৫ জানুয়ারিকে ঘিরে পেকুয়ায় বিএনপি নিরব থাকলেও রাজপথে ছিল আ’লীগ


পেকুয়া প্রতিনিধি:
পেকুয়ায় ৫ জানুয়ারীকে ঘিরে রাজপথ দখলে ছিল আ’লীগের আর বিএনপির নেতাকর্মীরা ছিল নিরব দর্শকের ভুমিকায়। গণতন্ত্র রক্ষা ও গণতন্ত্র হত্যা দিবস নিয়ে দু’দলের মুখোমুখি অবস্থানকে ঘিরে পেকুয়ায় সংঘাত কিংবা রক্তপাতের আশংকা দেখা দিয়েছিল। তবে সব জল্পনা কল্পনার অবসান হয়েছে। ৫ জানুয়ারী কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্নভাবে পেকুয়ায় সহনশীল অবস্থা বিরাজ করে।

সরকারীদল আ’লীগ শুক্রবার গণতন্ত্র রক্ষা দিবস পালন করে। সকাল থেকে দলীয় কার্যালয়ের ফটক খোলা রাখা হয়। উপজেলা আ’লীগ, বিভিন্ন ইউনিয়ন আ’লীগ, ও দলটির অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে সকাল থেকে জড়ো হয়। এ সময় পেকুয়া বাজার, চৌমুহনী চৌরাস্তা মোড় ও উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কে নেতা-কর্মীরা অবস্থান সুসংহত করে। একইভাবে উপজেলার টইটং, রাজাখালী, বারবাকিয়া, মগনামাসহ বিভিন্ন প্রান্তে আ’লীগের নেতা-কর্মীরা রাস্তায় নেমে ৫ জানুয়ারিকে সরগরম রাখে। পেকুয়া থানা পুলিশ দিনটিকে ঘিরে সর্তক অবস্থানে ছিল। যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ সদস্যরা টহল জোরদার করে।

উপজেলা আ’লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) শাহনেওয়াজ চৌধুরী বিটু ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেম সকাল থেকে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে অবস্থান নেয়।

অপরদিকে অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক শক্তি বিএনপির কোন নেতা-কর্মীদের রাস্তায় নামতে দেখা যায়নি। পেকুয়া বাজারে দলীয় কার্যালয় বিএনপি অফিস তালাবদ্ধ ছিল। এদিকে জাতীয় ভাবে গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালনের কর্মসূচী থাকলেও পেকুয়ায় তা পালন করা হয়নি।

এ ব্যাপারে জানতে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সদর ইউপির চেয়ারম্যান বাহাদুর শাহের সাথে যোগাযোগ করার জন্য ওনার ব্যবহৃত মোবাইল নং কয়েক বার কল দিলেও সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া যায়নি।

নিউজটি পেকুয়া বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *