সফল জীবনের জন্য প্রয়োজন সুশিক্ষা ও দক্ষতা


রামু প্রতিনিধি:

কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ সাইমুম সরওয়ার কমল বলছেন, জীবনে বিস্ময়কর সফলতার জন্য সুশিক্ষা ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর ও বাস উপযোগী পৃথিবী গড়া সবার কর্তব্য। এজন্য শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি শিক্ষক-অভিভাবকদেরও অনেক বেশি দায়িত্ব পালন করতে হবে। সুশিক্ষা অর্জনের জন্য নিজের ইচ্ছে শক্তিই যথেষ্ট। শিক্ষা অর্জনের পথে দারিদ্রতা কখনো বাঁধা হতে পারে না। সরকার এখন দেশের প্রতিটি শিশুর জন্য শিক্ষার পথ সুগম করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, ওয়াসফিয়া নাজনীন ও নিশাত সুলতানার এভারেস্ট জয়ের কথা বাংলাদেশের কেউ ভাবতেও পারেনি। কিন্তু তা সম্ভব হয়েছে। শুধু তারা নন, বাংলাদেশের অসংখ্য নারী এখন বিভিন্ন পর্যায়ে সফলতার স্বর্ণ শিখরে আরোহন করেছে। নারী-পুরুষের সম্মিলিত অগ্রযাত্রার মাধ্যমেই বাংলাদেশের সোনালী ভবিষ্যত রচিত হবে।

সাংসদ কমল রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা এইচএম সাঁচি উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্ণাঢ্য সূবর্ণ জয়ন্তী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) সকাল দশটায় বিদ্যালয় মাঠে দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য উৎসবের উদ্বোধন করেন, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোমিনুর রশিদ আমিন কাজল। অনুষ্ঠানে সূবর্ণ জয়ন্তী বক্তা ছিলেন, জোয়ারিয়ানালা এইচএম সাঁচি উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক (১৯৮১-২০০৯) নাজিম উদ্দিন।

সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট ইকবালুর রশিদ আমিন সোহেল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক আলী হোসেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাজাহান আলি, রামু উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলী হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদা ইয়াছমিন, রামুর থানার ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, সাবেক চেয়ারম্যান এমএম নুরুছছাফা, কক্সবাজার সরকারি কলেজের সাবেক উপাধ্যক্ষ ছলিমুর রহমান, রামু কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবদুল হক, অধ্যাপক শফিউল আলম, জোয়ারিয়ানালা এইচএম সাঁচি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুল হক সিকদার, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য আবছার কামাল সিকদার, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মীর কাসেম। সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন পরিষদ ২০১৭ এর সদস্য সচিব মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন, বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র সিরাজুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে সাংসদ কমল আরো বলেন, সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলে সারাদেশের মত রামু উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন হচ্ছে। ইতিমধ্যে জোয়ারিয়ানালায় কাঙ্খিত বিকেএসপি আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। এটি নির্মিত হলে এখানকার সন্তানরা সহজে এখানে ক্রীড়া চর্চার সুযোগ পাবে। এখানে প্রতিটি শিক্ষার্থীর জন্য সরকার প্রতি মাসে ৩৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ব্যয় করবে। এ প্রতিষ্ঠান নির্মাণ নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এখানে যাদের জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে তারা অবশ্যই তিনগুন ক্ষতিপূরণ পাবে। এজন্য তিনি প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামীন সড়ক পাকাকরণ কাজ ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। শীঘ্রই এসব সড়কের কাজ শেষ হলে এখানকার মানুষ উন্নত যাতায়াত সুবিধা ভোগ করবে।

বিদ্যালয়ের গৌরবের ৫০ বছর পূর্তির বর্ণিল এ অনুষ্ঠানে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ, শিক্ষক-অভিভাবক, শিক্ষার্থীসহ এলাকার রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানকে ঘিরে পুরো এলাকাজুড়ে ছিলো উৎসব আমেজ।

সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা এমএম আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় ছিলো সকালে উদ্বোধন ও সূবর্ণ জয়ন্তী র‌্যালি, আলোচনা সভা, দুপুরে গুণীজন সংবর্ধনা ও মধ্যাহ্ন ভোজ, বিকালে বিদ্যালয়ের ব্যাচ ভিত্তিক স্মৃতিচারণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *