রামগড়ের অপহৃত চাইথুই’র উদ্ধারের ভুয়া খবর, ওসির সাথে ধোঁকাবাজি!


রামগড় প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির রামগড়ের অপহৃত চাইথুই মারমা(৫৫)কে ফেনীতে উদ্ধারের ভুয়া খবর দিয়ে  ধোঁকা দেয়া হয়েছে পুলিশকে।

রবিবার মোবাইল ফোনে ফেনী সদর থানার এক  পুলিশ কর্মকতার পরিচয় দিয়ে মহিপাল এলাকা থেকে তাকে উদ্ধারের মিথ্যা খবর দেয়া হয় রামগড় থানার ওসিকে।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. শরীফুল ইসলাম জানান, রবিবার বিকেল ৫টার দিকে নিজেকে ফেনী থানার এস আই রিমন পরিচয় দিয়ে ০১৮০৩৩১২৬৫ নম্বর মোবাইল থেকে কল দিয়ে  জানায়  অপহৃত চাইথুই মারমাকে ভোরে মহিপাল এলাকায় হাত পা বাধা ও অচেতন অবস্থায় পেয়ে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি হাসপাতালের ওয়ার্ড নম্বর ২, বেড নম্বর ৭ এ চিকিৎসাধীন আছেন। তার অবস্থা সংকটাপন্ন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেছে ডাক্তার।

খবরটি পাওয়ার পর  রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় অপহৃতর স্ত্রীকে ডেকে এনে রামগড় থানার ওসি(তদন্ত) ও একজন কনস্টেবলের সাথে ফেনী পাঠানো হয়। কিন্তু ফেনী হাসপাতালে গিয়ে চাইথুই নামে কোন রোগীর হদিস পায়নি তারা। পরে  ০১৮০৩৩১২৬৫ নম্বরে কল দেয়া হলে মোবাইলটিরও  সুইচ বন্ধ পাওয়া যায়।

ওসি শরীফুল ইসলাম আরও জানান, কোন প্রতারক মিথ্যা খবর দিয়ে তাদের সাথে ধোঁকাবাজি করেছে। ওই প্রতারককে খুঁজে বের করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

গত ৪ মার্চ গভীর রাতে একদল উপজাতীয় অস্ত্রধারী তাকে রামগড়ের পাকলাপাড়া গ্রামের বাসা থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। জানাযায়,  চাইথুই মারমা এক সময় ইউপিডিএফের সমর্থক ছিলেন। এছাড়া বিএনপিও করতেন।  তিনি ২০১১ ও ২০১৬  সালে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে পাতাছড়া ইউপি চেয়ারম্যান পদে দু’বার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরে যান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি তিনি ইউপিডিএফের বর্মা গ্রুপের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলেন। এ কারণে প্রতিপক্ষ গ্রুপটি তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়।  চাইথুই মারমার অপহরণের প্রতিবাদে ও তার মুক্তির দাবিতে গত  শুক্রবার খাগড়াছড়ি জেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত  হয়েছে।  সমাবেশ থেকে চাইথুই মারমাকে অপহরণের জন্য ইউপিডিএফের প্রসীত গ্রুপকে দায়ি করে সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ করার দাবি জাননো হয়।  তাকে উদ্ধারের দাবিতে সোমবার খাগড়াছড়িতে সকাল সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের কর্মসূচিও দেয়া হয়। পরে প্রশাসনের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে সড়ক অবরোধ কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *