লংগদুতে বর্ণিল আয়োজনে বৈসাবি ও বর্ষবরণ


লংগদু প্রতিনিধি:

রাঙামাটির লংগদু উপজেলার বিভিন্ন পাহাড়ি পল্লিতে বৈচিত্রময় ও বর্ণিল আয়োজনের মধ্যদিয়ে শেষ হয়েছে জুম্ম জাতির প্রাণের উৎসব চাকমাদের বিজু, মারমাদের সাংগ্রাই আর ত্রিপুরাদের বৈসু। সব মিলিয়ে বৈসাবি এবং সেই সাথে বাংলা বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। বৈসাবি ও বর্ষবরণ উৎসবের মধ্যে দিয়ে পুরাতন বছরের গ্লানিকে বিদায় দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানানো এবং পাহাড়ি-বাঙ্গালীর মধ্যে শান্তি-সম্প্রীতি ও ঐক্য আরও সুদৃঢ় হওয়ার প্রত্যাশা ছিলো সকলের।

প্রতিবছরের ন্যায় এবার লংগদু উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বৈসাবি ও বর্ষবরণ উদযাপন অনুষ্ঠান ছিলো কিছুটা ব্যতিক্রমী। সাধারণ পাহাড়ি-বাঙ্গালীদের পাশাপাশি এবছর নিরাপত্তা বহিনীর স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মত।

উপজেলার বামে আটাকরছড়া এলাকায় বামে আটারকছড়া কল্যাণ সংঘ’র উদ্যোগে ২৮তম চৈত্র সংক্রান্তি ও বৈসাবি উপলক্ষে বিভিন্ন খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আটারকছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মঙ্গল কান্তি চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে পুরস্কার বিতরণ করেন লংগদু জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী এসজিপি, পিএসসি। এসময় বামেছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কল্যাণ মিত্র চাকমা, হেডম্যান সুশাংক চাকমাসহ বিভিন্ন গণ্যমান্যগণ উপস্থিত ছিলেন। শেষে জোন কমান্ডার অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটিকে পাঁচ হাজার টাকা প্রদান করেন।

এছাড়া জোন কর্তৃক আয়োজিত মেডিক্যাল ক্যাম্পেইন এর মাধ্যমে অনুষ্ঠানে আসা দুইশত পঁচিশ জন পাহাড়ি জনসাধারণকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও শতাধিক নারী পুরুষের রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করে সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে জোন কমান্ডার নিজেই ক্ষুদে শিল্পিদের সাথে একটি পাহাড়ি গান ও একটি বাঙ্গালী গান পরিবেশন করেন। যা পাহাড়ীদের নিকট ছিলো অপ্রত্যাশিত। এদিন বিকালে ফুটবল খেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকায় প্রায় তিন হাজার পাহাড়ি বাঙ্গালী দর্শক সমাগম হয়। 

অপরদিকে উপজেলার উত্তর রেংকাইজ্জা, ডানে লংগদু এবং দক্ষিণ মাহিল্যা এলাকায় বৈসাবি উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠান মালার আয়োজন করা হয়। কোন কোন স্থানে সংমিশ্রণ হয়ে বাংলা নববর্ষ পালন করা হয়। বেশিভাগ অনুষ্ঠানে লংগদু জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী স্বপরিবারে উপস্থিত থেকে সাধারণ পাহাড়ি-বাঙ্গালীর আনন্দের মাত্রাটুকু বহুগুণে বাড়িয়ে দিয়েছেন। বিভিন্ন খেলাধুলার পাশাপাশি এখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আয়োজক কমিটির সাথে সমন্বয় করে জোনের পক্ষ থেকে বিশেষ পুরস্কার ও খেলাধুলার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

আটারকছড়া ইউনিয়নের যুব সমাজ তাদের উত্তর রেংকাইজ্জা এলাকাকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে মালাকে মাদকের বিরুদ্ধে উৎসর্গ করায় লংগদু জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী তাদের ভূয়শি প্রশংসা করেন।

এসময় রাঙামাটি জেলা পরিষদের সদস্য মো. জানে আলম, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের সদস্য স্বতরূপা চাকমা, আটারকছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মঙ্গল কান্তি চাকমা অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে কমপক্ষে পাঁচ হাজার জনসাধারণ(দর্শক) উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিতিদের মধ্যে সকলেই মাদককে না বলার দৃঢ় অঙ্গিকার ব্যাক্ত করেন। সকল বক্তাই সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকাণ্ডের জন্য অভূতপূর্ব উন্নতির কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন। এবং শান্তি সম্প্রীতি উন্নয়ন ধারাকে বেগবান করে ভবিষ্যতেও এই ধরণের অনুষ্ঠান আকর্ষনীয় অঙ্গিকার ব্যক্ত করে যা স্থানীয় জনগণের মাঝে বিশেষ করে যুব সমাজে ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *