রামুতে বর্ণিল মাঠে হাজারও ছাত্রীর কন্ঠে জাতীয় সংগীতের মূর্ছনা


রামু প্রতিনিধি:

লাল-সবুজের শাড়িতে সেজেছে হাজারও ছাত্রী। উপরে বিশাল জাতীয় পতাকা। বর্ণিল মাঠে হাজারও ছাত্রী সমবেত কন্ঠে গেয়ে উঠলো জাতীয় সংগীত ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি, চিরদিন তোমার আকাশ, তোমার বাতাস, আমার প্রাণে, ওমা আমার প্রাণে বাজায় বাঁশি, সোনার বাংলা’। সহস্র কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনকালে মাঠজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে সূরের মূর্ছনা।

সর্বকালের শ্রেষ্ঠতম এ ব্যতিক্রমী আয়োজনে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেছে রামু উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের একহাজার ছাত্রী। রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. শাজাহান আলি’র নির্দেশনায় সম্পন্ন হওয়া এ আয়োজন সর্বত্র সাড়া জাগিয়েছে। যা অনুষ্ঠানে আসা অতিথিবর্গ এবং সংস্কৃতিকর্মীদেরও অনুপ্রাণিত করেছে।

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে রামু স্টেডিয়ামে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত অনুষ্ঠানে লাল-সবুজ শাড়ি পড়ে সহস্র কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। জাতীয় সংগীত পরিবেশনকালে মাঠে শোভা পায় ১০০ ফুট দীর্ঘ জাতীয় পতাকা।

অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীত পরিবেশনকালে উপস্থিত ছিলেন, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাজাহান আলি, রামু থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম লিয়াকত আলী, ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এম জয়নাল আবেদীন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির দাতা সদস্য ইউনুচ রানা চৌধুরী, শিক্ষানুরাগী সদস্য গিয়াস উদ্দিন কোম্পানীসহ গনমান্য ব্যক্তিবর্গ।

রামু উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাজাহান আলি জানিয়েছেন, স্বাধীনতার চেতনায় নতুন প্রজন্মকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে সহস্র কন্ঠে ছাত্রীদের জাতীয় সংগীত পরিবেশনের এ উদ্যোগ নিয়েছিলাম। এ আয়োজন শিক্ষার্থীদের দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করার পাশাপাশি জাতীয় সংগীতের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ ও সংস্কৃতিতে নতুন মাত্রা এনে দিয়েছে।

এ আয়োজনের সমন্বয়ক সহকারী শিক্ষক সুমথ বড়ুয়া জানিয়েছেন, ঢাকায় স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সাথে সাথে রামু উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের হাজারও ছাত্রী সমবেত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করে।

জাতীয় সংগীত পরিবেশনে আরও অংশ নেন, বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক মোতাহেরা বেগম, সহকারী শিক্ষক শিপ্রা পাল, লাভলী বড়ুয়া, মিনাক্ষী বড়ুয়া, ক্রীড়া শিক্ষক আঙ্গুর বালা দাশ, ইসমত আরা, খুরশিদা বেগম, ছালাতম উল্লাহ, নিলুফা ইয়াছমিন, বিজয় লক্ষী, মিরাশ্রী দত্ত, হাসিনা বানু, পটল বড়ুয়া, রনজিত কুমার দে, ইয়াছিন, লুৎফুন্নেছা প্রমুখ।

জাতীয় সংগীতে অংশ নেয়া বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী প্রেরণা বড়ুয়া স্বস্তি ও ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী আফরা বিন শামস্ জানিয়েছে, এতবড় পরিসরে জাতীয় সংগীতের আয়োজন তারা কখনও দেখেনি। এখন নিজেদের বিদ্যালয়ের আয়োজনে এভাবে অংশ নিতে পারায় তারা আনন্দিত। এভাবে জাতীয় সংগীত পরিবেশন তাদের যেমন দেশপ্রেম শিখিয়েছে তেমনি জাতীয় সংগীতের প্রতি বাড়িয়েছে আকর্ষণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *