আজও কালের স্বাক্ষী ঘূর্ণিঝড়ে জীবনরক্ষাকারী সেই ভবনটি

 

????????????????????????????????????

কক্সবাজার প্রতিনিধি :
২৬ বছর আগে ১৯৯১ সালের এই দিনে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে লন্ডভন্ড হয়েছিল কক্সবাজারের দ্বীপ এলাকা কুতুবদিয়া। রাতের আধারে পাহাড়হীন এই দ্বীপের উপর দিয়ে প্রবল শ্রোতে বয়ে গিয়েছিল বঙ্গোপসাগরের উত্তাল পানি। পুরো কুতুবদিয়া তলিয়ে যায় পানির নীচে। কুতুবদিয়া উপজেলার ৬ ইউনিয়নের ২৩ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা যায়। মরে পানিতে ভেসে যায় প্রায় শতভাগ গৃহপালিত পশু। গৃহহারা হয়েছে প্রায় সবাই।

গভীর রাতে চলা এই ঘুর্ণিঝড়ের তান্ডবে কেউ কাউকে বাচাঁতে পারেনি। বাচঁতে পারেনি নিজেও। পানি ধাক্কায় কখন হাত থেকে ছুটে গেছে ছোট্ট শিশুটি তা বুঝতে পারেনি মা-বাবা। স্বামী হারিয়েছে স্ত্রীকে। স্ত্রী হারিয়েছে স্বামীকে। বাবা হারিয়েছে পুত্রকে আর পুত্র হারিয়েছে বাবাকে। এমনও হয়েছে একই পরিবারের একজনও বেচে নেই। চারদিকে লাশ আর লাশ। মৃত গৃহপালিত পশু আর মানুষের লাশ হয়ে গেছে একাকার। এতলাশের মাঝে যেন সনাক্ত করতে পারছিলনা স্বজনের লাশ। পানির নিচে নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিল ভিটে বাড়ি।

এই ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়ে বেচে যাওয়া মানুষদের বাচার একমাত্র মাধ্যম ছিল বাঁশঝাড়, খেজুর গাছ, বড় গাছ আর উঁচু ভবন। যেখানে তারা আশ্রয় নিয়ে কোনভাবে জীবন রক্ষা করতে পেরেছিল। আর এমনই এক ভবন হচ্ছে কুতুবদিয়া উত্তর ধুরুং ইউনিয়ন স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র। যেখানে ঘূর্ণিঝড়ের দিন রাতে যেখানে গাদাগাদি করে আশ্রয় নিয়েছিল অর্ধশত মানুষ। ২৬ বছর পরও এই বিধস্থ আর পরিত্যাক্ত ভবনটি আজও স্মৃতি হিসেবে রেখে দিয়েছে কুতুবদিয়া বাসী। তারা এই ভবনটি ধ্বংস করতে রাজি নন কারন এই ভবনই ছিল জীবন বাচানোর একমাত্র মাধ্যম। এই ভবনের ক্ষত চিহ্ন দেখে বুঝা যায় ওই দিন এটির উপর কি দখল গিয়েছিল।

ওই ভবনের ছাদে আশ্রয় নিযে বেচে যাওয়ার মধ্যে একজন হলেন, ওই এলাকার মৃত আবুল হোছাইনের ছেলে ছৈয়দুল আলম (৪১)। তখন তার বয়স ছিল ১৪ বছর। ভবনের ছাদে তার পরিবারের সব সদস্য আশ্রয় নিয়েছিল আর তারা সকলে বেচে ছিল। ওই ছাদে আশ্রয় নিয়ে তাদের মত জীবন রক্ষা পেয়েছিল আবু শামা মাঝি ও গোলাম রশিদ মাঝির পরিবারসহ আরো অনেকের।

স্মৃতিচারন করতে গিয়ে তিনি বলেন, সেই ভয়ংকর স্মৃতি আজও ভুলতে পারছেন না। তার চোখের সামনেই চিৎকার করতে করতে ভেসে যাচ্ছিল ছোট শিশু, নারী-পুরুষ। বাবা-মা বলে ডাক দিচ্ছিল ভেসে যাওয়া মানুষগুলো। কিন্তু তাদের কিছু করার ছিল না।

ওই সময় জীবন রক্ষাই ছিল সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। কারন ওই ছাদের কয়েক ইঞ্চি নীচেই প্রবল শ্রোতে বয়ে যাচ্ছে পানি। যার সাথে ভেসে যাচ্ছিল পশু আর মানুষ।

এই ছাদে আশ্রয় নিয়ে জীবন বেচে যাওয়া আরো একজন জানান, তারা সকাল বেলায়ও ছাদ থেকে নামতে পারেনি। কারন তখনও পানি কমেনি। চারদিকে দেখা যাচ্ছিল শুধু পানি আর পানি। সবকিছু তলিয়ে গেছে পানির নীচে। দূরে দেখা যাচ্ছিল গাছের উপরও লাশ ভেসে আসে আবার লাশের পাশেই গাছ ধরে আশ্রয় নিয়েছে মানুষ। বেশিরভাগ লাশই ছিল বিবস্ত্র। পানি একটু কমতে থাকলে দেখা যায়। বেচে যাওয়া লোকজন স্বজনের লাশ খুঁজছিল। এই চিত্র ছিল খুবই ভয়ংকর। যা বর্ননা দেওয়া মত নয়।

উত্তর ধুরুং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহরিয়ার চৌধুরী জানান, ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ের ফলে কুতুবদিয়ার অর্থনৈতিক অবস্থা থেকে শুরু করে সবকিছু শেষ হয়ে গিয়েছিল। সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হল সেই থেকে অরক্ষিত হয়ে পড়েছে কুতুবদিয়া। স্থায়ী ও টেকসই বেড়িবাঁধ না থাকায় কুতুবদিয়ার অনেক এলাকায় জোয়ারের পানি ডুকছে আর বের হচ্ছে। এই অবস্থায় স্থায়ী কোন বেড়িবাঁধ যদি না হয় তাহলে ১৯৯১ সালেরও কম শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হবে। যা দেখা গেছে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু’র সময়। বর্তমানে যেসব স্থানে বেড়িবাধের কাজ চলছে এসব লোকদেখানো ছাড়া কিছুই না। তাই আসন্ন ভয়ংকর বিপদ থেকে রক্ষা  আর কুতুবদিয়াবাসী যেন আরেকবার এই ধরনের ভয়ংকর বিপদে না পড়ে তার জন্য স্থায়ী বেড়িবাধ প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালের এদিনে বাংলাদেশের ইতিহাসে ভয়াবহ প্রাকৃতিক ঘূর্ণিঝড় দক্ষিন-পূর্ব উপকূলে আঘাত হেনেছিলো। সেই ভয়াল রাতে চট্টগ্রামের কক্সবাজার-মহেশখালী, কুতুবদিয়া এবং সন্দ্বীপসহ বিভিন্ন অঞ্চলে প্রায় ২৫০ কিঃ মিঃ ঘন্টা বেগে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানে। এই ঘূর্ণিঝড়ের ফলে প্রায় ২০ ফুট উচ্চতায় জলোচ্ছ্বাস উপকূলীয় এলাকা প্লাবিত করে এবং এর ফলে প্রায় ১ লাখ ৩৮ হাজার লোক প্রাণ হারায় এবং এক কোটি মানুষ তাদের সর্বস্ব হারায়।




কুতুবদিয়ায় খালের পানিতে পড়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু

কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় খালের পানিতে পড়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার লেমশীখালী ইউনিয়নের লবণ মাঠের খালের খাদ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, লেমশীখালী উত্তর মলমচর গ্রামের রহিম দাঁদ’র পুত্র বাদশা (৪০) বুধবার দুপুরের পর স্থানীয় লবণ মাঠ সংলগ্ন খালে মাছ ধরতে যায়। তবে রাত পর্যন্ত সে বাড়ি না ফেরায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিতে শুরু করে পরিবারের লোকজন।

বৃহস্পতিবার ভোরে পশ্চিম মলমচর লবণ মাঠে ব্যবহ্নত পানি সেচের খালে (গর) তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। সে দীর্ঘ দিন ধরে মৃগী রোগে ভুগছিল বলেও স্থানীয়রা জানায়।

স্থানীয় ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার শফিউল আলম বলেন, খালের কিনারে পাওয়া মৃত বাদশার আগে থেকে মৃগী রোগ ছিল। মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে তলীয়ে তার মৃত্যু হয়েছে দাবি করে মৃতের পরিবার লাশ দাফন করেছে বলেও তিনি জানান। লেমশীখালী ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোছাইন বিষয়টি শোনেননি বলে জানিয়েছেন।




কুতুবদিয়ায় পুকুরে ডুবে আরও এক শিশুর মৃত্যু

কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় পুকুরে ডুবে আরও এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার উপজেলার কৈয়ারবিল মাঝের পাড়ায় পানি ডুবির ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কৈয়ারবিল মাঝের পাড়া গ্রামের নুর মোহাম্মদ’র দেড় বছরের শিশু পুত্র তাসকিন আহমেদ সবার অগোচরে বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে যায়।

পরে খোঁজাখুঁজি করে ওই পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটি মৃত বলে জানান।




কুতুবদিয়ায় পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় পুকুরে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার উপজেলার আলী আকবর ডেইল সন্দীপি পাড়ায় পানি ডুবির ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে সন্দীপি  পাড়ার জসীম উদ্দিনের সাড়ে ৩ বছরের শিশু কন্যা আবিদা তন্বী খেলা করার সময় বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে যায়। খোঁজাখুঁজি করে ওই পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটি মৃত বলে জানান।




কুতুবদিয়ায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সালেহ আহমদ চৌধুরীর দাফন সম্পন্ন

Saleh Ahmed Chowdhury copy

কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক কুতুবদিয়া উপজেলা আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা  সভাপতি জেলা আ’লীগের সাবেক সহ-সভাপতি প্রবীন রাজনীতিবিদ আলহাজ সালেহ আহমদ চৌধুরীর জানাজা শুক্রবার (২১ এপ্রিল) বিকাল ৩টায় বড়ঘোপ ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় জানাজা পূর্ব সমাবেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, উপজেলা চেয়ারম্যান এটিএম নুরুল বশর চৌধুরী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বড়ঘোপ ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আওরঙ্গজেব মাতবর, সাধারণ সম্পাদক ও  আলী আকবর ডেইল ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নুরুচছাফা প্রমূখ।

এ ছাড়া জানাজায় স্থানীয় আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, শুভাকাঙ্খীগণ উপস্থিত ছিলেন। জানাজা শেষে মনোহরখালী গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় মুক্তিযোদ্ধা সালেহ আহমদ চৌধুরী চট্টগ্রাম হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।




কুতুবদিয়ায় বিষপানে কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যার চেষ্টা

কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে এক কলেজ ছাত্র। শুক্রবার উপজেলার দক্ষিণ ধূরুং আলী ফকির ডেইল গ্রামে বিষপানের ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আলী ফকির ডেইল গ্রামের আশরফ আলীর কলেজ পড়–য়া পুত্র দিদার (১৯) পারিবারিক কলহের জেরে বিষপান করে। টের পেয়ে বাড়ির লোকজনেরা দিদারকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। এ সময় জরুরী বিভাগে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হয়।

 অতিরিক্ত বিষপান করায় তাকে রেফার করা হয় বলেও হাসপাতাল সূত্র জানায়। দিদার চট্টগ্রামে একটি কলেজে পড়া-শোনা করে বলে স্থানীয় ইউপি সদস্য মহিউদ্দীন জানান।




 শনিবার কুতুবদিয়া রোড কমিটির নির্বাচন

 কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

জেলা হিউম্যান হলার শ্রমিক ইউনিয়নের অন্তর্ভূক্ত কুতুবদিয়া রোড কমিটির নির্বাচন শনিবার (২২ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত হবে। যানবাহন শ্রমিকদের দ্বি-বার্ষিক কার্যকরী কমিটির নির্বাচনে ১১টি পদের মধ্যে ৬টি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হন ৬ প্রার্থী। বাকি ৫টি পদে নির্বাচন হচ্ছে শনিবার।

সভাপতি পদে ৪ প্রার্থী  মো. নুরুল হুদা (হরিণ), মোহাম্মদ ফারুক (আনারস), আশেক মোহাম্মদ জয় (হারিকেন ) ও  নুর মোহাম্মদ বাদশা (ছাতা)। সহ-সভাপতি পদে  দু’প্রার্থী মিজানুর রহমান (বাস) ও মকবুল আহমদ (উড়োজাহাজ), সাধারণ সম্পাদক পদে দু’প্রার্থী মোহাম্মদ তারেক সিকদার (চাকা) ও মো. শাহাদাত হোসেন  (চেয়ার ), সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দু’প্রার্থী মো. আবু মোছা  (টেলিফোন ) ও কবির হোছাইন সুনু  (মোবাইল ফোন), কোষাধ্যক্ষ পদে দু’প্রার্থী মো. বদিউল আলম ( তালা) ও মো. আশেক (আলমারি)।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে মিজানুর রহমান, প্রচার সম্পাদক পদে আবু বক্কর ছিদ্দিক (কাদের), সদস্য পদে নুরুল আবছার, শরীফ, মুজিব ও মিজান বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হন। ১৮ এপ্রিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার কথা থাকলেও পরে তারিখ পিছিয়ে ২২ এপ্রিল নির্ধারণ করা হয়। নির্বাচনে প্রধান উপদেষ্টা ও সমন্বয়ক মাষ্টার আহমদ উল্লাহ, উপদেষ্টা আনম শহীদ উদ্দীন ছোটন, উপদেষ্টা আসম শাহরিয়ার চৌধুরীসহ ১জন প্রিসাইডিং ও ১জন পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন বলেও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে। উপজেলা গেইটস্থ শ্রমিকদের কার্যালয়ে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত  মোট ১৪৫জন ভোটার তাদের ভোট প্রয়োগ করবেন।




কুতুবদিয়ায় পিলার ধসে শিশুর মৃত্যু

মৃত্যু

কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় মসজিদের বাউন্ডারি দেয়ালের দরজার পিলার ধসে পড়ে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। একই ঘটনায় আহত হয়েছে আরও দু’শিশু।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে উপজেলা সদর বড়ঘোপ আরফ সিকদার পাড়ায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে বড়ঘোপ আরফ সিকদার পাড়াস্থ জামে মসজিদের বাউন্ডারি দেয়ালের পাশে স্থানীয় বেলাল উদ্দিনের মেয়ে জামিয়া আক্তার(৮) সহ আরও ২/৩ টি শিশু খেলা করছিল।

এসময় হঠাৎ দেয়ালের দরজার নড়বড়ে পিলারটি ধসে পড়ে শিশুদের উপর। স্থানীয় বাসিন্দারা দেখে গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জামিয়া আক্তার নামের শিশুটি মৃত বলে জানান। একই গ্রামের  অপর দু’শিশু বদিউল আলমের পুত্র হাবিবুল হাসান (৫) ও গুনুছ’র মেয়ে তন্বী (১১) কে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয় বলেও হাসপাতাল সূত্র জানায়।

এ দিকে দেয়ালের পিলার ধসে পড়ে হতাহতের ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবু হাসনাত মো. শহিদুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া বলেন, মসজিদের দেয়ালের পিলার ধসে পড়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহত শিশুর পিতা-মাতা ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেছেন। দেয়ালের পাশে খেলা করতে গিয়ে নিছক দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ায় নিহত শিশুর মা-বাবার অনুরোধে লাশ তাদেরকে বুঝিয়ে দেন বলেও তিনি জানান।




কুতুবদিয়ায় আ’লীগ নেতাকে জেলহাজতে প্রেরণ

জেল

কুতুবদিয়া, প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় আ’লীগ নেতা ইউপি সদস্য আব্দুল মোতালেব আদালতে জামিন নিতে এলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

বুধবার একটি লুটপাটের মামলায় তিনি কুতুবদিয়া জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন।

আদালত সূত্র জানায়, আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আ’লীগের সেক্রেটারী আব্দুল মেতালেব উপজেলা আ’লীগের সেক্রেটারী মুক্তিযোদ্ধা নুরুচ্ছাফার জামাতা আ’লীগ নেতা নজরুল ইসলামকে মারধরের ঘটনার জেরে মামলা হয়।

বুধবার আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আলমগীর কবীর’র জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন।




কুতুবদিয়ায় ফের পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

পানিতে ডুবে
কুতুবদিয়া প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় ফের পুকুরে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (১৫ এপ্রির্ল) উপজেলার লেমশীখালী কবীর পাড়ায় পুকুরের পানিতে ডুবে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, শনিবার বিকাল আড়াইটার দিকে কবীর পাড়ার নুর মোহাম্মদ এর শিশু পুত্র মো. এহসান (৪) বাড়ির পাশে খেলা করতে গিয়ে পুকুরে ডুবে যায়।

খোঁজাখুঁজির পর পুকুর থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত বলে জানান।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবারও উপজেলায় ২টি শিশু পানিতে ডুবে মারা যায়।