parbattanews bangladesh

রামগড়ে প্রথম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

রামগড় প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির রামগড়ে প্রথম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মনছুরুল আলম(৩০) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার(২৮ আগস্ট) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ ও ভিকটিমের পরিবার সূত্রে জানাযায়, রামগড় পৌরসভার দক্ষিণ গর্জনতলী এলাকায় সোমবার বিকালে সঙ্গীদের সাথে খেলাধুলা করার সময় মনছুরুল আলম ৭ বছর বয়সের ওই শিশু কন্যাটিকে পেয়ারা দেয়ার কথা বলে পাশের জঙ্গলে নিয়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ পরও শিশুটি ফিরে না আসায় খেলারসঙ্গীরা বাসায় গিয়ে তার স্বজনদের ঘটনাটি জানায়। পরে স্বজনরা শিশুটিকে খুঁজতে বের হন। সন্ধ্যা ৬টার দিকে তাদের বাড়ির পাশের জঙ্গলে শিশুটিকে খুঁজে পান তারা।

শিশুটি জানায়, মনছুর তার মুখ চেপে ধরে এবং নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে চিৎকার করতে বারণ করে। এসময় সে শিশুটি যৌন নিপীড়ন করে এবং জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। স্বজনরা শিশুটিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করলে মনছুর তাকে বনের ভিতর রেখে পালিয়ে যায়। শিশুটি সোমবার সকালে মায়ের সাথে দক্ষিণ গর্জনতলীতে তার নানার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। সে রামগড়ের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণীতে পড়ে।

এদিকে ঘটনাটি প্রকাশ হলে এলাকার লোকজন মনছুরকে ধরতে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মনছুরকে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে এলাকাবাসী। সে পুলিশের কাছে শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টার কথা স্বীকার করেছে। মনছুর একই এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক মো. আব্দুল হান্নান বলেন, মনছুরুল আলমের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ১০ ধারায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। মঙ্গলবার(২৮ আগস্ট) আসামীকে খাগড়াছড়ি জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করার পর আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।