সরকারি আইনগত সেবার মান উন্নয়নে আন্তরিকতার সহিত কাজ করতে হবে



কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মীর শফিকুল আলম বলেন, একটি উন্নয়নশীল গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসাবে সরকার সাংবিধানিকভাবে ন্যায়বিচার প্রাপ্তি, অবাধ বিচার ও আইনের শাসন, মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার, আইনের দৃষ্টিতে সমতা এবং দ্রুততম সময়ে বিচার অধিকার প্রয়োগ ও নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সরকারি আইনগত সহায়তা সেবার মানোন্নয়নের বিকল্প নেই। সরকার অসহায় ও দরিদ্র বিচার প্রার্থী জনগণকে লিগ্যাল এইডের আওতায় উক্ত কাজ করে যাচ্ছেন।

১৯ মার্চ সোমবার বিকালে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে জেলা জজ মীর শফিকুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্যানেলভুক্ত ১০ আইনজীবীর নাম বাদ দেয়ার সুপারিশ করা হয়। সরকারি আইনগত সহায়তা প্রদান কার্যক্রম বিষয়ক জেলা লিগ্যাল এইডের সমন্বয় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, দিন দিন লিগ্যাল এইডের কার্যক্রম বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষ এখন অনেক সচেতন। অসহায় বিচার প্রার্থীরা জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে এসে চাহিদা মোতাবেক সহায়তা পাচ্ছে। বর্তমানে মামলা নিষ্পত্তিতে এসেছে অগ্রগতি। চলতি বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারী থেকে ১৮ মার্চ পর্যন্ত এক মাসে ১৯২টি বিচার প্রার্থীর আবেদন পাওয়া গেছে। তার মধ্যে সরাসরি আবেদন করা হয় ১৪৫টি। জেলখানা থেকে আবেদন এসেছে ৪৭টি। এসব আবেদনের প্রেক্ষিতে আইনজীবী নিয়োগ ও নোটিশ করা হয়েছে। এছাড়া সহিমুহুরী নকল সরবরাহের জন্য আবেদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ৪টি।

তিনি আরও বলেন, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসে বিচার প্রার্থীদের সহায়তায় ৪৬ জন প্যানেল আইনজীবী রয়েছে। কিন্তু বিগত ১ বছর ৬ মাস ধরে ১০ জন আইনজীবী মামলা পরিচালনাসহ নানা কাজে দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন। তাদের সক্রিয় করতে একাধিকবার নোটিশ দেয়া হয়েছে। নিয়মিত মাসিক সভায়ও তারা উপস্থিত থাকেন না। তাই কমিটির সবার সাথে শেষ বারের মতো বিবেচনাসহ ওই আইনজীবীদের নোটিশ দেয়া হবে। তাতেও কোন সাড়া পাওয়া না গেলে তাদের বাদ দেয়া ছাড়া আর কোন উপায় থাকবে না।

সিনিয়র সহকারি জজ ও জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার বেগম তাওহীদা আক্তার এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌফিক আজিজ, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা আদালতের জজ মো. ওসমান গণি, যুগ্ন জেলা জজ সালমা খাতুন, সিনিয়র সহকারি জজ আলাউল আকবর ও সিনিয়র সহকারি জজ নুসরাত জাহান। বক্তব্য রাখেন, পিপি এড. মমতাজুল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এড. ইকবালুর রশিদ আমিন (সোহেল), এড. মো ইসহাক, সহকারি সিভিল সার্জন ডা. মহিউদ্দিন আলমগীর ও ইপসার সমন্বয়কারী মো. ওমর সাদেক ও সাংবাদিক ইমাম খাইর প্রমূখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *