আলীকদমে প্রতিবন্ধীদের নিয়ে র‌্যালি অনুষ্ঠিত

alikadam-disabile-day-news-pc-21-12-2016-copy
আলীকদম প্রতিনিধি :
‘টেকসই ভবিষ্যৎ গড়ি, ১৭টি লক্ষ্য অর্জন করি’ প্রতিপাদ্য শ্লোগানে বান্দরবানের আলীকদমে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধীদের নিয়ে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয় ও কারিতাস এসডিডিবি প্রকল্পের উদ্যোগে বুধবার ২১ ডিসেম্বর র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহী নেওয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আ. কালাম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন, থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই লিয়াকত আলী ও বেসরকারী সংস্থা কারিতাসের খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের মাঠ সহায়ক শামসুল হক প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, সরকার প্রতিবন্ধিদের উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে। এদের জীবনমান উন্নয়নে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। নইলে সমাজ পিছিয়ে পড়বে। সভায় আলীকদম উপজেলায় মোট ১ হাজার ৬৬ জন প্রতিবন্ধী আছে বলে তথ্য প্রকাশ করা হয়।




বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৬’র বিরুদ্ধে মানববন্ধন

10-48
পেকুয়া প্রতিনিধি:
কোস্ট ট্রাস্ট নামের এক এনজিও সংস্থা এবার বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৬ বিরোধী মানববন্ধন করেছে পেকুয়ায়। এ এনজিও সংস্থাটি দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে পেকুয়ায় তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। মাইক্রোক্রেডিটসহ কয়েকটি প্রকল্প তারা বাস্তবায়ন করে।

১০ ডিসেম্বর সকালে লোকদেখানো গুটিকয়েকজন পুরুষ ও মহিলা নিয়ে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৬ খসড়া বাল্য বিবাহের ঝুঁকি বাড়াবে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় সংশোধন করুন শীর্ষক প্রতিপাদ্য নিয়ে মানববন্ধন করেছে সংস্থাটি।

জানা গেছে, শাস্তি বৃদ্ধির প্রস্তাব করে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৪ এর খসড়া নীতিগতভাবে অনুমোদন করছে মন্ত্রিসভা। এতে বাল্য বিবাহের অপরাধে কারাদন্ড জরিমানা ও উভয় দন্ডই বাড়ানো হয়েছে। বাল্য বিবাহের সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি পুরুষের ক্ষেত্রে ২ বছর কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। নারীদের জন্য কারাদন্ড প্রযোজ্য হবে না তবে জরিমানার বিধান অভিন্ন রয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে ছেলের বিয়ের বয়স ২১ ও মেয়ের জন্য ১৮ বছর নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে মন্ত্রীসভা দেশের আর্থ সামাজিক অবস্থা বিবেচনায় বিয়ের বয়সসীমা কমানোর পরামর্শ দিয়েছে এবং পিতা মাতার সুপারিশে নির্ধারিত বয়সের কম হলেও বিয়ের বিধান রাখা হয়েছে।

বাল্য বিবাহ রোধে সরকার সুশীল সমাজ, এনজিও প্রতিনিধি ও সরকারী কর্মকর্তাদের নিয়ে জেলা উপজেলা ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিটি করবে বলেও প্রস্তাবিত কমিটিতে উল্লেখ রয়েছে।

এ ব্যাপারে পেকুয়া কোস্ট ট্রাস্ট’র ম্যানেজার জসিম উদ্দিন জানান, কক্সবাজার জেলা সমন্বয়কারী জাহাঙ্গীর ভাইয়ের নির্দেশে আমরা মানববন্ধন করেছি। এ মানববন্ধন সরকার বিরোধী কিনা প্রশ্ন করলে তিনি সরকার বিরোধী বলে স্বীকার করেন।




খাগড়াছড়িতে এডভোকেসি এবং নেটওর্য়াকিং প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

00-copy

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ ও সহিংসতার শিকার নারীদের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করার জন্য এডভোকেসি এবং নেটওর্য়াকিং প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।মঙ্গলবার সকালে খাগড়াছড়ির মিলনপুরে একটি বে-সরকারী ক্লাবে সিএইচটিডিএফ-ইউএনডিপি’র সহযোগিতায় বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা ও স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থা কাবিদাং-এর যৌথ উদ্যোগে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন ইউএনডিপি’র জনগোষ্ঠির ক্ষমতায়ন প্রকল্পের জেলা কর্মকর্তা উশিমং চৌধুরী, বাংলাদেশ মানবাধিকার সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোস্তফা সোহেল, প্রশিক্ষক বিনিট কুমার চক্রবর্তী, বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন  সংস্থার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর ফয়সাল আহম্মেদ, কাবিদাং-এর নির্বাহী পরিচালক লালসা চাকমা ও কাবিদাং-এর প্রজেক্ট সাপোর্ট অফিসার ডরোতি চাকমা প্রমূখ।

প্রশিক্ষণে এডভোকেসি ও পলিসি  এবং সহিংসতার শিকার নারীদের কিভাবে সহযোগিতা করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করা হয়। প্রশিক্ষনে স্থানীয় কার্বারী, হেডম্যান, এনজিও কর্মী, জনপ্রতিনিধিসহ সাংবাদিকরা অংশগ্রহণ করেন।




প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়, তাদের সম্পদে পরিণত করতে হবে

pic-chakaria-adc-05-12-16
চকরিয়া প্রতিনিধি :
চকরিয়ায় বেসরকারী সংস্থা এসএআরপিভি’র আয়োজিত মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় পিআরডিপিডি প্রকল্পের সমাপনী সভায় কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার বলেছেন, চকরিয়ায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা সমাজের মূল স্রোতরাতধারায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছেন। তারা এখন আর অবহেলার পাত্র নয়, তারা এখন আর ঘরের কোণেও বসে থাকেন না, তারা নিজেরা এখন স্ব স্ব স্থানে কাজ করে স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছেন। শুধু নিজেরা স্বাবলম্বী হয়ে আয় করছেন তাই নয়, তারা অন্যদেরও অনুকরণীয় হয়ে উঠেছেন।

তিনি আরো বলেন, এখানে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা এখন নিজেদের দাবী দাওয়ার কথা নিজেরা করে থাকেন, নিজেরা সংগঠন করে অন্যান্য প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নেও কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ব্যাপারে চকরিয়ার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের দৃষ্টিভঙ্গিতেও পরিবর্তন এসেছে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের এ পর্যায়ে উন্নীত করণে ও সমাজের মানুষের দৃষ্টিভঙ্গিতে পরিবর্তন আনতে বেসরকারী সংস্থা এসএআরপিভি’র প্রশাংসার দাবিদার।

৪ ডিসেম্বর এসএআরপিভি’র চকরিয়া পৌরসভার ভরামুহুরীস্থ কার্যালয়ে এ সমাপনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার এসব কথা বলেন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাহেদুল ইসলাম। এসএআরপিভি’র প্রকল্প কর্মকর্তা রাজেশ খান্না শর্মার সঞ্চালনায় অনুষ্টিত এ সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুস ছালাম, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম চৌধুরী, চকরিয়া উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো. এমরান খান, এসএআরপিভি’র পিআরডিপিডি প্রকল্পের সমন্বয়ক ইউনুচ হোসেন মন্টু, বরইতলীর ইউপি চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার, হারবাংয়ের ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম মিরান, সাংবাদিক জাকের উল্লাহ চকোরী, সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, চকরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আবদুল মজিদ, এসএআরপিভি’র আনঞ্চলিক ম্যানেজার কাজী মাকছুদুল আলম মুহিত, এনজিও ব্যক্তিত্ব শহীদুল ইসলাম, ফাঁসিয়াখালীর ফোকাল পার্সন প্রধান শিক্ষক রেজাউল হক, এসএআরপিভি’র ইয়াছমিন সোলতানা, সাজ্জাদ হোসেন, আবদুল মালেক, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জয়নাল আবদীন, আয়াতুন্নাহার, হুরে জন্নাত, রাবেয়া বেগম মুক্তা।

প্রধান অতিথি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে চকরিয়া উপজেলার অন্যান্য এলাকাসহ পুরো জেলায় কাজ করতে এসএআরপিভিকে সহযোগিতা দিবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।




রাঙামাটিতে বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন দিবস উদযাপন

pic-04-12-16-copy

রাঙামাটি প্রতিনিধি:

রাঙামাটি জেলায় বাস্তবায়নকারী সংস্থাসমূহ আশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র, প্রোগ্রেসিভ, উইভ, এসআইডব্লিউপি, হিলেহিলি, পুগবেল ও যোগাযোগ সংস্থার আয়োজনে শুক্রবার রাঙামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন দিবস উদযাপন করা হয়।

আশিকা মানবিক কেন্দ্র এর নির্বাহী পরিচালক বিপ্লব চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে রাঙ্গামাটি নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) মোঃ ফারুক সুফিয়ান উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে স্থানীয় বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা প্রোগ্রেসিভ এর নির্বাহী পরিচালক সুচরিতা চাকমা, উইভ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক  নাইপ্রু মারমা মেরী, পুগবেল সংস্থার  নির্বাহী পরিচালক শাক্তিপদ চাকমা হিলেহিলি সংস্থার ভুবন চাকমা,  এসআইডব্লিউপি-সংস্থার প্রতিনিধি ও যোগাযোগ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক তাদের প্রকল্পের বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম ও সম্ভাবনাময় দিকগুলো উপস্থাপন করেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন আশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র ডিপুটি নির্বাহী পরিচালক  এ্যাড কক্সী তালুকদার ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন এর কার্যক্রম সর্ম্পকে ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং রাঙামাটি পার্বত্য জেলার উন্নয়নে কাজ করার জন্য বিএনএফ’কে ধন্যবাদ প্রদান করেন এবং আগামীতে এ জেলার বসবাসরত মানুষের জীবনমান সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে চলমান ও নতুন নতুন প্রকল্প গ্রহণ করে কার্যক্রম পরিচালনা করার আহ্বান জানান।




চকরিয়ায় সনাক-টিআইবি’র উদ্যোগে সমমনা এনজিওদের সাথে নেটওয়ার্ক সভা

chakaria-pic-tib-23-11

চকরিয়া প্রতিনিধি:

দুর্নীতিবিরোধী সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) চকরিয়ার উদ্যোগে সমমনা বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠনের (এনজিও) প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে নেটওয়ার্ক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল ১১টায় কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার ভরামুহুরীস্থ সনাক-টিআইবি’র কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সনাক সভাপতি আলহাজ্ব ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় টিআইবি-সনাকের বিবেক প্রকল্পের কার্যক্রম তুলে ধরেন এরিয়া ম্যানেজার মোঃ জসিম উদ্দিন। সমমনা এনজিওদের মধ্যে কার্যক্রমে সমন্বয় বাড়ানো, যৌথ উদ্যোগে কার্যক্রম পরিচালনা এবং নেটওয়ার্কের মাধ্যমে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনকে আরও গতিশীল করার উদ্দেশ্যে এ সভার আয়োজন করা হয়। সভায় ইলমা, ক্রেল প্রকল্প, কর্মনীড়, দুপ্রকসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান সনাক-টিআইবি’র সাথে বিভিন্ন কার্যক্রমে যৌথভাবে অংশগ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেন। এ ছাড়াও অংশগ্রহণকারিরা চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর সেবার মান বাড়াতে সনাক-টিআইবিকে আরও সক্রিয় হওয়ার আহ্বান জানান। এছাড়াও হাসপার্তাল কর্তৃপক্ষের সাথে সেবা গ্রহীতাদের মুখোমুখি অনুষ্ঠানের ফলোআপ কর্মসূচি করার জন্য সনাককে অনুরোধ জানানো হয়। সভায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস সকলের অংশগ্রহণে ব্যাপক আয়োজনের মাধ্যমে পালনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সনাক সদস্য মোহাব্বত চৌধুরী, উপজেলা এনজিও সমন্বয়ক ও এএসসি’র প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ নোমান, আইসিডিডিআরবি’র শহীদুল হক, কর্মনীড়ের নির্বাহী পরিচালক শাহানা বেগম, ইলমা’র তরুণ আলো প্রকল্পের প্রজেক্ট ম্যানেজার মোঃ সাহাব উদ্দিন, ব্র্যাকের সিনিয়র উপজেলা ম্যানেজার মোঃ মমতাজ উদ্দিন চৌধুরী, ক্রেল এর আবদুল কাইয়ুম, নিরাপদ সড়ক চাই এর সোহেল মাহমুদ, প্রত্যাশীর ম্যানেজার মোঃ সেলিম উল্লাহ, কোস্ট ট্রাস্ট এর ম্যানেজার মোঃ হানিফ, পিএইচডির আব্দুস ছামাদ, একলাবের আসাদুজ্জামান, বাস্তবের মোঃ জসিম উদ্দিন, কারিতাসের মোঃ মহি উদ্দিন, ব্যুরো বাংলাদেশের মোঃ রহমাতুল্লাহ, মালুমঘাট চাইল্ড স্পনশরসীপ প্রোগ্রামের টিটু মল্লিক, স্বজন সমন্বয়ক এমএমএইচ ইয়াসির আরাফাত চৌধুরী এবং ইয়েস দলনেতা মোঃ মিজানুর রহমান প্রমূখ।




রোয়াংছড়িতে  কারিতাসের উদ্যোগে হতদরিদ্রদের মাঝে গবাদি পশু বিতরণ

rowangchari-pic-22-11

রোয়াংছড়ি প্রতিনিধি:

বান্দরবানে রোয়াংছড়ি উপজেলায় আলেক্ষ্যং ইউনিয়নের বে-সরকারি সংস্থা (এনজিও) কারিতাসের উদ্যোগে উপজেলা সমাজ উন্নয়ন অফিস (আইসিডিপি-সিএইচটি) মিলনায়তনে গবাদি পশু বিতরণ ও ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার গবাদি পশু পালনের তাগিদে হতদারিদ্র পরিবারের মাঝে ছাগল ও শুকর বিতরণ করা হয়। বিতরণ অনুষ্ঠানে উপজেলা সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা যোসেফ প্রীতি কান্তি ত্রিপুরার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রোয়াংছড়ি সদর ইউপির চেয়ারম্যান চহ্লামং মারমা, তারাছা ইউপির চেয়ারম্যান উথোয়াইচিং মারমা, আলেক্ষ্যং ইউপির চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যা, রোয়াংছড়ি কলেজের আইসিটি বিভাগের প্রভাষক উথোয়াইপ্রু মারমা, বান্দরবান জেলা অফিস থেকে জুনিয়র কর্মসূচি কর্মকর্তা (ঋণ) ক্যনুমং মারমা ও প্রাণী সম্পদ বিভাগে সহকারি কর্মকর্তা মো: সৈকত ওসমান চৌধুরী প্রমূখ।

অতিথিরা বক্তব্যে বলেন, কারিতাস একটি জাতীয় উন্নয়ন সংস্থা এ কারিতাসের উদ্যোগে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিচালনা করে থাকেন। হতদারিদ্র শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ ও আনুসাঙ্গিক সহায়তা করেন। ভূমিহীন ও দারিদ্রদেরকে গবাদী পশু পালনে উদ্যোগ নিয়ে সহায়তা প্রদান করছেন। সরকারের পাশাপাশি দারিদ্র দুরিকরণের একটি অংশ এ সংস্থা। দীর্ঘ বছর ধরে পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। অচিরেই আরও দারিদ্র পরিবারে মাঝে পাশের থাকার জন্য আহ্বান জানান বক্তারা।

এ সময় সভায় উপজেলা কারিতাস অফিসের সব কর্মকর্তা কর্মচারিসহ এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।




কাউখালীতে দুঃস্থদের মুখে হাসি ফোটাচ্ছে ইফসা’র সমৃদ্ধি কর্মসূচী

kawkhali-ypsa-news-pci-copy

কাউখালী প্রতিনিধি:

স্বাস্থ্য সেবা, দারিদ্র বিমোচন ও সরকারের দেয়া বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচী সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে কাউখালীতে কাজ করে যাচ্ছে বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ইয়ং পাওয়ার সোস্যাল একশন (ইফসা)। এ উপলক্ষে রবিবার সকাল ১১টায় কলমপতি বোর্ড অফিস চত্ত্বরে এক আলোচনা সভা ও বিশেষ স্বাস্থ্য ক্যাম্পের আয়োজন করে সংস্থাটি। এতে সহায়তা করে কাউখালী উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলার কলমপতি ইউনিয়নের নাইল্যাছড়ি গ্রামের আজিরন বেগম (৫৫), তারাবনিয়ার মংচাবাই মারমা (৪৫)। অসচ্ছল সংসারের হাল ধরতে ভিক্ষাবৃত্তিকেই বেছে নিতে হয়েছিল তাদের। মাথা গোঁজার এতটুকু ঠাইও ছিলনা। সহায়তা তো দুরের কথা অনেক চেষ্টা করেও সরকারী বেসরকারি কোন সংস্থা থেকেই ঋণ পাননি।

অবশেষে সে আক্ষেপ ঘুচিয়েছে স্থানীয় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ইফসা। পেয়েছেন ১ লাখ টাকা অর্থ সহায়তা। এ দিয়ে তারা তৈরী করেছেন মাথা গোঁজার একখানা ঘর সাথে বাচুরসহ দুধের গরু, ঘুচবে সংসারের দৈন্যতা, কিছুটা স্বস্তি এসেছে তাদের জীবনে। আজিরন বেগম প্রাপ্ত টাকা থেকে এক কানি জমিও বন্ধক রেখেছেন।  বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ইফসার সহায়তা পেয়ে তারা এখন আর ভিক্ষা করেন না।

সকাল ১১টায় শুরু হওয়া বিশেষ স্বাস্থ্য ক্যাম্পের সেবা নিতে দূর দুরান্ত থেকে ছুটে আসেন অন্ত দুই শাতাধিক নারী পুরুষ। এতে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। এছাড়াও সংস্থাটির উদ্যোগে উপজেলার কলমপতি ইউনিয়নের ৯ ওয়ার্ডে লক্ষাধিক টাকা খরচ করে একটি করে সমৃদ্ধি কেন্দ্র খোলা হয়। এতে প্রতিদিন একজন শিক্ষক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে দৈনিক ক্লাশের পড়া আদায় করে নিবেন।

এছাড়ও এসব কেন্দ্রে সামাজিক বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করার জন্য উন্মোক্ত রাখা হয়েছে। সমৃদ্ধি কেন্দ্রটি পরিচালনার জন্য সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বারকে সভাপতি করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে দেয়া হয়। প্রতিটি কেন্দ্রের তদারকি করবে ইফসা কাউখালী ব্রাঞ্চ। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি ওয়ার্ডের সম্বৃদ্ধি কেন্দ্র গুলোতে আয়োজন করা হবে বিশেষ স্বাস্থ্য ক্যাম্পের।

কলমপতি ইউপি চেয়ারম্যান ক্যজাই মারমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আফিয়া আখতার, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটি জেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ বেবী রানী ত্রিপুরা, কাউখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ প্রদীপ কুমার নাথ, উপজেলা সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুরভী দাশ। এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা আবু তাহের শাহজাহান, দেলোয়ার লিডার, ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ দেলোয়ার হোসেন, ইফসার কাউখালী ব্রাঞ্চ ম্যানেজার এনামুল হক শান্ত প্রমূখ।




কারিতাস আলোঘর প্রকল্প’র আওতায় রোয়াংছড়িতে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

rowangcharikaritas-pic-15-11

রোয়াংছড়ি প্রতিনিধি:

বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলায় জাতীয় বে-সরকারি সংস্থা কারিতাসের উদ্যোগে (এনজিও)  পরিচালিত প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠান আয়োজন কার হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এর বিতরণে অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: দাউদ হোসেন চৌধুরী সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাউসাং মারমা, আলেক্ষ্যং ইউপি’র চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ তঞ্চঙ্গ্যা, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা মো: কামাল হোসেন, আইসিডিপি-সিএইচটি কারিতাসের প্রোগ্রাম টেকনিক্যাল কর্মকর্তা বেগম রোজি আক্তার, উপজেলা সমাজ উন্নয়ন কর্মকর্তা যোসেফ প্রীতি কান্তি ত্রিপুরা প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন জাতীয় বে-সরকারি সংস্থা হলেও গ্রাম অবকাঠামো উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারির পাশাপাশি বে-সরকারি সংস্থাও কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা, কৃষি, পশুপালন ও পল্লী সঞ্চয় হিসেবে ক্রেডিট ইউনিয়ন গঠন করে দারিদ্র্য দূরীকরণে সহায়ক হিসেবে স্বত:স্ফুর্তভাবে সহায়তা প্রদান করেছে। বর্তমানে রোয়াংছড়ি উপজেলাতে কারিতাসের ১৯টি শিক্ষা কেন্দ্র পরিচালানায় প্রাথমিক বিদ্যালয় পঞ্চম শ্রেণী শিক্ষার্থীসহ প্রতিবন্ধীকে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়। বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের সফরসহ ব্যবস্থা গ্রহনের মধ্যে দিয়ে আলোঘর প্রকল্পের আওতায় কাজ করেছে বলে জানান বক্তারা।

এ সময় টেকনিক্যাল কো-অর্ডিনেটর রাজু বড়ুয়ার সঞ্চালনায় সভায় উপজেলায় এলাকার স্থানীয় জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ বিভিন্ন (এনজিও) প্রতিনিধিরা অংশগ্রহন করেন।




আইডিএফ পানছড়ি শাখায় ঋণ বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন

idf-panchari-news-image-copy

নিজস্ব প্রতিবেদক:

খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলায় ঋণ বিতরণের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছে আইডিএফ।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় পানছড়ি শাখা ব্যবস্থাপক কর্ণজয় ত্রিপুরার সঞ্চালনায় ঋণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পানছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: জাহিদ হোসেন সিদ্দিক। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ৩ নং সদর পানছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মো: নাজির হোসেন, আইডিএফ এর ডেপুটি কো-অর্ডিনেটর মো: আব্দুল আজিজ, জোনাল ম্যানেজার মো: শাহজাহান, এরিয়া ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ ও খাগড়াছড়ি শাখা ব্যবস্থাপক মো: হানিফ মিয়া।

অনুষ্ঠানে আইডিএফ কর্মকর্তারা পানছড়ির পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে  ঋণ ও অন্যান্য সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে এগিয়ে নেয়ার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। প্রশাসনিকভাবেও সহযোগিতা প্রদানের ব্যাপারে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আশ্বাস প্রদান করেন।