parbattanews bangladesh

মুসলিমদের নামাজের সুবিধার্থে জাপানে ‘চলমান মসজিদ’

পার্বত্যনিউজ ডেস্ক:

আসন্ন ২০২০ সালে টোকিওতে আয়োজিত অলিম্পিককে সামনে রেখে ‘মোবাইল মসজিদ’ নামে একটি মেগা প্রকল্প হাতে নিয়েছে জাপান সরকার। এই মোবাইল মসজিদ তৈরীর দায়িত্ব পেয়েছে ইয়ামাগুচিতে অবস্থিত ওসিমাজিকো ইলেকট্রনিক কোম্পানি।

১৯৬৪ সালের পর দ্বিতীয়বারের মতো ২০২০ সালে অলিম্পিক আয়োজন করতে যাচ্ছে এশীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধ দেশটি। টোকিওতে আয়োজিত অলিম্পিক গেমস উপভোগ করতে আসা মুসলমান পর্যটকদের নামাজ পড়তে যাতে কোনো সমস্যায় পড়তে না হয়, এ বিষয়টি মাথায় রেখেই জাপান সরকারের এই অনন্য উদ্যোগ।

জানা যায়, পুরো জাপানে প্রায় ৩০০টি ছোট-বড় স্থায়ী মসজিদ আছে, এর পাশাপাশি মোবাইল মসজিদের মাধ্যমে যেমন অলিম্পিকের মতো বড় আসরের প্রচারণা ও প্রসার কাজ চলছে তেমনি আলিম্পিকে মুসলিমদের আমন্ত্রণ জানানোরও একটি বিশেষ উদ্যোগ এটি।

ইয়ামাগুচির ইলেকট্রনিক কোম্পানি ওসিমাজিকো এ মেগা প্রকল্পের জন্য ১০টি কাভার্ড ভ্যান তৈরি করছে। যার দৈর্ঘ ২০ ফুট লম্বা। ২৫ টন ওজনের বিলাসবহুল কাভার্ড ভ্যানের এ মসজিদে একসঙ্গে ৫০ জন নামাজ পড়তে পারবেন। সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ও আধুনিক সুবিধাসহ এ গাড়িটিকে নামাজের সময় প্রশস্ত করা যাবে। শুধু তাই নয়, এখানে ওযু করারও সুব্যবস্থা থাকছে।

২০১৪ সালে শুরু করা এ প্রকল্পটি সফল করতে ব্যাপক প্রচারণার কাজ হাতে নিয়েছে এর নির্মাতা কোম্পানি। কিছুদিন আগে ইয়ামাগুচি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে একটি মোবাইল মসজিদ গাড়ি আনা হয় নামাজ পড়া ও এর উপযোগিতা যাচাই করার জন্য। এর মাধ্যমে কোম্পানিটি আরও কোনো কিছু সংযোজনের প্রয়োজনীয়তা আছে কিনা এবং কীভাবে করলে ভালো হবে এ বিষয়ে মুসলমানদের পরামর্শ নেন এবং নামাজ পড়ানোর মাধ্যমে এর কার্যকারিতা যাচাই করেন।