শাকিব ও অপুর বিরুদ্ধে মামলা করবে প্রযোজকরা


ডেস্ক রিপোর্ট:

শাকিব-অপুর বিবাহবিচ্ছেদে অনেক ছবিই অর্ধসমাপ্ত থেকে যাচ্ছে। বিশাল অঙ্কের লোকসানের মুখে পড়ছে কয়েকটি ছবির প্রযোজক ও পরিচালকরা। তাই ক্ষতিপূরণ চেয়ে দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করবে তারা।

শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিবাহবিচ্ছেদ কার্যকর হলো ১২ মার্চ। অবশ্য এর আগে থেকেই তাঁরা বিচ্ছিন্ন হয়ে যান। এক ছাদের নিচে তো নয়ই, এমনকি একসঙ্গে কোনো চলচ্চিত্রেও আর কাজ করছেন না একসময়ের জনপ্রিয় এ জুটি ও সাবেক দম্পতি।

তাদের এই সাম্প্রতিক বিচ্ছেদে বিপদে পড়েছেন অনেক প্রযোজক ও পরিচালক। অনেক অর্ধসমাপ্ত ছবিই আর করা সম্ভব হচ্ছে না শাকিব-অপুর এই ছাড়াছাড়ির কারণে। সেসব ছবিতে নায়ক-নায়িকার ভূমিকায় নেওয়া হয়েছিল তাঁদের।

‘পাংকু জামাই’, ‘লাভ ২০১৪’, ‘মা’, ‘মাই ডার্লিং’ প্রভৃতি ছবির প্রায় ৭০ শতাংশ শুটিং শেষ করেও বাকি কাজ শেষ করা যাচ্ছে না শাকিব ও অপুর কারণে। যেহেতু পারিবারিক ও ব্যক্তিগত কারণে তাঁরা একে অপরের সঙ্গে দেখা করা বন্ধ করে দিয়েছেন, তাই বিশাল অঙ্কের লোকসানের মুখে পড়তে যাচ্ছেন এসব ছবির প্রযোজকরা।

আর এ কারণেই আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার চিন্তা করছেন অনেকে। যেমন ‘মাই ডার্লিং’ ছবির প্রযোজক মোহাম্মদ হিমেল। তিনি বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরেই অপেক্ষা করছি ছবিটি শেষ করার জন্য। ৭০ শতাংশ শুটিং শেষ করার পর হঠাৎ অপু বিশ্বাস হারিয়ে গেলেন, তারপর কিছুতেই উনার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারিনি।

আবার বছরখানেক পর ফিরে এলেন বাচ্চাসহ। তারপর দেখি, শাকিব খান আর অপু বিশ্বাস একে অপরের সঙ্গে কথাও বলেন না। কিন্তু আমাদের কী হবে? আমরা এই ছবির জন্য এরই মধ্যে প্রায় দুই কোটি টাকা খরচ করেছি, যদি ছবিটি শেষ করতে না পারি, তবে পুরো টাকাটাই লস হিসেবে গণ্য করতে হবে। এটা প্রযোজক হিসেবে আমরা মেনে নেব না, এরই মধ্যে আমরা মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। আগামী দুদিনের মধ্যে আমরা ক্ষতিপূরণ চেয়ে দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করব।’

পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর বলেন, ‘একজন শিল্পী আরেকজন শিল্পীর সঙ্গে প্রেম-ভালোবাসা করতেই পারেন। কিন্তু চলচ্চিত্রকে ভুলে গেলে তো হবে না। আপনারা প্রেম করবেন, সন্তান জন্ম দেবেন, আমাদের কোনো সমস্যা নেই।

কিন্তু আমাদের ছবির কাজটি শেষ করে বাকি সব করুন। এখন আমাদের কাজের সামান্য একটু বাকি রেখে শিডিউল দিচ্ছেন না, এর মানে কী? আমি মনে করি, এদের শাস্তি হওয়া উচিত, যে কারণে মামলা করা ছাড়া কোনো উপায় নেই।’

‘মা’ ছবির পরিচালক কালাম কায়সার বলেন, ‘আমরা ছবির শুটিং শুরু করার কিছুদিন পরই দেখি অপু বিশ্বাস নিখোঁজ। তারপর তো আর শুটিং করতে পারিনি। এখন যা অবস্থা, তাতে এতটুকু বুঝতে পারছি, উনারা আর একসঙ্গে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াবেন না। আমরা কাজ বন্ধ করে বসে আছি। আমার প্রযোজক এর পর থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তিনি আর ছবি বানাবেন না, এরই মধ্যে কয়েকজন প্রযোজক মিলে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

বাংলাদেশ পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘আমি শুনেছি কয়েকজন প্রয়োজক শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরণ মামলা করবেন। আমি মনে করি, তাঁরা তা করতেই পারেন। কারণ, একটি ছবির সঙ্গে একজন প্রযোজকের কোটি কোটি টাকা যুক্ত, পরিচালকের ক্যারিয়ার যুক্ত।’

গত বছর এপ্রিলে ঢাকাই ছবির নতুন নায়িকা শবনম বুবলীর সঙ্গে শাকিব ঘরোয়া পরিবেশে একটি ছবি তোলেন। ছবিটিতে ‘ফ্যামিলি টাইম’ ক্যাপশন লিখে নিজের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রকাশ করেন বুবলী।

এরপরই অপু বিশ্বাসের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে শাকিব খানের। ছবিটি প্রকাশের পর গণমাধ্যমে দীর্ঘদিন গোপনে থাকা বিয়ে ও সন্তানের বিষয়টি খোলাসা করেন অপু। তখন থেকেই শাকিবের সঙ্গে অপুর দ্বন্দ্ব শুরু হয়, যা পরে তালাকানামা পাঠানো পর্যন্ত গিয়ে গড়ায়।

এদিকে, অপু বিশ্বাস ‘পাংকু জামাই’ ছবির নিজের অংশের কাজটুকু শেষ করেছেন। শাকিব খানের অংশ বাদ রেখেই এই ছবি মুক্তি দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

 

নিউজটি বিনোদন বিভাগে প্রকাশ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *