রামুর খুনিয়াপালংয়ে ভূট্টা চাষের মাঠ দিবস পালিত


রামু প্রতিনিধি:

রামু উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু মাসুদ সিদ্দিকী বলেছেন, মানুষের খাদ্য ঘাটতি পূরণে অধিক ফসল উৎপাদন করতে হবে।  এ জন্য কৃষকদের ফসলের উন্নত জাত ও আধুনিক প্রযুক্তি যথাযথ প্রয়োগ করতে হবে। সরকার কৃষকদের বিভিন্নভাবে ভর্তুকি দিয়ে অধিক ফসল উৎপাদনের মাধ্যমে দেশের খাদ্য ঘাটতি পূরণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এজন্য কৃষি কাজে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার, কৃষকদের বিনামূল্যে সার, বীজসহ কৃষি উপকরণ বিতরণ করছে। এ কারণে দেশের কৃষিক্ষেত্রে এসেছে সফলতা। ফসল উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে অন্যতম সফলতা অর্জনকারী দেশ হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে।

তিনি মঙ্গলবার রামু উপজেলার খুনিয়াপালং দারিয়ারদিঘী গ্রামে ভূট্টা চাষের মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

রবি ২০১৭-২০১৮ মৌসুমে রাজস্ব খাতের অর্থায়নে বাস্তবায়িত প্রদর্শনীর আওতায় রামু উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, স্থানীয় সমাজসেবক হাজ্বী ছাব্বির আহমদ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আলী আহমদ, সাংবাদিক সোয়েব সাঈদ, উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোস্তফা জাবেদ চৌধুরী, স্থানীয় সমাজসেবক কবির আহমদ, আনোয়ার কোম্পানী, মাস্টার সুলতান আহমদ। অনুষ্ঠানে কৃষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আবদুল খালেক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু মাসুদ সিদ্দিকী ধানি জমি পতিত না রেখে সেখানে ভূট্টা চাষ করা যায়। ভূট্টা চাষ সহজ এবং লাভজনক। ভূট্টা চাষ করে নিজেদের খাদ্য, পশু খাদ্য এবং জ্বালানীও সংগ্রহ করা যায়। ভূট্টা চাষ নিয়ে অনেকে অবগত ছিলো না। এখন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রদর্শনী দেখে এখানকার কৃষকরা দিনদিন ভূট্টা চাষে আগ্রহী হচ্ছে। ভূট্টা চাষিদের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *