হামলা ও মামলার শিকার খাগড়াছড়ি বিএনপি


khagrachari-picture02-17-12-2016-copy

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : খাগড়াছড়ি বিএনপির উপর বারবার হামলা সত্বেও থানা পুলিশ কোন মামলা গ্রহণ না করে উল্টা হামলাকারীদের পক্ষ থেকেই বিএনপির বিরদ্ধে মিথ্যা মামলা নিচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক মো. আবু তালেব স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১৬ ডিসেম্বর বেলা ১১টার দিকে খাগড়াছড়ি স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে ফেরার পথে বিএনপির র‌্যালীতে আওয়ামী লীগের একাংশের সন্ত্রাসী নেতা জাহেদুল আলম ও রফিকুল আলমের নেতৃত্বে তাদের লালিত-পালিত ও বেতনভুক্ত সন্ত্রাসীবাহিনী দিয়ে হামলা চালিয়ে বিএনপির প্রায় অর্ধশত নেতা কর্মীকে আহত করে, এ হামলা পরবর্তীতে মামলা নিয়ে থানায় গেলে পুলিশ মামলা গ্রহণ না করে উল্টো খাগড়াছড়িতে বিএনপির নিশানাও রাখবে না বলে হুমকি প্রদান করে।

বিবৃতিতে জানানো হযেছে, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচী ও জাতীয় কর্মসূচীগুলো শান্তিপূর্ণভাবেই পালন করে আসছে। কিন্তু খাগড়াছড়ি আওয়ামী নামধারী সন্ত্রাসী রফিকুল আলম ও তার বড় ভাই জাহেদুল আলম দীর্ঘদিন যাবৎ শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতিকে উত্তপ্ত করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টা করে আসছে।

একইভাবে উক্ত সন্ত্রাসীরা ১১ নভেম্বর সন্ধ্যায় বিএনপি অফিসের সামনে ও পৌর বিএনপির সভাপতির দোকানসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে ককটেল নিক্ষেপ করে বিএনপির পরের দিনের নির্ধারিত কর্মসূচি বানচাল করা চেষ্টা চালায় এবং পরদিন ১২ নভেম্বর কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে আহুত সাংগঠনিক সভায় হামলা করে। এ ঘটনাগুলোর পরিপ্রেক্ষিতে মামলা করলেও পুলিশ মামলা গ্রহণ করেনি।

খাগড়াছড়ি বিএনপির পক্ষ থেকে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে অভিযোগ করে বলা হয়েছে, ১১ ডিসেম্বর রাতে খাগড়াছড়ি শহরে মুসলিমপাড়াস্থ খাদ্য গুদামের সামনে উক্ত সন্ত্রাসীবাহিনী খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ ছাত্রদল সভাপতি আনিসুল আলম আনিকসহ ছাত্রদলের তিন নেতার উপর হামলা চালায় এবং এর দু তিনদিন আগে খাগড়াছড়ি কলেজেও উক্ত ছাত্রদল নেতাদেরকে হামলা করে আহত করার পর মামলা দাখিল করলেও পুলিশ আজ পর্যন্ত উক্ত মামলা গ্রহণ করেনি।

১৬ ডিসেম্বর বিএনপির শান্তিপূর্ণ র‌্যালিতে অতর্কিত হামলায় গুরুতর আহতদের মধ্যে জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এমএন আবসার মাথায় মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। অথচ হামলাকারীদেরকে আটক না করে মারাত্মক আহত জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এম এন আবছারসহ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মিল্লাত, পৌর বিএনপির সহ সভাপতি নাসির তালুকদার, খাগড়াছড়ি কলেজ ছাত্রদলের আনিসুল আলম আনিকসহ অনেককে আটক করে।

বিবৃতিতে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি পুলিশের এ ধরনের পক্ষপাতমূলক আচরণের তীব্র নিন্দা জানিছে। একই সাথে মামালা গ্রহণ না করে সন্ত্রাসীদেরকে আশ্রয় প্রশ্রয় দেওয়া অব্যাহত রাখলে এর প্রতিবাদে বিএনপি খাগড়াছড়ি জেলায় হরতাল-অবরোধের মতো কঠিন কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবে বলেও জানিয়েছে।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *