শান্তি চুক্তি একটি চলমান প্রক্রিয়া: দীপংকর


নিজস্ব প্রতিনিধি:

কেন্দ্রীয় আ’লীগের সদস্য দীপংকর তালুকদার বলেছেন, শান্তি চুক্তি একটি চলমান প্রক্রিয়া। চুক্তির অধিকাংশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় এ নেতা জানান, শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বলেছেন চুক্তির ৭২টি ধারার মধ্যে ৪৮টি ধারা বাস্তবায়ন করা হয়েছে, ৯টি ধারা প্রক্রিয়াধীন।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে রাঙামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গনে জেলা পরিষদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত শান্তি চুক্তির বিশ বছর পূর্তিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমার সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, মহিলা সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান তরুণ কান্তি ঘোষ, ব্রিগেড কমান্ডার গোলাম ফারুক, জোন কমান্ডার মো. রিদওয়ান, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি চিংকিউ রোয়াজাসহ সংগঠনটির অন্যান্য নেতা-কর্মী ও জেলা পরিষদের সদস্যরা।

দীপংকর আরও বলেন, আমরা বলি চুক্তির অধিকাংশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে কিন্তু জেএসএস নেতা ঊষাতন বলেন চুক্তির অনেকাংশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। অধিকাংশ এবং অনেকাংশের পার্থক্য কি তা ঊষাতনের কাছে জানতে চান কেন্দ্রীয় আ’লীগের এ নেতা।

দীপংকর জানান, শুক্রবার যখন প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্স বক্তব্যে বলছিলেন চুক্তির ৪৮টি ধারা বাস্তবায়ন করা হয়েছে এবং ৯টি ধারা প্রক্রিয়াধীন। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনে আমরা হাত তালি দিচ্ছিলাম তখন দেখি ঊষাতন তালুকদারও হাত তালি দিচ্ছেন।

আ’লীগের এ নেতা বলেন, চলতি বছরের ২৯ নভেম্বর সাংবাদিক সম্মেলন করে আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান সন্তু লারমা ও ঊষাতন তালুকদার। তারা বলেছেন, চুক্তির ২৫ শতাংশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে এ হলো তাদের কর্মকাণ্ড।

বক্তব্য শেষে আগত অতিথিরা চুক্তির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন।

এসময় তিনি প্রশাসনের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান অবৈধ অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে প্রদক্ষেপ গ্রহণ করার।

image_pdfimage_print

One thought on “শান্তি চুক্তি একটি চলমান প্রক্রিয়া: দীপংকর


  1. দেখ  ক্ষুধার্ত রহিংগা বাঙ্গালিদের উতবাস্তু শিবির । 
     মুক্তি ছাড়া মিটবে না এ ক্ষুধা আমরা মুক্তিকামী রনবিড় । 
     আরাকান এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে বাঙ্গালি  নিধন প্রকল্পে  ব্যাস্ত ওরা দিন রাত    । 
    আমরা রোহিঙ্গা আমারা বাঙ্গালি  ভেঙ্গেদিব ওদের বিষদাঁত  ।
    সেথায় বানাব  অগণিত মসজিদের দুর্গ করতে  বৈষমমের চির অবসান । 
    লং মার্চ টু আরাকান ।
    ১০
    সবাই রেখে কাঁধে কাঁধ ।
    এস ভেঙ্গেফেলি বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে নির্মিত কাপ্তাই বাধ ।
    জীবন জিবিকার কর্ণফুলী নৌ পথ আবারো করি সচল ।
    মিটেজাক দন্দ পাহার সমতল ।
    সেথায় গড়েতুলি রোহিঙ্গা বাঙ্গালিদের জনপথ রাখতে দেশের সার্বভৌমত্বে অবদান ।
    লং মার্চ টু আরাকান ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *