রাঙামাটিতে ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের বৈঠকে ভারত ফেরত শরণার্থীদের পুণর্বাসনে গুরুত্ব


নিজস্ব প্রতিনিধি, রাঙামাটি:

ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যান (অব.) বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ার উল হক জানান, ভূমি কমিশন নিষ্পত্তির জন্য আমাদের কাছে ২২হাজার আবেদন জমা পড়েছে। শুনানী কার্যক্রম শুরু হলে সেগুলো যাচাই বাছাই করে সমস্যার সমাধান করা হবে।

চেয়ারম্যান আরও জানান, ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের বিধিমালা প্রণয়ন করা গেলে কমিশন কাজ শুরু করতে পারবে। আঞ্চলিক পরিষদ খসড়া বিধিমালা সংশোধনী জমা দিয়েছেন বলে জানান তিনি।

বিচারপতি আরও জানান, তিন পার্বত্য জেলায় আমাদের অফিস নির্মাণ শেষ করা হয়েছে। এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায় আছে।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে রাঙামাটি সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের ৩য় বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

বৈঠক পরবর্তী পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা) বলেন, বিধিমালা প্রণয়ন না হওয়া পর্যন্ত ভূমি কমিশনের কাজ এগিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়। সরকার যত দ্রুত বিধিমালা প্রণয়ন করে দিবে কমিশন তত দ্রুত কাজ করতে পারবে।

ভূমি কমিশনের কাজ কেন শুরু হচ্ছে না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, এ প্রশ্নটা স্থানীয়দের থেকে করা উচিত । তিনি বলেন, আমাদের থেকে যতটুকু প্রস্তাব দেওয়ার দরকার ততটুকু দেওয়া হয়েছে।

চাকমা সার্কেল চিফ ব্যারিস্টার দেবাশিষ রায় বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের জানান, ভারত ফেরত প্রত্যাগত শরণার্থীদের বিষয়ে বৈঠকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। শরণার্থীদের মধ্যে কেউ কেউ ভিটে পেলেও চাষের জমি থেকে বঞ্চিত হয়েছে। মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিলে তাদের পূর্ণবাসনে কার্যক্রম শুরু করা হবে।

এর আগে ওইদিন সকাল ১১টায় রাঙামাটি সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে বৈঠকটি শুরু হয় এবং শেষ হয়- দুপুর আড়াইটায়।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম ভুমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের চেয়ারম্যান (অব.) বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ার উল হক।

এসময় পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা), রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, বান্দরবান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা মারমা, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরি চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের সচিব মো. আলী মনছুর, রাঙামাটি চাকমা সার্কেল চিফ ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়, বান্দরবান বোমাং সার্কেল চিফ উ চ প্রু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি মং সার্কেল চীফ এর প্রতিনিধি শৈলা প্রু চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *