২৭ মার্চ থেকে বিজিবি-বিজিপির যৌথ টহল


নিজস্ব প্রতিনিধি:

২৭ মার্চ থেকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) সীমান্তে যৌথ টহল দেবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

শনিবার সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ‘দ্য মেট্রোপলিটন কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড’-এর ৩১তম সাধারণ সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ২৭ মার্চ থেকে সীমান্তে বিজিবি ও বিজিপি একসঙ্গে টহল দেবে। আমরা এও বিশ্বাস করি, বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া লাখ লাখ রোহিঙ্গা শীঘ্রই তাদের নিজ দেশে ফিরে যেতে পারবেন।’

সীমান্তে গত দুই দিনের উত্তেজনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের বিজিবি তাদের সঙ্গে অব্যাহতভাবে পতাকা বৈঠক করছে এবং তথ্য আদান-প্রদান করছে। তারা আমাদের জানিয়েছে যে, তাদের কাছে একটা ভুল তথ্য ছিলো। সেই ভুল তথ্যের ভিত্তিতে তাদের সেনাবাহিনীর কিছু মুভমেন্ট সেখানে হয়েছিলো। এটা যে ভুল ছিলো, সেটা তারা বলছে। পাশাপাশি পতাকা বৈঠক হয়েছে যেখানে এই বিষয়ে কথা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, গত ৯ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের উপ-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর জেনারেল অং সো মাইকিং করে ঘোষণা দেন, ‘নো-ম্যান্স ল্যান্ডে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ভূমির মালিক মিয়ানমার। তাই রোহিঙ্গাদের নো-ম্যানস ল্যান্ডে অবস্থান করা আইনত অবৈধ। দ্রুত নো-ম্যানস ল্যান্ড থেকে সরে না গেলে মিয়ানমার সেনাবাহিনী কঠোর ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে।’ এরপর ২০ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের রাখাইনের ঢেঁকিবুনিয়া বিজিপি ক্যাম্পে বিভাগীয় কমিশনার পর্যায়ে একটি বৈঠক হয়। বৈঠকে নো-ম্যানস ল্যান্ডে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফিরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে গিয়ে মিয়ানমার সরকার গত ১ মার্চ তমব্রু সীমান্তের কাছাকাছি অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে। অতিরিক্ত সেনা মোতায়েনের কারণে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠার পর রাতের আঁধারে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে শুরু করে রোহিঙ্গারা। এ নিয়ে শুক্রবার দুইপক্ষের মধ্যে পতাকা বৈঠকও হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *