লামা মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম শুরু



লামা প্রতিনিধি :
লামা মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। টিটিএন্ড ডিসিতে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের নবনির্মিত রেষ্ট হাউসটিকে মহিলা কলেজের একাডেমীক ভবন হিসাবে ব্যবহারের প্রাথমিক সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

চলতি সপ্তাহ হতে কলেজ প্রতিষ্ঠার প্রাথমিক অনুমোদন ও পাঠদান অনুমোদন গ্রহণের জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম শুরু করা হবে। লামা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য নিজ নামীয় ২ একর জায়গা দান করেছেন। টিটিএন্ড ডিসিতে একাডেমীক কার্যক্রম চালানোর জন্য আরো জায়গার প্রয়োজন হলে যথাযথ নিময় মেনে লামা উপজেলা পরিষদের জায়গা লিজ প্রদান করা হবে।

সভায় সার্বিক আলোচনা করে কলেজের নাম নির্ধারণ করা হয় “লামা মহিলা কলেজ” বুধবার বিকেলে লামা আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে কলেজ প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত ২য় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন লামা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল, লামা মাতামুহুরী কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তফা জামাল, লামা পৌরসভার মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, মাতামুহুরী কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান, লামা আর্দশ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এ এম ইমতিয়াজ, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা আবু মুছা ফারুকী, লামা পৌরসভার কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি মো. রফিক, লামা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামালুদ্দিন, বিশিষ্ট সমাজ সেবক করিমুল মোস্তফা স্বপন, মুক্তিযোদ্ধা প্রিয়দর্শী বড়–য়া।

কলেজ প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত গঠিত পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব এ এম ইমতিয়াজ জানিয়েছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও বান্দরবান আসনের সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপির ডিও লেটার নিয়ে চলতি সপ্তাহে শিক্ষামন্ত্রণালয়ে কলেজ স্থাপনের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করা হবে।

লামা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাইল জানিয়েছেন, কলেজ প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত প্রশাসনিক কার্যক্রম এ বছর শেষ করে আগামী শিক্ষাবর্ষ হতে ছাত্রী ভর্তি করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু জানিয়েছেন, লামা মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠা করার জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি আন্তরিক। কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *