লামা-আলীকদম সড়কে যাত্রী হয়রানি


আলীকদম প্রতিনিধি:

চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কের বাস সার্ভিসে যাত্রী হয়রানির অভিযোগ উঠেছে।

সম্প্রতি এক স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানি ও অপর এক মহিলা যাত্রীকে মারধর ও মামলার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক মুচলেখা আদায়ের ঘটনায় এলাকায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

যানবাহনে স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় উৎকণ্ঠায় রয়েছেন অভিভাবকরা। সাম্প্রতিক ঘটনার জেরে এ সড়কে চলাচলকারী বাসে লামা থেকে আলীকদমে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের তোলা হচ্ছেনা বলে অভিযোগ উঠেছে।

লামা উপজেলার একজন স্কুলছাত্রীর অভিভাবকের লিখিত অভিযোগে বলেন, ১৩ মার্চ আলীকদম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর বাস (গাড়ি নং- চট্টগ্রাম-জ-১৭৯২) এর সুপারভাইজার আবুল কাসেম (কার্ড নং- ৪৪০০) এক ছাত্রীর গায়ে হাত দেয়।

এ সময় ছাত্রীটি ও তার সহপাঠিরা প্রতিবাদ করে। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট ড্রাইভার থাকেন নিরুত্তর। এ নিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ ১৫ মার্চ পরিবহন নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেন। এ সময় অভিযুক্ত সুপারভাইজার থেকে ঘটনার দায় স্বীকার করে লিখিত অঙ্গিকার নেওয়া হয়।

এ ঘটনার পর থেকে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের বাসে না তোলায় আলীকদম ক্যান্টমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে পড়–য়া লামা উপজেলার ২৩ শিক্ষার্থী যাতায়তে ভোগান্তিতে রয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে।

অপরদিকে স্থানীয় একজন মহিলা যাত্রী জানান, ১৩ মার্চ তারা দুই বোন আলীকদম থেকে চকরিয়া যাচ্ছিলেন। গাড়িতে হেলপারের সাথে বিতর্কের জেরে মহিলা যাত্রীর বেগ নিয়ে টানাটানি করা হয়। পরে বাসটি চকরিয়া বাস স্টেশনের পৌঁছুলে দুইবোনকে আটকিয়ে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে তাদের এক ভাই সেখানে ছুটে গেলে তাকেও মারধরা করা হয়। পরে তাদের কাছ থেকে মুছলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

জানতে চাইলে চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটি সেক্রেটারী মো. রফিক উদ্দিন জানান, বাসের সুপারভাইজার আবুল কাশেম কোন ছাত্রীকে ইভটিজিং করেনি। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তাকে মারধর করা হয়েছে। দুই মহিলা যাত্রীর সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ বিষয়ে দু’পক্ষের মাঝে সমঝোতা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *