রোহিঙ্গাদের ঢল সমর্থনযোগ্য নয়: বাংলাদেশ


পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

মিয়ানমারের সহিংসতায় ১০ লাখ রোহিঙ্গার বাংলাদেশে পালিয়ে আসায় সমর্থন করা যায় না। সোমবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় রোহিঙ্গাদের জন্য প্রতিশ্রুতি সম্মেলনে জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের দূত শামীম আহসান এ কথা জানিয়েছেন। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশের আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন তিনি।

সম্মেলনে শামীম আহসান বলেন, ১৯৯৪ সালে রোয়ান্ডার গণহত্যার পর কোনও একটি দেশ থেকে সবচেয়ে বেশি মানুষ বিতাড়িত হওয়ার ঘটনা এটি। এরপরও রাখাইনে সহিংসতা বন্ধ হয়নি। প্রতিদিন হাজারো রোহিঙ্গা বাংলাদেশ আসছে।

তিনি আরও বলেন, কিন্তু মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের অবৈধ বাংলাদেশি হিসেবে উল্লেখ করে প্রপাগান্ডা চালাচ্ছে। এই ভয়ানক অস্বীকার রোহিঙ্গাদের জাতিগত স্বীকৃতির পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছে।

রোহিঙ্গা সংকটের দীর্ঘমেয়াদি সমাধান নিয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনা করতে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সোমবার ইয়াঙ্গুন সফরে গেছেন বলেও জানিয়েছেন শামীম আহসান।

২৫ আগস্ট পুলিশ ফাঁড়িতে আরসা’র হামলার পর রাখাইনে সেনা অভিযান জোরদার করে মিয়ানমার। অভিযানে সহিংসতায় প্রায় ৬ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। জাতিসংঘ সেনা অভিযানকে রোহিঙ্গাদের জাতিগত নিধন হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। বিভিন্ন রাষ্ট্র প্রধান ও মানবাধিকার সংস্থা রোহিঙ্গারা গণহত্যার শিকার হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন। মিয়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনী এসব অভিযোগ অস্বীকার করে সহিংসতার জন্য রোহিঙ্গাদের দায়ী করেছে।

জেনেভা সময় রবিবার সকালে জাতিসংঘের তিনটি মানবিক সহায়তা বিষয়ক সংস্থা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং কুয়েতের উদ্যোগে প্রতিশ্রুতি সম্মেলনে বসে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। সম্মেলনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের সহায়তায় আরও সাড়ে তিন কোটি ডলার দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থীর জন্য ৪৩৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থ সহায়তা প্রয়োজন।

সূত্র: রয়টার্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *