চকরিয়ায় ৮ বছরের শিশুকে কুপিয়ে হত্যা

খুন
চকরিয়া প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের চকরিয়ার পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়নের দরবেশকাটা এলাকায় আট বছরের এক শিশুকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে আপন ফুফার বিরুদ্ধে। রবিবার রাতে বাড়ির ভেতর মলত্যাগ করায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে শিশুটির ফুফা। একপর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যার দিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপালে ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়ে শিশুটি। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে পটিয়া এলাকায় মারা যায় শিশুটি।

নিহত শিশুর নাম রাশেদুল ইসলাম বাবুল (৮)। সে চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের মগনামা পাড়ার রিদুয়ানুল হকের পুত্র এবং পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়নের দরবেশকাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।

পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা জানান, ইউনিয়নের দরবেশকাটা গ্রামে থাকা ফুফু বুলবুল আক্তারের বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করে আসছিল শিশু রাশেদ। রবিবার রাতে বাড়ির ভেতর মলত্যাগ করে সে। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে ফুফা রিদুয়ান। একপর্যায়ে সেই ক্ষোভ প্রশমিত করতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায় শিশু রাশেদুল ইসলাম বাবুলকে। প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চমেক হাসপাতালে নেওয়ার পথে চট্টগ্রামের পটিয়া এলাকায় শিশু বাবুল মারা যায়।

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুল আজম জানান, এ ধরনের একটি ঘটনা শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।




চকরিয়ায় বন্দুকের বাট দিয়ে নিরীহ ব্যক্তিকে পুলিশের বেধড়ক পিটুনি, সোর্সকে গণধোলাই

চকরিয়া প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের মাঝেরফাঁড়ি স্টেশন এলাকায় মিনার উদ্দিন জিকু (২৮) নামের নিরীহ এক ব্যক্তিকে আটক করার পর বন্দুকের বাট দিয়ে বেধড়ক পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এতে সে গুরুতর আহত হয়ে পড়ে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে থাকা কথিত সোর্স বেলাল উদ্দিনকেও (৩৫) উত্তেজিত জনতা ধরে গণপিটুনি দেয়। সেও গুরুতর আহত হয়। এ সময় জনগণের আক্রোশ থেকে বাঁচতে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় পুলিশ। স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত দুইজনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। সোমবার রাত আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশের পিটুনিতে গুরুতর আহত ব্যক্তির নাম মিনার উদ্দিন জিকু (২৮)। তিনি উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের মাঝেরফাঁড়ি গ্রামের বশির আহমদের পুত্র। জনতার পিটুনিতে আহত কথিত সোর্সের নাম বেলাল উদ্দিন (৩৫)। সে একই এলাকার কবির আহমদের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাজমেস্ত্রী মিনার উদ্দিন জিকুকে বন্দুকের বাট দিয়ে বেধড়ক পিটুনি দেওয়ার সময় পুলিশের ওপর চড়াও হওয়ার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে পুলিশ জনরোষ থেকে বাঁচতে ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত সটকে পড়ে।

সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আজিমুল হক আজিম এবং কাকারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মো. শওকত ওসমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন । তারা বলেন, মিনার উদ্দিন জিকু নামের এক নিরীহ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা রয়েছে দাবি করে ধরতে গেলে এই লঙ্কাকাণ্ড ঘটে।

অভিযানে যাওয়া চকরিয়া থানার এএসআই আবদুর রাজ্জাক দাবি করেন, মিনার উদ্দিন জিকু নামের কাউকে পুলিশ বন্দুকের বাট দিয়ে পেটায়নি। এমনকি বেলাল নামের কোন ব্যক্তি সোর্স হিসেবে পুলিশের সঙ্গে ছিল না। আর পুলিশের কোন সদস্যও আহত হয়নি।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ওসি মো. জহিরুল ইসলাম খানের বক্তব্য নেওয়ার জন্য একাধিকার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।




পেকুয়ায় সৈনিকলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ, থানায় মামলা

পেকুয়া প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের পেকুয়ায় স্বত্ব বিরোধের জের ধরে সৈনিকলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ ও তার ভাই বিজিবি সদস্যকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় থানায় মামলা রুজুর খবর পাওয়া গেছে। ২৩ জানুয়ারী সোমবার বেলা ৩টা ৩৫মিনিটে আহতদের বড় ভাই ডা. মমতাজুল ইসলাম বাদী হয়ে উপজেলার সদর ইউনিয়নের মিয়ারপাড়া এলাকার মৃত ফজল করিমের পুত্র বশির আহমদকে প্রধান আসামী করে ২০ জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২০/২৫জনের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে জানিয়ে মামলাটি রুজু করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২০ জানুয়ারী ভোর আনুমনিক সাড়ে ৫টার দিকে বাদীর ছোট ভাইয়ের দখলীয় বসতভিটায় অনাধিকার প্রবেশ করে সৈনিকলীগ সম্পাদক দিদারুল ইসলামকে গুলিবিদ্ধ ও তার বড় ভাই সাবেক বিজিবি সদস্য হেলাল উদ্দিনকে কুপিয়ে জখম এবং বিভিন্ন ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা সংঘটিত করে আসামীরা।

এ ব্যাপারে পেকুয়া থানার ও.সি(তদন্ত) মনজুরুল কাদের মজুমদার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।




ফেনীতে ছিনতাই হওয়া ৪৫৯ বস্তা চাউল খাগড়াছড়িতে উদ্ধার, আটক চার

16237119_1467982599909967_1165559781_n
নিজস্ব প্রতিবেদক:
ফেনী থেকে ছিনতাই হওয়া ২৩ টন চাউল খাগড়াছড়ির গুইমারায় উদ্ধার হয়েছে। এ ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গুইমারা থানা পুলিশের সহায়তার এ ছিনতাই হওয়ার উদ্ধার হয়।

গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা যোবাইরুল হক পার্বত্যনিউজকে জানান, ব্যবসায়ী মো. জাহাঙ্গীর আলম ভারত থেকে চাউল ক্রয় করে নিয়ে হিলি স্থল বন্দর দিয়ে আসছিলেন। চাউলের গন্তব্যস্থল ছিল  সাতকানিয়া লোহাগাড়া। গত ১৭ জানুয়ারি ফেনীতে ছিনতাই হয় চাউল বোঝাই ট্রাকটি। এ ঘটনায় ঐ দিন ফেনী সদর থানায় মামলা হয়। পুলিশ ছিনতাই হওয়া ট্রাকটি আটক করে। পরে ট্রাকের হেলপারে স্বীকারোক্তিতে খাগড়াছড়ির গুইমারার দুই ব্যবসায়ীর গুদাম থেকে ছিনতাই হওয়া ৪৫৯ বস্তা চাউল উদ্ধার করে পুলিশ। আটক করা হয় গুইমারার চাউল ব্যবসায়ী তোফায়েল আহম্মদ, হাজী মমিন সওদারগর এর ছেলে কামাল ও তারেককে।

পুলিশ পার্বত্যনিউজকে জানায়, সন্ত্রাসী চক্রটি চাউলগুলো ছিনতাইয়ের পর ট্রাক পরিবর্তন করে ফেনী থেকে দুইটি ট্রাকে করে গুইমারা নিয়ে আসে এবং চাউল ব্যবসায়ী তারেক ও তোফায়েলের নিকট বিক্রয় করে।

ফেনী সদর থানার এস আই নজরুল ইসলাম পার্বত্যনিউজকে জানান, চাউল বোঝাই ট্টাক ছিনতায়ের ঘটনায় ফেনী সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে। ফেনীতে ট্টাকটি আটক করে পরে জিজ্ঞাসাবাদে চক্রটি গুইমারা চাউলগুলো বিক্রয়ের বিষয়ে তথ্য পাওয়া যায়। পরে চাউল ক্রয় ও জড়িত থাকার অভিযোগে গুইমারা ৩ জনকে আটক করা হয় বলে তিনি জানান।

ফেনী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মো. শহীদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে পার্বত্যনিউজকে বলেন, তদন্ত চলছে। আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।




খাগড়াছড়িতে মাদক ব্যবসায়ী রফিক দুই কেজি গাঁজাসহ ফের আটক

Khagrachari Picture(02) 22-01-2017
নিজস্ব প্রতিবেদক:
মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম ওরফে গাজা রফিক ফের গ্রেফতার হয়েছে। এ সময় তার কাছ থেকে দুই কেজি গাজা উদ্ধার করা হয়েছে। রবিবার ভোর রাতে কলাবাগানের বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়।

খাগড়াছড়ি সদর থানার এসআই আব্দুল্লাহ আল মাসুদ পার্বত্যনিউজকে জানান, গ্রেফতারী পরোয়ানা নিয়ে রবিবার ভোর রাতে তিনি এএসআই মাঈন উদ্দিন ভূইয়াসহ খাগড়াছড়ি শহরের কলাবাগানে রফিকের বাসায় অভিযান চালান। পরে মুরগির ঘর থেকে রফিককে দুই কেজি গাঁজাসহ আটক করা হয়।

মাদক ব্যবসায়ী গাজা রফিক ইতিপূর্বেও একাধিকবার মাদকসহ আটক হয়েছিল। জামিনে বের হয়ে আবার মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে।

অভিযোগ রয়েছে রফিকসহ তার পরিবারের সকলেই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠত হয়ে সম্প্রতি এলাকাবাসী গণস্বাক্ষর দিয়ে সদর থানাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দাখিল করলেও পুলিশ ছিল নির্বিকার- এমন অভিযোগ রয়েছে।




কক্সবাজারে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন

খুন
কক্সবাজার প্রতিনিধি :
কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়ায় পূর্ব শক্রতার জেরে ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছে মোস্তাফা কামাল (২৫) নামে এক যুবক।

শনিবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। তিনি স্থানীয় নুরুল ইসলামের ছেলে।

নিহতের পরিবার পার্বত্যনিউজকে জানায়, মোস্তাফা কামাল পেশায় ইজিবাইক চালক। ইজিবাইক নিয়ে ভোরে বাড়ি ফেরার পথে গতিরোধ করে তাকে ছুরিকাঘাত করে স্থানীয় দুই যুবক জামাল আর বাবু। মোস্তাফা কামাল মারা যাওয়ার আগে এই দুই যুবকের নাম বলে যান। তাদের সাথে পূর্ব শক্রতার ছিল নিহত মোস্তাফা কামালের।

পুশিল সূত্র পার্বত্যনিউজকে জানিয়েছে, ঘটনার পর পরই পুলিশ ওই স্থানে যায়। হামলার সাথে জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে।




রাঙামাটি শহরে নারায়ণগঞ্জ কাচপুরের এক যুবকের লাশ উদ্ধার

Rangamati Pic-20-01
নিজস্ব প্রতিবেদক :
রাঙামাটি শহরের ষ্টেডিয়াম এলাকা থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত যুবকের নাম  জাাকির হোসেন। সে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনার গা থানার কাচপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত রজব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার সকালে রাঙামাটি ষ্টেডিয়ামের উত্তর পাশের গ্যালারিতে সকালে ব্যায়াম করতে আসা মানুষজন একটি মরদেহ দেখতে পান। বিষয়টি নিরাপত্তা বাহিনীকে জানানো হলে তারা ঘটনাস্থলে এসে মরদেহটিকে বাঙ্গালী যুবকের বলে চিহ্নিত করেন।

স্থানীয়রা কেউই নিহত যুবকের পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেননি। পরে পুলিশ নিহতের কাছে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তার পরিচয় নিশ্চিত করেন।

কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ পার্বত্যনিউজকে জানান, আমরা নিহতের লাশ উদ্ধার করে তার পরিচয় নিশ্চিত হয়েছি। তার পরিবারকে খবর দেওয়া হয়েছে। আপাতত নিহতের লাশ রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার পরিবারের সদস্যরা এলে ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেই রিপোর্ট হাতে পেলেই যুবকের মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

পুলিশের অপর একটি সূত্র জানায়, লাশের শরীরে তেমন কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই।




পেকুয়ায় ২৩ দিনেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত স্কুল ছাত্রী

Pic

পেকুয়া প্রতিনিধি:
পেকুয়ায় অপহরণের ২৩ দিন অতিবাহিত হলেও কোন হদিস মেলেনি অপহৃত স্কুল ছাত্রীর। জানা যায় পেকুয়ার মগনামা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাজার পাড়া এলাকার বাসিন্দা পেকুয়া বাজারের কাঠ ব্যাবসায়ী আবু ছালেকের মেয়ে ও পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী। অপহৃত স্কুল ছাত্রী নাসরিন সোলতানা লিলি (১৫)।

এ ব্যাপারে অপহৃত স্কুল ছাত্রীর পিতা আবু  ছালেক বাদী হয়ে একই ইউনিয়নের কালার পাড়া এলাকার মোস্তাক আহমদের ছেলে শাকের উল্লাহ(২১)কে আসামী করে গত ৩০ ডিসেম্বর পেকুয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সংশোধিত ২০০৩এর ৭/৩০ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন।

দায়েরকৃত এজাহার সূত্রে জানা যায়, বিগত কয়েক বছর পূর্ব থেকে শাকের উল্লাহ নামের বখাটে লিলিকে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার সময় মাঝে-মধ্যেই পথরোধ করে অপহরণ করার চেষ্টা করত। এরই মধ্যে গত এক বছর পূর্বে নাসরিন সোলতানা লিলি নানার বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার পথে সদর ইউনিয়নের মেহেরনামা সাঁকোর পাড় ষ্টেশনে লিলিকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় লিলির চিৎকারে স্থানীয় জনসাধারণ এগিয়ে এসে হাতেনাতে শাকের উল্লাহকে আটক করে।

পরে তাকে শিলখালী ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইনের নিকট হস্তান্তর করা হয়। পরে অভিযুক্ত বখাটে শাকের উল্লাহর পিতা-মাতার মধ্যস্থতায় ননজুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে অঙ্গীকার মূলে শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ছাড়িয়ে নেয়।

ছাত্রীর পিতা আবু ছালেক জানান, গত ২৭ ডিসেম্বর সকাল ৯টার সময় নাসরিন সোলতানা লিলি আমার নিজ বাড়ী হইতে বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল দেখতে পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে পেকুয়া আশরাফুল উলুম মাদ্রসার সামনে পৌছায়। এসময় পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা শাকের উল্লাহসহ অজ্ঞাত ২/৩ জন বখাটে আমার মেয়ে কে উঠিয়ে নিয়ে যায়। অনেক খোঁজাখুজির পরও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে আমি পেকুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করি। মামলার সুত্র ধরে পুলিশ বিভিন্ন জায়গা অভিযান চালিয়েছিল।

এছাড়া তিনি আরও জানান, বেশ কিছু দিন ধরে অজ্ঞাত স্থান থেকে বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে ০১৮৭৬-৭৩১৭৩২, ০১৮৮১২৩২৪৪৮ ও ০১৮৮১৫৯৭৬৫৯ নং থেকে কল করে প্রতিনিয়ত তার কাছ থেকে মুক্তিপণ দাবী করে আসছে। বিষয়টি মামলার তদন্তকারী এসআই রাজ্জাককে অভিহিত করা হয়েছে। এদিকে লিলি অপহৃত হওয়ার পর থেকে অসহায় দরিদ্র পরিবারে চলছে অজানা উৎকন্ঠা।




চকরিয়ায় বাস টার্মিনালে ৯৮৮ পিস্ ইয়াবাসহ মহিলা গ্রেফতার

ইয়াবা উদ্ধার
চকরিয়া প্রতিনিধি
চকরিয়ায় পুলিশের অভিযানে ৯৮৮ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় পাচারের অভিযোগে ফুলমতি বেগম (৩৯) নামের এক মহিলাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে পুলিশের একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  পৌর বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত মহিলা সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার বৈঠাখালী গ্রামের মৃত মিলন মিয়ার স্ত্রী বলে জানা গেছে।

চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. কামরুল আজম বলেন, গ্রেফতারকৃত মহিলা দীর্ঘদিন ধরে নানা কৌশলে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামে ইয়াবা পাচার করে আসছেন। মঙ্গলবার রাতে ইয়াবা পাচারের খবর পেয়ে চকরিয়ার বাস টার্মিনাল এলাকায় ফুলমতির বহন করা ডালের বস্তা থেকে ৯৮৫টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।




পেকুয়ায় কে এই অস্ত্রধারী যুবক!

p1

পেকুয়া প্রতিনিধি:
পেকুয়া উপজেলায় প্রকাশ্যে অস্ত্র উচিয়ে চলাফেরা করা এক অস্ত্রধারী যুবককে নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। আর প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে চলাফেরা করায় স্থানীয়দের মধ্যে আতংক ও উদ্বেগও সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিনে খোঁজ খবর নিয়ে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের পূর্ব জালিয়াকাটা গ্রামের জসিম উদ্দিনের পুত্র মো. ফয়সাল গত কয়েক দিন ধরে তার বাড়ীর আঙ্গিনায় নিজের হাতে একটি অস্ত্র উচিয়ে ধরে তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক একাউন্টে ছবি পোস্টও করেছে। ছবিটি পোস্ট করার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় সৃষ্টি হলে পরে ছবিটি তার একাউন্ট থেকে রিমোভও করে দেন ফয়সাল।

স্থানীয়রা জানান, অস্ত্রধারী ফয়সাল প্রায় সময় এলাকার লোকজনকে নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে চাঁদাদাবি করে। নিরীহ লোকজনের বিরোধীয় জমি দখলে প্রভাবশালীদের পক্ষে অস্ত্র নিয়ে ভাড়াও যায় ওই অস্ত্রধারী ফয়সাল। এদিকে ফেসবুকে অস্ত্র উচিয়ে ছবি পোষ্ট করার পর বিষয়টি স্থানীয়রা মৌখিকভাবে পেুকয়া থানার ওসিকে অবহিত করেন।

এ ব্যাপারে জানার জন্য অভিযুক্ত ফয়সালের সাথে যোগাযোগ করে বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে পেকুয়া থানার ওসি জিয়া মো. মোস্তাফিজ ভূঁইয়া জানান, বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখবেন।