পেকুয়ায় চাঁদার দাবিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে ব্যবসায়ী আহত, আটক-২


 

পেকুয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় চাঁদার দাবিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে এক ব্যবসায়ী আহত হওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। আহত ব্যবসায়ীর নাম ফখরুল ইসলাম চৌধুরী মানিক। সে ওই এলাকার মরহুম ফরুখ আহমদ চৌধুরীর ছেলে। ঘটনার দিন রাতে আহতের ছোট ভাই ফরহাদুল ইসলাম চৌধুরী চুট্টু বাদী হয়ে ৭জনের নাম উল্ল্যেখ করে পেকুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ০৩/১৮।

ঘটনার দিন রাতে মামলা রেকর্ড করার পর পেকুয়া থানার এস আই কিশোরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজাহার নামীয় আসামি নুরুল ইসলামকে আটক করতে সক্ষম হয়। পরে একই এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে রফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

সোমবার(১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর আটক রফিককে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় লিটন বাহিনীর প্রধান লিটনসহ ৭/৮জনের তার সহযোগীর একটি দল অস্ত্র সশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বসত ভিটায় গিয়ে ফখরুল ইসলাম চৌধুরী থেকে এক লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে সন্ত্রাসী লিটন বাহিনীর লিটন এ ঘটনা ঘটায়। এসময় সন্ত্রাসীরা ২ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করেছে। লিটন বাহিনীর প্রধান লিটন হেলালী একই এলাকার হেলাল উদ্দিনের পুত্র। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, জবর দখল, হামলা ও অস্ত্র আইনে একাধিক মামলা রয়েছে।

উল্লেখ্য যে, রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের গোঁয়াখালী বকসুচৌকিদার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে লিটন বাহিনীর প্রধান লিটন এলাকা ছাড়া হয়েছে। ঘটনার মূল হোতা লিটন বাহিনীর প্রধান লিটন এখনো পুলিশের ধরাছোয়ার বাহিরে। সে একে একে এ ধরণের কয়েকটি ঘটনার জন্ম দিয়েছে। তাতে পুলিশ তাকে ধরতে কোন ধরণের পদক্ষেপ নেয়নি। সে প্রতিনিয়ত অবৈধ অস্ত্র নিয়ে এলাকায় মহড়া দেয়। এতে মানুষের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে গ্রেফতারের কথা নিশ্চিত করে পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহিরুল ইসলাম খান, বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত অপর আসামীদের ধরতে পুলিশ তৎপর। শীঘ্রই গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওয়তায় আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *