রামগড়ে কথিত ধর্ষণের শিকার ত্রিপুরা কিশোরীর আত্মহত্যার চেষ্টা


Ramgarh 18.2

রামগড় প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ি জেলার রামগড়ে কথিত ধর্ষণের শিকার এক ত্রিপুরা উপজাতীয় কিশোরী বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার দুপুরে এ ব্যাপারে রামগড় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন  ধর্ষিতার বাবা। মামলা রুজুর পর পুলিশ রামগড় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও ধর্ষিতা জানায়, উপজেলার ১ নং রামগড় ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের প্রত্যন্ত পাহাড়ি পল্লী রুপাইছড়ির বাসিন্দা সম্ভা চরণ ত্রিপুরার ১৫ বছর বয়সী কিশোরীকে  বুধবার গভীর রাতে পার্শ্ববর্তী এলাকা খাগড়াবিলের হানিফ বাচ্চুর ছেলে মো. হাসান(২৫) জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। রুপাইছড়ির জঙ্গলে নিয়ে হাত পা বেধে দুদিন ধরে তাকে ধর্ষণ করে হাসান।

শুক্রবার ভোর বেলায় সে বাড়ি ফিরে এসে বাবা, মা ও আত্মীয়-স্বজনদের ঘটনাটি জানায়। কিশোরীর আপন খালু ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার নবরায় ত্রিপুরা বলেন, হাসানের সাথে তার ভাগ্নির দীর্ঘদিনের সম্পর্ক ছিল। বুধবার রাতে সে স্বেচ্চায় ওই ছেলের সাথে চলে যায়।

শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে খাগড়াবিলের ডাক্তার মোস্তফার বাড়ির পাশের রাস্তায় জনৈক পথচারি মেয়েটিকে দেখে  মোবাইল ফোনে খবরটি জানালে আত্মীয় স্বজনরা গিয়ে তাকে বাসায় নিয়ে আসে।

তিনি জানান, দুদিন ধরে বাহিরে থাকার বিষয় নিয়ে তাকে স্বজনরা জিজ্ঞাসাবাদ ও গালমন্দ করলে এক মূহুর্তে সে ঘরের ভিতরে গিয়ে ক্ষেতে ব্যবহারের জন্য রাখা বিষ পান করে। পরে তাকে দ্রুত রামগড় হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়।

বাড়ি থেকে জোরপূর্বক তুলে নেয়ার অভিযোগ সত্য নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ৪১টি পরিবারের ওই বসতি থেকে কাউকে জোর করে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। তিনি আরও বলেন, একটি গোষ্ঠী এ ঘটনাকে নিয়ে সাম্প্রদায়িক ইস্যু তৈরি করে আন্দোলন করার পাঁয়তারা করছে।

এদিকে শুক্রবার সকাল ১১টা ২০মিনিটে রামগড় হাসপাতালে বিষ পানের রুগী হিসাবে ভর্তি করার পর সে অনুযায়ী চিকিৎসা চলছিল।

শনিবার দুপুরে কিশোরীটি ধর্ষণের শিকার হওয়ার ঘটনাটি প্রকাশ পায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত এক সিনিয়র নার্স জানান, শনিবার দুপুরে পুলিশের অনুরোধে মেয়েটির চেকআপ করা হয়। বাহ্যিকভাবে ধর্ষণের কোন আলামত তিনি পাননি বলেও জানান।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. মাইন উদ্দিন খান শনিবার দুপুরে হাসপাতালে এসে মেয়েটির ও তার বাবার বক্তব্য নেন। পরে ওসির পরামর্শে কিশোরীর বাবা সম্ভা চরণ ত্রিপুরা শনিবার বেলা ২টার দিকে থানায় গিয়ে একটি এজাহার দায়ের করন।

ওসি মো. মাইন উদ্দিন খান বলেন, ওই কিশোরীর পিতা সম্ভা চরণ ত্রিপুরা খাগড়াবিলের হানিফ বাচ্চুর ছেলে মো. হাসানকে আসামী করে  অপহরণ পূর্বক ধর্ষণের সংশ্লিষ্ট ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা রুজুর পর শনিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আসামীকে ধরতে পুলিশ ইতিমধ্যে তৎপরতা শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *