যেসব কারণে বিশ্বকাপ জিতবে ইংল্যান্ড!


পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

প্রাচীন গ্রিস ও চীনে শুরু হলেও আধুনিক ফুটবলের উদ্ভাবক ইংল্যান্ড। অথচ তাদের ঝুলিতে রয়েছে মাত্র একটি শিরোপা। সেই ১৯৬৬ সালে বিশ্বকাপ জিতে তারা। এরপর প্রায় ৫০ বছর অতিক্রান্ত হলেও সোনালী ট্রফিটা আর ছুঁয়ে দেখতে পারেনি ইংলিশরা।

তবে অর্ধশত বছর পর আবারও তা স্পর্শ করে দেখার দ্বারপ্রান্তে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। হ্যা রাশিয়া বিশ্বাকপেই তা আলোর মুখ দেখবে বলে বিশ্বাস ফুটবল-বোদ্ধাদের। এর নেপথ্যে ৫টি কারণ দাঁড় করিয়েছেন তারা।

১. হ্যারি কেন:
রাশিয়া বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন হ্যারি কেন। তার কাধেঁ চড়ে দীর্ঘ ২৮ বছর পর সেমিফাইনালে উঠেছে ইংলিশরা। ৪ ম্যাচে তিনি করেছেন ৬ গোল। প্রায় প্রতি ম্যাচেই গোল পাচ্ছেন তিনি। আগামী কয়েকদিন তার এ ফর্ম অব্যাহত থাকলে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্ব শিরোপা ঘরে তুলবে থ্রি-লায়নসরা, তা জোর দিয়েই বলা যায়।

২. ইস্পাত কঠিন ডিফেন্স:
গোলের কাজটি যেমন করে যাচ্ছেন হ্যারি কেন, তেমন দক্ষ হাতে রক্ষণ সামলে যাচ্ছেন স্টোনস ও মাগুইরে। তাদের যোগ্য সমর্থন দিচ্ছেন কাইল ওয়াকার। এ ত্রয়ীর মেলবন্ধন ছিন্ন করে গোল পাওয়া প্রতিপক্ষের জন্য বেশ কঠিনই বটে!

৩. ক্ষুরধার ফুটবল মষ্কিস্কের কোচ:
বিশ্বকাপের আগে তেমন লাইমলাইটে ছিলেন না ইংলিশ কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। তবে রাশিয়ায় যেভাবে দলকে খেলাচ্ছেন তাতে ইতিমধ্যেই কিংবদন্তির তকমা পেয়ে গেছেন। তার কৌশলের কাছে হার মানতে হতে পারে প্রতিপক্ষকে।

৪. অর্ধশতকের শিরোপা ক্ষুধা:
সেই ১৯৬৬ সালে শিরোপা ঘরে তুলেছে ইংল্যান্ড। এরপর প্রায় ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও তা ছুঁয়ে দেখতে পারেনি তারা। সেই ক্ষুধাই যেন দলের প্রতিটি খেলোয়াড়কে তাতিয়ে তুলেছে। আবারও সোনালী ট্রফিটা স্পর্শ করে দেখতে বদ্ধপরিকর দলের সবাই। তেজদীপ্ত ফুটবল উপহার দিচ্ছেন জন স্টোনস, হ্যারি কেন, ডেলে আলি, রাহিম স্টার্লিং, জর্ডান পিকফোর্ড থেকে শুরু করে সবাই। দলের প্রতিটি পজিশনে খেলোয়াড়দের মধ্যে দুর্দান্ত সমন্বয়ের কারণেই আবারো শিরোপা উল্লাসে মাততে পারেন ইংলিশরা।

৫. ফেভারিট তত্ত্ব:
বিশ্বকাপ শুরুর আগে ফেভারিটের তালিকায় ছিল না ইংল্যান্ড। সেই তারাই চমক দেখিয়ে এখন শিরোপার দৌড়ে। আসলে রাশিয়াতে ফেভারিট তত্ত্ব একটুও খাটছে না। তথাকথিত ছোট দলগুলোর কাছে ধরাশায়ী হয়েছে বড় দলগুলো।

আর এসব বিষয়সমূহ আমলে নিলে শিরোপা উঠতে পারে ইংল্যান্ডের ঘরেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *