হলফনামায় যা তুলে ধরলেন আ’লীগের এমপি প্রার্থী দীপংকর


নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙামাটি:

রাঙামাটি ২৯৯ নং আসনে আ’লীগ থেকে একমাত্র প্রার্থী হয়েছেন সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় আ’লীগের সদস্য এবং জেলা আ’লীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার। এবারের একাদশ জাতীয় সংসদীয় নির্বাচনে তিনি হলফনামায় যা তুলে ধরলেন।

জেলা নির্বাচন অফিসে জমাকৃত হলনামা মূলে জানা যায়, দীপংকর তালুকদার শিক্ষাগত যোগ্যতা দেখিয়েছেন বিএ অনার্স পাস (ইংরেজী)। অতীতে বা বর্তমানে তাঁর নামে কোনো ফৌজদারী মামলা নেই।

আয় হিসেবে দেখিয়েছেন,  বাড়ি ভাড়া বাবদ ২লাখ ২হাজার ৪০০টাকা, ব্যবসা বাবদ ৮৪লাখ ১৩হাজার ১৪৫টাকা, সঞ্চয় বাবদ ৮লাখ ৯৪হাজার ৭৩২টাকা।

অস্থাবর সম্পত্তি দেখিয়েছেন, নগদ টাকার পরিমাণ ৫৭লাখ ৭২হাজার ৭৯৬টাকা,  স্ত্রীর নামে ১০লাখ ২হাজার ৯০টাকা,  ব্যাংকে জমা নিজের নামে ৬লাখ ৪হাজার ৮৪৯টাকা, স্ত্রীর নামে জমা ১৬লাখ হাজার ৪৮৬টাকা, শেয়ার নিজ নামে ২লাখ, স্ত্রীর নামে ২লাখ, সঞ্চয় নিজের নামে  ১কোটি ৬১লাখ ৭৪হাজার ২৬ টাকা,  স্ত্রীর নামে ২০লাখ টাকা,  গাড়ির দাম ৬৩ লাখ ৪৮হাজার ১৪৮টাকা,  স্বর্ণ ২৫ ভরি (দানে পাওয়া), ঘওে রাখা ইলেকট্রনিক্স পণ্যের  মূল্য ৫লাখ ৭০হাজার টাকা, আসবাবপত্রের মূল্য ৪লাখ ১৬হাজার টাকা।

স্থাবর সম্পত্তি হিসেবে দেখিয়েছেন রাজধানী ঢাকার পূর্বাঞ্চলে  অকৃষি ৯কাটা ১৫ছটাক, ৩৮বর্গফুট অকৃষি জমি যার আনুমানিক মূল্য ৩৪লাখ ৪৮হাজার টাকা, চট্টগ্রামের হাটহাজারী রেসিডেন্সিয়াল এরিয়ায় ৫কাঠা অকৃষি জমি যার আনুমানিক মূল্য ৩৩লাখ টাকা, রাঙামাটিতে তলা জায়গাসহ আবাসিক ভবন যার আনুমানিক মূল্য ৮৮লাখ ৩২হাজার ২৩৩টাকা, স্ত্রীর নামে রাঙামাটি সদরের ১০৭ বড়াদম মৌজা এলাকায় ৫একর (বাবার সূত্রে দানকৃত), ১০২নং রাঙাপানি মৌজা এলাকায় ৩৪২৮.২০বর্গফুট জায়গা (ভাই সূত্রে দানকৃত) ঢাকার সোবহানবাগ এলাকার শুক্রাবাদ মৌজায় মোহাম্মদপুরে অবস্থিত ১১তলা ফ্লাট। ফ্লাট নং সি-১০, নাভানা নিউ বাড়ি প্রেস। ফ্লাটটির আনুমানিক মূল্য ৮০লাখ ১২হাজার টাকা।

অতীতে সংসদ সদস্য থাকার সময় প্রতিশ্রুতি সমূহ হলো, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, পার্বত্য চট্টগ্রামে সম্পাদিত শান্তি চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন, নির্বাচনী এলাকায় সার্বিক উন্নয়ন, ব্রীজ, কালভার্ট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাস্তা-ঘাট নির্মাণসহ  অবকাঠামোগত উন্নয়ন।

অর্জন সমূহের তালিকায় ছিল রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ স্থাপন, সম্পদিত শান্তি চুক্তির ৭২টি ধারার মধ্যে ৪৮টি ধারা বাস্তবায়ন এবং নিজ এলাকায় প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ৯০ভাগ কাজ সম্পাদন করা হয়েছে বলে হলফনামায় উল্লেখ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *