রাঙামাটি বিএনপির সভাপতিসহ আটক ১৩ নেতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা


নিজস্ব প্রতিনিধি:

চলতি বছরের ৫ফেব্রুয়ারি রাতে রাঙামাটিতে বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে আটক হওয়া রাঙামাটি জেলা বিএনপির সভাপতিসহ আটক ৬নেতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা করে রাঙামাটির সিনিয়র চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ মহসিন-এর আদালতে তুলেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার ( ৬ফেব্রুয়ারি) দুপরের দিকে আটককৃতদের আদালতে নিয়ে পুলিশ পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করেছে  বলে জানিয়েছেন কোর্ট ইন্সপেক্টর সাদেকুর রহমান।

অপরদিকে কাপ্তাই উপজেলা থেকে মঙ্গলবার ভোরে উপজেলা যুবদলের সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মো. নুরুল আলম, ওয়াগ্যা ইউনিয়নের শ্রমিকদলের সভাপতি আব্দুল আল মাহিয়ান ডালিম, একই ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম, কাপ্তাই ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য মো. হারুন, মো.ফয়েজ আহম্মদ এবং বিএনপির কর্মী মো. রবিউলক আটক করেছে পুলিশ।

কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মো. নূর ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আটক নেতাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে কাউখালী উপজেলা থেকে উপজেলা ছাত্রদল নেতা সুজনকে পুলিশ আটক করে নিয়ে গেছে বলে জানান, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক দীপন তালুকদার দীপু।

আটক বিএনপির ১৩নেতার বিরুদ্ধে স্ব-স্ব থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ বিজ্ঞ আদালতে পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত ৭ফেব্রুয়ারি পরবর্তী শুনানী দিন ধার্য করে আটককৃতদের হাজতে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করে।

এদিকে বাঘাইছড়ি উপজেলা থেকে বাঘাইছড়ি পৌর ছাত্র দলের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার ( ৬ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে উপজেলা সদরের চৌমহনী এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ ব্যাপারে বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, আটক এ ছাত্রদল নেতা গোপন বৈঠকের মাধ্যমে নাশকতা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান।

রাঙামাটি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক দীপন তালুকদার দীপু বলেন, ৫ফেব্রুয়ারি (সোমবার) রাত থেকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিএনপি নেতাদের গ্রেফতার করে মিথ্যা মামলা দিচ্ছে। যা একটি স্বাধীন গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে কাম্য নয়।

বিএনপির এ নেতা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং অবিলম্বে নেতাদের মুক্তি দিতে সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *