লামার দম্পতি খুনের ঘটনায় আটক-২


Lama pic-2.4.2017
নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:
বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ইয়াংছার পূর্ব ছোট পাড়ায় বৃদ্ধ দম্পতি হত্যার দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার চট্টগ্রামের ইপিজেড এলাকা থেকে ৩ ঘাতকের দু’জনকে আটক করা হয়।

আটকৃতদের মধ্য দম্পতির সর্ম্পকের নাতী মংআইচিং মার্মা (২২), সে ক্য ম্রাচিং মার্মার ছেলে। অন্যজন খাগড়াছড়ি উপজেলার ধর্মগড় হাদুকপাড়ার ধর্মজয় ত্রিপুরার ছেলে এ্যলিও ত্রিপুরা (২১)। মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে সাত দিনপর সরাসরি হত্যান্ডে জড়িত আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অন্য আরেকজনকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

আটককৃতদের বিকেলে লামা উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আলী আক্কাসের আদালতে তারা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়।

জবানবন্দী অনুযায়ী, মংআইচিং তার দুই সহযোগীসহ তার নানা-নানীকে ঘুমন্ত অবস্থায় জবাই করে হত্যা করে। ৯ মাস আগে সে নানা-নানীর ঘর থেকে নগদ ৪৭ হাজার টাকা চুরি করে। চুরির ঘটনাটি জানাজানি হলে তাকে সামাজিক বিচারে শাস্তি দিয়ে টাকা ফেরত দিতে চাপ প্রয়োগ করা হয়। এক পর্যায়ে টাকা ফেরত দিতে না পেরে সে নানা-নানীকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতেই তিনজন মিলে ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে জবাই হত্যা করে পালিয়ে যায়।

লামা থানা পুলিশের ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, গ্রেফতারকৃতরা হত্যাকান্ডে সরাসরি জড়িত বলে আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। পলাতক অন্য আসামিকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

২৪ মার্চ দিবাগত রাতে ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ক্যহ্লাচিং মার্মা (৭০) ও তার স্ত্রী চিংহ্লামে মার্মাকে (৬৬) গলা কেটে হত্যা করে টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় নিহত দম্পতির ছেলে উহ্লামং মার্মা বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *