রামগড়ে দুই বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: ১০ লক্ষ টাকার মালামাল লুট



রামগড় প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির রামগড়ের বলিপাড়া গ্রামে শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) গভীর রাতে একই সময় দু’টি বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনার ঘটেছে। ডাকাতরা নগদ প্রায় ৫ লক্ষ টাকাসহ ১০ লক্ষাধিক টাকার স্বর্ণালঙ্কার ও মালমাল লুট করে নিয়ে গেছে। ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে একজন প্রবাসী গৃহকর্তা আহত হয়েছেন।
পুলিশ ও ডাকাতির শিকার পরিবার দু’টির লোকজন জানান, শনিবার রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ববলিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সাবেক ইউপি মেম্বার আবুল হোসেন ও প্রবাসী ফয়েজ আহম্মদের বাড়িতে সশস্ত্র ডাকাতদল হানা দেয়। তারা ফয়েজ আহম্মেদের মাটির তৈরি ঘরের দরজার চিটকিনি ভেঙ্গে এবং আবুল হোসেনের ভবনের কলাপসিবল গেটের তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে।

ডাকাতরা প্রথমেই দেশীয় অস্ত্রেরমুখে ঘরের মহিলা, পুরুষ সকলের হাত, মুখ, চোখ বেঁধে ফেলে। এসময় আলমিরার চাবি ও স্বর্ণালঙ্কার দিতে গড়িমসি করলে ডাকাতরা তাদের শিশুদের গলায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দেয়। তারা দু’টি বাড়ির ঘরের আলমিরাসহ আসবাবপত্র ভেঙ্গে তছনছ করে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কারসহ সমস্ত মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

দুবাই প্রবাসী ফয়েজ আহম্মেদ জানান, ৮-৯ জন মুখোশপরা ডাকাত ঘরে ঢুকেই প্রথমে তাকে কুপিয়ে জখম করে। আলমিরার চাবি দিতে রাজী না হওয়ায় তার দেড় বছরের শিশু পুত্রকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করার হুমকি দেয়। এতে তিনি আলমিরার চাবি দেয়ার পর ডাকাতরা ঘরের একটি কক্ষে তাকে ও তার স্ত্রী পুত্রকে হাত, মুখ বেঁধে আটকিয়ে রাখে। তারা ঘরের প্রতিটি কক্ষের আলমিরাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র তছনছ করে। তিনি বলেন, প্রায় পৌনে এক ঘন্টা তাণ্ডব চালিয়ে নগদ প্রায় দুই লক্ষ টাকা, চার ভরি ওজনের স্বর্ণের বিভিন্ন অলঙ্কার, দু’টি দামি মোবাইল ফোন সেট, চার্জ লাইটসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুটে নিয়ে যায়।

সাবেক ইউপি মেম্বার আবুল হোসেন বলেন, ডাকাতরা বাসার কলাপসিবল গেটের তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে তাদের সবাইকে জিম্মি করে। পরে ঘরের সবাইকে হাত, মুখ চোখ বেঁধে ফেলে। মহিলাদের শরীর থেকে টেনেহেঁচড়ে স্বর্ণালঙ্কার ছিনিয়ে নেয়। পরের ঘরের প্রতিটি কক্ষে ঢুকে আলমিরা ভেঙ্গে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

তিনি জানান, ডাকাতরা তার বাসা থেকে নগদ প্রায় আাড়াই লক্ষ টাকা, ৬ ভরি বিভিন্ন স্বর্ণালঙ্কার, দামি কাপড় চোপড়, ৮টি মোবাইল সেটসহ ঘরের বিভিন্ন মালামাল নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, তার দুই ছেলে প্রবাসী। বিদেশ থেকে আনা বিভিন্ন দামি জিনিসপত্রগুলো তারা তন্নতন্ন করে খুঁজে বের করে নিয়ে গেছে। মুখোশপরা ৮-১০জন ডাকাত প্রায় এক ঘন্টা পর্যন্ত তার বাসায় তান্ডব চালায়। ডাকাতি শেষে চলে যাওয়ার পর প্রতিবেশীদের ঘুম থেকে তুলে ঘটনা জানানোর পর মসজিদের মাইক থেকে প্রচার করা হয়।
এদিকে ডাকাতির খবর পেয়ে রাতেই থানা থেকে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে যায়।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শরীফুল ইসলাম জানান, তিনি ও রামগড় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ মো. ফরহাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

তিনি বলেন, পরিচিতি কারও সহযোগিতায় বাড়ি দু’টিতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে বলে তার ধারণা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কেউ কোন মামলা দায়ের করেনি বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *