লামায় সাংগ্রাই উৎসবে সন্ত্রাসী হামলায় ১৪জন আহত


Bandarban Lama pic-16.4

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

বান্দরবানের লামা উপজেলার সাবেক বিলছড়ি বৌদ্ধ বিহারের সাংগ্রাই উৎসবে স্ব-জাতির সন্ত্রাসী হামলায় শিশু, নারী, ইউপি সদস্যসহ ১৪জন আহত হয়েছে।

আহতরা হলেন ওসাসিং মার্মা (৩৫), থোয়াইনু মার্মা (৩২), মংসা অং মার্মা (৫৪), চ মং মার্মা (৩৫), উক্য মার্মা (২৬), মংথোয়াই মার্মা (৫০), অংচুই থোয়াই মার্মা (১৮), হা নু মং মার্মা (২৭), হায় অ মার্মা (৪১), মংসাইচিং মার্মা (২৬), লাচ চিং মার্মা (১৮), পাই চিং কই মার্মা (৩৮), ওয়াই নু মার্মা (৩২) ও থুই চিং (১২)।

সূত্র জানায়, উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের রবিবার ছোট বমু মার্মা পাড়া হতে মার্মা সম্প্রদায়ের তরুণ-তরুণী ও শিশুরা সাবেক বিলছড়ি বৌদ্ধ বিহারের সাংগ্রাই উৎসবে যোগ দিতে আসে। পূর্ব শুত্রুতার জের ধরে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা তাদের উপর অতর্কিত হামলা করে।

স্থানীয়রা জানান, দু’দিন আগে ছোট বমু মার্মা পাড়ার এক মার্মা তরুণীর সাথে সাবেক বিলছড়ি নিচের মার্মা পাড়ার এক মার্মা তরুণের প্রেম সম্পর্কের অবনতি হয়। সেই পূর্ব শত্রুতার জের ধরে স্থানীয় উশৈহ্লা মার্মা (২৯), রাজীব মার্মা (২৫), অংচিং মার্মা (২৪) ও উক্য ওয়াং মার্মা (২০) নেতৃত্বে পরিকল্পিত ভবে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সাবেক বিলছড়ি নিচের মার্মা পাড়ার ৪০/৫০ জন লোক দেশীয় অস্ত্র ও লাঠি সোটা নিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। হামলায় ছোট বমু মার্মা পাড়ার নারী, পুরুষ ও শিশু আহত হন।

আহত ছোট বমু এলাকার ইউপি মেম্বার ওসাসিং মার্মা জানান, এ হামলা ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত করেছে। আমরা আইনী প্রতিকার চেয়ে মামলা করব।

লামা থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, আহতদের লামা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তি করে দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *