হরিণের মাংস ভুরিভোজনের আয়োজন ভেস্তে গেলো!


কক্সবাজার প্রতিনিধি:

হরিণ শাবকের বয়স আনুমানিক চার বছর। ওজন ১২ থেকে ১৪ কেজি। লাল বর্ণের বিরল প্রজাতির এ হরিণটি ভুরিভোজনের জন্য ৫/৬জনের একটি সংঘবদ্ধ চক্র কক্সবাজারের পর্যটন স্পট দরিয়ানগর এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। খবরটি পেয়ে ছুটে যান পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সাইফুল আশরাফ। এ পরিবেশ কর্মকর্তার উপস্থিতি টের পেয়ে হরিণটি সৈকতে ফেলে পালিয়ে যান সংঘবদ্ধদলের সদস্যরা। ততক্ষণে সুন্দর এ হরিণটির একটি পা ভেঙ্গে যায়।

রবিবার (২৪ডিসেম্বর) সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সাইফুল আশরাফ জানান, ‘স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে ওই এলাকায় ছুটে গিয়ে দেখলাম আহত হরিণটি সৈকতে বসে আছে। উপস্থিত লোকজনের সহযোগিতায় হরিণটি উদ্ধার করে বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করি।’

পরিবেশের এ কর্মকর্তা বলেন,‘বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী হরিণ জবাই করা কিংবা আটকিয়ে রাখা আইনগত অপরাধ। তাই এ হরিণটি আসলে কেউ নিয়ে এসেছে কিনা নাকি বন থেকে পালিয়ে এসেছে তা খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। যদি কেউ জবাই করার জন্য নিয়ে আসার প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) দেওয়ান মো. আব্দুল হাই আজাদ বলেন,‘ পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে পাওয়ার পর প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হরিণটি চকরিয়া বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *