২০ বছরেই ৮ ফুট!


নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

কুড়ি বছর বয়সে জিনাত আলী ৮ ফুট লম্বা ছাড়িয়ে গেছেন। তার ডান পা বাম পায়ের চেয়ে দুই ইঞ্চি বড়। সাধারণত এই বয়সী ছেলেরা ৫ থেকে সাড়ে ৫ ফুট লম্বা হয়। কিন্তু জিনাত আলী লম্বা হয়েছেন অস্বাভাবিক। অতিরিক্ত উচ্চতার কারণে সবাই আড় চোখে দেখে। এজন্য সে ঘর থেকে খুব একটা বের হন না।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার পার্শ্ববর্তী গর্জনিয়া এলাকার বর্গা চাষি আমির হামজার ছেলে জিনাত আলী।

চিকিৎসকরা বলছেন, ব্রেইন টিউমারের কারণে জিনাতের শরীরের হরমোন পরিবর্তন হয়ে এমন অস্বাভাবিক বৃদ্ধি হয়েছে।

জিনাতের বাবা জানান, ১০ বছর বয়স থেকে ছেলের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি লক্ষ্য করা যায়। এরপর থেকে সে শুধু লম্বাই হচ্ছে আর প্রচুর খাদ্য খেতে হচ্ছে তাকে।

জিনাতের মা সাফুরা বেগম জানান, এমন অবস্থা দেখে প্রথমে চকরিয়ার মালুম ঘাট হাসপাতালে জিনাতকে নিয়েছিলাম। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তার ব্রেইন টিউমার হয়েছে।

এরপর ঢাকায় নেওয়া হলে চিকিৎসকেরা ব্রেইন টিউমার অপারেশনে ১২ লাখ টাকা খরচ হবে বলে জানান। টাকার জোগাড় করতে না পেরে তাকে বাড়িতে ফেরত আনা হয়।

বাবা আমির হামজা জানান, এক আমেরিকান প্রবাসী তার ছেলেকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু তার ঠিকানা হারিয়ে ফেলায় বিপাকে পড়েছেন। সে সময়ের বিভিন্ন টেস্টের রিপোর্ট ও অন্যান্য কাগজপত্র তার কাছে।

পরিবারের সদস্যরা জানায়, বাড়তি উচ্চতার কারণে জিনাতের দুই পায়ের মধ্যে সমস্যা দেখা দিয়েছে। হাঁটতে গেলে সমস্যা হয়। ছেলের চিকিৎসায় মা-বাবা হিমশিম খাচ্ছেন।

বান্দরবানের ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. অংশৈ মারমা জানান, এই রোগের নাম গাইনিস্টিক। মাথায় টিউমারের কারণে শরীরের হরমোনে বিরূপ প্রভাব পড়ে। ফলে শরীর দ্রুত বাড়তে থাকে। এদেশে এই চিকিৎসা ব্যয়বহুল বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *