বাংলাদেশে পাহাড়ধসে বিপুল প্রাণহানির ঘটনায় বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান এবং কূটনৈতিকবৃন্দের শোকপ্রকাশ

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশের চট্টগ্রামসহ রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে পাহাড় ধসে বিপুলসংখ্যক মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান এবং কূটনৈতিকবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। গভীর শোক প্রকাশ করে যারা বার্তা দিয়েছেন তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত জোয়েল রাইফম্যান, ইইউ রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদুন এবং বৃটিশ হাইকমিশনার এলিসন ব্লেইক।

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রেরিত এক শোকবার্তায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নিহতদের শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।

বার্তায় তিনি আরও বলেন, আপনাদের দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে বন্যা ও পাহাড় ধসে এই প্রাণহানির ঘটনায় আমার আন্তরিক সমবেদনা গ্রহণ করুন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশে ভয়াবহ ভূমিধসে বিপুল সংখ্যক মানুষের প্রাণহানিতে শোক জানানোর পাশাপাশি স্থানীয় পর্যায়ে অনুসন্ধান ও উদ্ধার তৎপরতায় সহযোগিতার প্রস্তাব করেছেন।

এক টুইট বার্তায় মোদি লিখেছেন, ভূমিধসে বাংলাদেশে প্রাণহানিতে আমি শোহাহত। নিহতদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি আমার সমবেদনা রইলো। আহতদের প্রতি আমার প্রার্থনা।

অপর এক টুইটে তিনি লিখেছেন, বাংলাদেশের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে অবস্থান করছে ভারত। প্রয়োজন হলে আমরা স্থানীয় অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযানে সহায়তা দিতে প্রস্তুত।

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত জোয়েল রাইফম্যান রাঙ্গামাটি, বান্দরবান ও চট্টগ্রামে পাহাড়ধসে ব্যাপক প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতির ঘটনায় সরকারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জোয়েল রাইফম্যানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, গত ১৩ জুন চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানে পাহাড়ধসে যে প্রাণহানি ও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর পক্ষ থেকে আমি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও উদ্ধারকারীদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করছি।

আপনাদের এ দুঃখ-দুর্দশায় আমরা গভীরভাবে মর্মাহত। সকল সাহসী উদ্ধারকারীকে আমরা সাধুবাদ জানাই।

বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাইকমিশনার এলিসন ব্লেইক এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদুন পার্বত্য তিন জেলায় পাহাড় ধসে হতাহতের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে শোক বার্তা দিয়েছেন।

ওই শোক বার্তায় ইইউ রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদুন বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করতে ইইউ প্রস্তুত আছে।

অন্যদিকে, বৃটিশ হাইকমিশনার এলিসন ব্লেইক এক টুইট বার্তায় হাহাড় ধসে হতাহতের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে এ ঘটনায় নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।




লংগদুতে অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে মিয়ানমারে বিক্ষোভ

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডুতে জাতিসংঘ অফিসের বাইরে রাঙামাটিতে পাহাড়িদের ঘরবাড়িতে অগ্নি সংযোগের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয়রা। বৌদ্ধ ভিক্ষু ও স্থানীয় আরাকানিরা সহ আরাকান ন্যাশনাল পার্টির (এএনপি) নেতৃত্বে ৩শ’ মানুষ এতে অংশগ্রহণ করে।

বুধবারের এ প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে জাতিসংঘের কাছে পার্বত্য চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী চাকমাদের কথিত ‘সুরক্ষার’ দাবি জানানো হয়। এ খবর দিয়েছে মিয়ানমারের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইরাবতী’।

মংডুর পুলিশ কর্মকর্তা মাজ কিয়াও মিয়া কর্তৃপক্ষ এ বিক্ষোভ মিছিলের অনুমতি দিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন। বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীরা মংডুর উপকণ্ঠে অবস্থিত জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর এর কার্যালয়ে গিয়ে আরাকান থেকে বাংলাদেশে আসা চাকমা জনগোষ্ঠীর কথিত ‘সুরক্ষার’ দাবি জানিয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের হাতে থাকা প্ল্যাকাডে ইংরেজিতে লেখা ছিল, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস! হোয়ার ইজ দ্য ইউএন? হোয়ার এজ দ্য হিউম্যান রাইটস? হোয়াট ইজ ইউএন ডুইং।’

এর অর্থ, আমরা ন্যায়বিচার চাই। কোথায় জাতিসংঘ? কোথায় মানবাধিকার? কী করছে জাতিসংঘ?

 




চীনা ব্যবসায়ীর এক দিনের আয় তিনশো কোটি ডলার

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

চীনের ইন্টারনেট ধনকুবের জ্যাক মা এক দিনেই তার সম্পত্তি বাড়িয়েছেন তিনশো কোটি ডলার। তার মালিকানাধীন কোম্পানি ‘আলিবাবা’র শেয়ারের দাম নিউ ইয়র্কের স্টক এক্সচেঞ্জে বাড়তে থাকায় এক দিনেই তার সম্পদ এতটা বেড়ে গেছে।

বাজার বিশ্লেষকরা যা আশা করেছিলেন, তার চেয়েও অনেক বেশি ভালো ব্যবসা করছে আলিবাবা। ফলে শেয়ার বাজারে এ কোম্পানির শেয়ার এখন বেশ চাঙ্গা। ‘আলিবাবা’কে চীনের ই-বে বলে গণ্য করা হয়। সমস্ত কিছুই বিক্রি হয় তাদের ইন্টারনেট সাইটে।

জ্যাক মা ১৯৯৯ সালে এ কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। এর আগে তিনি ইংরেজি শিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন।
ষাট হাজার ডলার দিয়ে জ্যাক মা তার ব্যবসা শুরু করেন। শুরুর দিকে তিনি তার ব্যবসা পরিচালনা করতেন নিজের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে।

‘আলিবাবা’ এখন চীনের সবচেয়ে বড় ইন্টারনেট কোম্পানিগুলোর একটি। এর বাজার মূল্য এখন চল্লিশ হাজার কোটি ডলার। জ্যাক মা এ মূহুর্তে এশিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি বলে মনে করা হচ্ছে।

সুত্রঃ বিবিসি বাংলা




লংগদু হামলার নিরপেক্ষ ও পক্ষপাতহীন তদন্তের জন্য বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান অ্যামনেস্টির

68674_lead

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

রাঙামাটির লংগদুতে পাহাড়িদের বাড়িঘরে আগুন দেয়ার ঘটনায় নিরপেক্ষ ও পক্ষপাতহীন তদন্তের জন্য বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মানবাধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তদন্ত রিপোর্ট জনসমক্ষে প্রকাশ করারও আহ্বান জানানো হয়েছে সরকারের প্রতি।

৫ জুন নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশিত দু’পৃষ্ঠার এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানায় অ্যামনেস্টি। এতে সরকারের প্রতি বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়েছে।

১. হামলার বিষয়ে পুনঙ্খানুপুঙ্খ, পক্ষপাতহীন ও নিরপেক্ষ তদন্ত করতে হবে এবং তা জনসমক্ষে প্রকাশ করতে হবে।

২. এ ঘটনায় যারা দায়ী তাদের সুষ্ঠ ও স্বচ্ছ বিচারের মাধ্যমে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। তবে তা মৃত্যুদণ্ড এড়িয়ে।

৩, পাবর্ত্য চট্টগ্রামে পাহাড়ি জনগণের বিরুদ্ধে এ হামলায় নিন্দা জানাতে হবে প্রকাশ্যে। এমন ঘটনা যাতে আর না ঘটে সে বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে। এ ছাড়া পাহাড়ি জনগণের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আরো পদক্ষেপ নিতে হবে।

৪. শান্তিপূর্ণ সমাবেশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে। নিশ্চিত করতে হবে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা যাতে অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ না করে। লংগদু হামলার বিরুদ্ধে যারা বিক্ষোভ করেছে তাদের ওপর নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ করেছে বলে অভিযোগ আছে।

এ অভিযোগ তদন্ত করতে হবে এবং দোষীদের বিচার করতে হবে। অ্যামনেস্টি বলেছে, গত শুক্রবার একটি রাজনৈতিক দলের স্থানীয় শাখার একজন সদস্য মারা যান। তার মৃতদেহ নিয়ে বাঙালি সংখ্যাগরিষ্ঠ বিভিন্ন সংগঠন একটি র‌্যালি বের করে। এদিন সকালে লংগদুর তিনটি গ্রামে বসবাসরত পাহাড়িদের বাড়িঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। এতে প্রায় ২০০ বাড়িঘর ও দোকান পুড়ে যায়।




আফগানিস্তানের কূটনৈতিক এলাকায় বিস্ফোরণে নিহত ৮০

67754_afghanistan

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে প্রেসিডেন্টের বাসভবনের কাছে বিদেশি দূতাবাস এলাকায় বড় ধরনের একটি গাড়িবোমা বিস্ফোরণ ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ৮০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও ৩০০জন।

বুধবার সকালের এ বিস্ফোরণের পর রাজধানীর কেন্দ্রস্থলের জানবাক স্কয়ার এলাকাটি থেকে কালো ধোঁয়ার মেঘ উঠতে দেখা যায়। স্থানীয় কর্মকর্তারা বলছেন, আফগান রাজধানীতে আঘাত হানা ‘অন্যতম বড় বিস্ফোরণ’ ছিল এটা। পুলিশ ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা আল জাজিরাকে নিশ্চিত করে বলেছেন, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কমপক্ষে ৮০ জনের প্রাণহানি হয়েছে। আহত হয়েছে তিনশ’র বেশি। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, জার্মান দূতাবাসের প্রবেশে মুখের কাছে এ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।  ওই এলাকায় আরও বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দূতাবাস ও দপ্তরও রয়েছে।

আফগানিস্তানের জনস্বাস্থ্য বিভাগের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, আহতদের কাবুলের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এনডিটিভি জানিয়েছে, ভারতীয় দূতাবাস থেকে কয়েকশত মিটার দূরে ওই বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণস্থল থেকে কয়েকশ মিটার দূরে ঘরবাড়ির দরজা-জানালা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে ভারতীয় দূতাবাসের সব কর্মী নিরাপদ আছেন বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী এ হামলার দায় স্বীকার করেনি। তালেবান বিদ্রোহীদের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ঘটনার বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করছে তারা




মিয়ানমারে পানি উৎসবে নিহতের সংখ্যা ২৮৫, আহত সহাস্ত্রাধিক

myanmar

ডেস্ক রিপোর্ট :
মিয়ানমারে বর্ষবরণের সময় পানি উৎসব চলাকালে দুর্ঘটনা ও সংঘর্ষে ২৮৫ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সংশ্লিষ্ট ঘটনায় আহত হয়েছেন হাজারের বেশি মানুষ। দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে গত বৃহস্পতিবার থেকে পানি উৎসবকে কেন্দ্র করে চলমান সংঘর্ষে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

দেশটির এক সরকারি কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, পানি উৎসব চলাকালে মারামারি, গোষ্ঠীগত হামলা, দলবদ্ধ লড়াই, মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালানোয় দুর্ঘটনা, ধর্ষণ, চুরিসহ দুই শতাধিক অপরাধের ঘটনা ঘটেছে। আর এ অপরাধগুলো ঘটনার সময়ে বিপুল পরিমাণ প্রাণহানি হয়। এগুলোর মধ্যে চেইন প্রদেশে পানিখেলাকে কেন্দ্র করে এক পরিবারের তিন নারীকে হত্যার ঘটনা আলোড়ন সৃষ্টি করেছে বলে উল্লেখ করা হয়।

অন্যমিডিয়া

মিয়ানমারের গত বছরের পানি উৎসবে মোট ৩৬ জনের প্রাণহানি ও আরো ৩১৬ জন আহত হয়েছিলেন।

সূত্র : কালের কণ্ঠ




২শ বছরের পুরনো মসজিদ গুঁড়িয়ে দিয়েছে মিয়ানমার

myanmer
পার্বত্যনিউজ ডেস্ক :
২শ বছরের প্রাচীন মসজিদ গুঁড়িয়ে দিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী মিয়ানমারের বুথিডাওং পৌরসভার একটি প্রাচীন মসজিদ বুলডোজার দিয়ে ভেঙে দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। সোমবার ভেঙে ফেলা ওই মসজিদটি ২শ বছরের প্রাচীন।

বুথিডাওংয়ের লাওয়াই ডেক গ্রামে ওই মসজিদের অবস্থান। স্থানীয় লোকমুখে জানা যায় ব্রিটিশরা আসার অাগে এমনকি আরাকান প্রদেশে ব্রিটিশদের আগমণের পূর্বে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল।

ব্রিটিশ শাসনামলে মসজিদের পাশের রাস্তায় দোকানপাট, বাজার চালু হয়। ওই বাজারটি বোতলি বাজার নামেই পরিচিত। ১৯৯০ সাল থেকে মসজিদটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

অন্যমিডিয়া

এতোকিছুর পরও মিয়ানমার সরকারের দাবি, আরাকান রাজ্যের সঙ্কট নিরসনে তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। অথচ প্রার্থনাসহ সব ধরনের স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সেখানকার রোহিঙ্গা মুসলিমরা। ২০১২ সাল থেকে সরকারিভাবে আরাকানের সংখ্যা গরিষ্ঠ জনগোষ্ঠীর প্রার্থনা করার ওপর নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে।

মিয়ানমারে বিভিন্ন শাসনামলে রোহিঙ্গাদের ঐতিহাসিক স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়ার মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেই চলেছে।

সূত্র : জাগোনিউজ




সামরিক পোশাক জব্দের ব্যাপারে বাংলাদেশকে সতর্ক করলো মিয়ানমার

teknaf-pic-30-3-17-copy

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক :
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পোশাক জব্দের ব্যাপারে বাংলাদেশকে সতর্ক করে দিয়েছে দেশটি। শনিবার দেশটির স্টেট কাউন্সিলরের অফিস বলছে, সহিংস হামলাকারীরা নিজেদের লুকিয়ে রাখার উদ্দেশ্যে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর পোশাক পরে গ্রামে হামলা চালিয়ে মানবাধিকার লঙ্ঘনের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে এ কাজ করে থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার টেকনাফ স্থলবন্দরে ইঞ্জিন চালিত একটি নৌকায় তল্লাশি চালিয়ে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর শতাধিক ইউনিফর্ম জব্দ করেছে বন্দর শুল্ক বিভাগ। এছাড়াও মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পদ, ব্যাকপ্যাক, রেইন কোর্ট, হেলমেট, রেইন কোর্ট ও বুট জব্দ করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের রহমান ট্রেডিং নামের আমদানিকারক একটি কোম্পানির এক কর্মচারীকে সেনাবাহিনীর পোশাকসহ বুধবার বিকেলে টেকনাফে আটক করেছে বাংলাদেশি কর্তৃপক্ষ। পরে তদন্তে জানা যায়, নুরে আলম সিদ্দিকী নামের এক ব্যক্তি ওই কোম্পানির মালিক। যিনি মিয়ানমার থেকে শুকনো খাদ্য দ্রব্য আমদানির ব্যবসা করেন।

মিয়ানমার নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে উত্তর রাখাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ রয়েছে। তবে, দেশটি বরাবরই এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছে।

গত বছরের অক্টোবর ও নভেম্বরে সীমান্তে মিয়ানমার পুলিশের পোস্টে সশস্ত্র হামলার পর দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে চরম মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ইউ মিন্ত সুয়ে’কে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করেছে মিয়ানমার সরকার।

সূত্র : সিনহুয়া, জাগোনিউজ২৪.কম




৯০ রানের বিশাল ব্যবধানে শ্রীলঙ্কাকে হারালো বাংলাদেশ

bd

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক :

ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কাকে ৯০ রানে হারিয়ে মাশরাফিরা ওয়ানডে সিরিজ শুরু করলেন জয় দিয়েই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের আগের চারটি জয় ছিল উইকেটের ব্যবধানে। প্রথমবারের মতো রানের ব্যবধানে হারালেন মাশরাফিরা। ৪৫.১ ওভারে ২৩৪ রানে অলআউট হয়েছে শ্রীলঙ্কা।

৩২৫ রান তাড়া করতে নেমে স্কোরবোর্ডে কোনো রান না তুলতেই মাশরাফি বিন মুর্তজার করা প্রথম ওভারেই এলবিডব্লু গুনাথিলাকা। ঘুরে দাঁড়াবে কী, বাংলাদেশের বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে আরও চাপে শ্রীলঙ্কা। ১১ ওভারে ৩১ রানে নেই ৩ উইকেট। কেন দেশ থেকে কেন তাঁকে উড়িয়ে নেওয়া হয়েছে, বোঝালেন মেহেদী হাসান মিরাজ। কুশল মেন্ডিসকে (৪) আউট করেছেন।ফিরিয়েছেন শ্রীলঙ্কার ইনিংসে একমাত্র ফিফটি পাওয়া দিনেশ চান্ডিমালকেও।

২৮.৫ ওভারে ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর সব সম্ভাবনা যেন শেষ করে দিল বাংলাদেশ। ১২১ রানে ৫ উইকেট নেই শ্রীলঙ্কার।

এর আগে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে করে ৩২৪ রান। তাতেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ নিজেদের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটা নতুন করে লেখাল। শুরু থেকে একপ্রান্ত ধরে রেখে খেলে তামিম ইকবালই রাখলেন মূল ভূমিকা। ১৪২ বলের ইনিংসটায় মেরেছেন ১৫টি চার, ছয় একটি। ৪৮তম ওভারে আউট হওয়ার আগে বাংলাদেশকে দিয়ে গেছেন ৩০০-র গতিপথ। যে পথ ধরেই বাংলাদেশ পেয়েছে দুর্দান্ত এক জয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ৩২৪/৫ (তামিম ১২৭, সাকিব ৭২, সাব্বির ৫৪, মোসাদ্দেক ২৪*, মাহমুদউল্লাহ ১৩*; লাকমাল ২/৪৫, গুনারত্নে ১/৪০, সান্দাকান ১/৪৩)।
শ্রীলঙ্কা: ৪৫.১ ওভারে ২৩৪ (চান্ডিমাল ৫৯, পেরেরা ৫৫, পাথিরানা ৩১, গুনারত্নে ২৪; মোস্তাফিজ ৩/৫৬, মাশরাফি ২/৩৫, মেহেদী ২/৪৩, সাকিব ১/৩৩, তাসকিন ১/৪১, মোসাদ্দেক ০/২১)।
ফল: বাংলাদেশ ৯০ রানে জয়ী।




উত্তরপ্রদেশে বিপুল জয়ের পথে বিজেপি

_95111376_img-20170311-wa0020

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

ভারতের রাজনৈতিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল জয়ের পথে এগোচ্ছে ভারতীয় জনতা পার্টি বা বিজেপি। উত্তরাখণ্ড রাজ্যেও বিজেপি বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতার দিকে এগোচ্ছে। এ ছাড়া পাঞ্জাব, গোয়া ও মনিপুর রাজ্যেও বিধানসভা নির্বাচনের ভোট গণনা চলছে। পাঞ্জাব আর মনিপুরে এগিয়ে রয়েছে কংগ্রেস।

এখনও সব আসনের ফলাফল ঘোষিত হয়নি, কিন্তু উত্তরপ্রদেশের ৪০৩টি আসনের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে ৩৯৭টি আসনের ট্রেন্ড জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তার মধ্যে ২৮৮ টি আসনে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। সে রাজ্যে বিদায়ী সরকার ছিল যে সমাজবাদী পার্টির। তারা কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে ভোটে নেমেছিল। সমাজবাদী-কংগ্রেস জোট ৭৩টি আসনে এগিয়ে রয়েছে।

ওই জোটের প্রচারে প্রধান মুখ ছিলেন দুই দলের দুই যুব নেতা-বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব ও কংগ্রেসের সহ সভাপতি রাহুল গান্ধী। এখনও পর্যন্ত যত ভোট গোনা হয়েছে, তার মধ্যে বিজেপি প্রায় ৪০% ভোট পেয়েছে বলে জানাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। প্রায় দেড় দশক পরে উত্তরপ্রদেশ রাজ্যে ক্ষমতায় ফিরতে চলেছে বিজেপি।

এ নির্বাচনের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে ব্যাপক প্রচারাভিযানে নেমেছিলেন। মি. মোদি যেমন তার উন্নয়নের এজেন্ডা নিয়েই এগিয়েছিলেন প্রচারে, তেমনই রাজ্য সরকারের ব্যাপক দুর্নীতির বিরুদ্ধেও সরব হয়েছিলেন তিনি। নভেম্বর মাসে দেশের চালু নোটের ৮৬% বাতিল বলে ঘোষণা করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। ৫শ আর এক হাজার টাকার নোট বাতিলের পরে সারা দেশের মানুষ দীর্ঘদিন ধরে ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলেন।

তারপরে এ প্রথম গুরুত্বপূর্ণ কোনও নির্বাচনের মুখোমুখি হয়েছিল নরেন্দ্র মোদির দল। উত্তরপ্রদেশের ভোটের ফলাফল জাতীয় রাজনীতিতে যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনই সংসদীয় রাজনীতিতেও বিজেপি’কে সুবিধাজনক অবস্থানে নিয়ে গেল। সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় বিজেপি এখনও সংখ্যাগরিষ্ঠ দল নয়। তাই নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন সরকারের আনা অনেক বিলই সেখানে আটকে যায়। কিন্তু রাজ্য বিধানসভাগুলিতে নবনির্বাচিত বিজেপি সদস্যদের ভোটে যতজন সংসদ সদস্য রাজ্যসভায় পাঠাতে সক্ষম হবে ওই দলটি, তার ফলে উচ্চকক্ষের সেই সংখ্যার ভারসাম্য বিজেপির অনুকূলে অনেকটাই চলে যাবে।

 ‍সূত্র: বিবিসি