শিক্ষার উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিক: প্রফেসর মান্নান



নিজস্ব প্রতিনিধি, রাঙামাটি:

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান বলেছেন, দেশের শিক্ষার উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিক।

শনিবার (১১আগষ্ট) রাঙামাটি পর্যটন কপ্লেক্সের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি শীর্ষক এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রফেসর মান্নান আরও বলেন, শিক্ষার উন্নয়নের যত কাজে প্রধানমন্ত্রীর কাজে গেছি ততবার তিনি কখনও খালি হাতে ফেরত পাঠায়নি। আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষার মাধ্যমে রাঙামাটিতে দক্ষ মানব সম্পদ সৃষ্টি করা হবে জানান তিনি।

প্রফেসর জানান, সরকার আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর উচ্চ শিক্ষার প্রসার ঘটাতে রাঙামাটিতে বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা একদিন পার্বত্যাঞ্চলকে উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ রাখবে।

রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সৃজনশীল গবেষণা, প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রায়োগিক শিক্ষার সম্প্রসারণ ও সুস্থ নৈতিক শিক্ষার মাধ্যমে সম্প্রীতি, শান্তি ও উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান করার কারিগর হিসেবে শিক্ষকদের শিক্ষার প্রতি আরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তিনি।

রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্টার অঞ্জন কুমার চাকমার সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য প্রফেসার ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের উপ-সচিব শাহীন সিরাজ, মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব জাকিয়া পারভিন প্রমুখ।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান আরও বলেন, রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা শিক্ষার মানন্নোয়নে দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে একদিন। কারণ সরকার পাহাড়ের শিক্ষার্থীরা যাতে ঘরে বসে উচ্চশিক্ষার সুযোগ গ্রহণ করতে পারে তার জন্য এ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন। কিন্তু রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস না থাকার কারণে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কিছু দূর্ভোগে পরতে হয়েছে। তবে এ সমস্যা দ্রুত সমাধান করা হবে।

রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হলেই শিক্ষার্থীরা তাদের নিজস্ব ভবনে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে নিতে পারবে বলে যোগ করেন তিনি।

দিনব্যাপী বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি শীর্ষক এ কর্মশালায় প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক ও কর্মকর্তার অংশগ্রহণ করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে চালু হওয়া রাঙামাটি বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩টি ব্যাচে বর্তমানে ২৬৬জন শিক্ষার্থী অস্থায়ী ক্যাম্পাসে লেখা-পড়া করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *