ ২ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে।

এনিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের নুর মোহাম্মদ বাদী থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেন। এতে আসামী করা হয়েছে নুরুল ইসলামের পুত্র টিপু, মৃত মনজুর আলম মাঝির পুত্র শাকিল ও খোকন, ছাবের আহমদের পুত্র রিদুয়ান, মৃত কালা মিয়ার পুত্র আবুল কাছিম ও মৃত মনজুর মাঝির পুত্র মিনহাজ সহ অজ্ঞাত ৫/৬জনকে। ক্ষতিগ্রস্তরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।