রাঙামাটির জুড়াছড়িতে জেএসএস ছাড়া অন্য প্রার্থীদের নির্বাচনী কার্যক্রম নিষিদ্ধ


index

নিজস্ব প্রতিনিধি :

আগামীকাল ৪ জুন জুরাছড়ি উপজেলায় ইউপি নির্বাচন। অথচ উপজেলা সদরে কিছু মাইকিং লক্ষ করা গেলেও গ্রামে সে আমেজ ছিল না। অভিযোগ রয়েছে জনসংহতি সমিতি সমর্থিত(স্বতন্ত্র) প্রার্থী ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থীর গ্রামে গ্রামে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা নিষিদ্ধ করেছে সংগঠনটি। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে উপজেলা জেএসএসের সাধারণ সম্পাদক সমিত চাকমা।

এমন পরিস্থিতির মধ্যেও এবারের নির্বাচনে জনসংহতি সমিতির দুর্গে হানা দিয়ে জুরাছড়ি সদর ও মৈদং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদ ছিনিয়ে নিতে সর্বচেষ্টা চালাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

তবে অঞ্চলিক সংগঠন জেএসএসের নাম ভাঙ্গিয়ে অজ্ঞাত কিছু সন্ত্রাসী জনসাধারণকে আওয়ামী লীগের প্রচার সভায় যোগদানে বাঁধা ও তাদের সমর্থকদের দুর্গম এলাকায় নিয়ে ভয়-ভীতি ও হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের অভিযোগ রয়েছে। আ.লীগ নেতারা জনসাধারণের নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে প্রশাসনের নিরব ভূমিকায় উদ্বেগ প্রকাশ করছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সূত্রে জানা যায়, শেখ হাসিনার স্বাক্ষরিত দলীয় মনোনয়নে জুরাছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিলা আওয়ামী লীগের সম্পাদিকা মিতা চাকমা ও মৈদং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লাল বিহারী চাকমা চেয়ারম্যান পদে প্রতিদন্দ্বিতা করছেন।

জুরাছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী মিতা চাকমার প্রতিদন্দ্বী জনসংহতি সমিতির সমর্থিত (স্বতন্ত্র) ক্যানন চাকমা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জাপানী বিজয় দেওয়ান।

মৈদং ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী লাল বিহারী চাকমার প্রতিদন্দ্বী জনসংহতি সমিতির সমর্থিত (স্বতন্ত্র) সাধনা নন্দ চাকমা হেডম্যান) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মঙ্গল বিকাশ চাকমা।

মৈদং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী লাল বিহারী চাকমা মুঠো ফোনে জানান, পার্বত্য আঞ্চলিক সংগঠন জেএসএসের নাম ভাঙ্গিয়ে অজ্ঞাত কিছু দুর্বৃত্ত সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আতংক সৃষ্টির চেষ্টা করছে। তবে তারা এতে সফল হবে না। জনগণ আগামীকাল ভোটের মাধ্যমে জনগণ এর জবাব দেবেন।

জানা গেছে, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমার নেতৃত্বে দলীয় প্রার্থীদের জয়ী করতে গত বুধ ও বৃহস্পতিবার ঘিলাতলী, শিলছড়ি বাজারে নির্বাচনী সভা করতে গেলে জনসাধারণকে আওয়ামী লীগের সভায় যোগদানে বাঁধা দেয় অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা।

এছাড়া স্থানীয় হেডম্যান ও কার্বারীদের মুঠোফোনে আওয়ামী লীগের সভা না যেতে হুমকি দেওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা।

শিলছড়ি নির্বাচনী পথসভায় এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রর্বতক চাকমা, যুব লীগের সভাপতি সুমতি বিকাশ দেওয়ান, এড়াইছড়ি মৌজার হেডম্যান রিতেশ চাকমা, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কল্পিতা চাকমা, ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জ্ঞান মিত্র চাকমাসহ ২০জন দলীয় নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *