মানিকছড়ি থেকে অপহৃত শিশু আনিশাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ


মানিকছড়ি প্রতিনিধি:

মানিকছড়ি থেকে অপহরণের ১৫ ঘন্টার মধ্যে শিশু আনিশা(৩)কে চট্টগ্রাম থেকে অপহরণকারীসহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মানিকছড়ি বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মেসার্স শারমিন ক্লথ স্টোরের মালিক মো. আবদুল হাকিমের ছোট মেয়ে আনিশা আক্তার (৩) গত ১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকাল ৫টার পর প্রতিবেশি ভাড়াটিয়া রুমি আক্তার ওরফে আনিশা চকো/ চকলেট কিনে দেয়ার কথা বলে ফুঁসলিয়ে দোকানে নিয়ে পালিয়ে যায়।

সন্ধ্যার পর মেয়ে বাসায় ফিরে না আসায় অভিভাবকরা খুঁজতে বের হয়। রাত ৯টা পর্যন্ত না পেয়ে বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ বিষয়টি আমলে নিয়ে তৎপর হয়। প্রথমে সন্দেহভাজন রুমির মাতা, ভাই, বোন, খালাসহ ৬জনকে থানায় ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এক পর্যায়ে  রুমি’র মুঠোফোনে কথা হলে আনিশাকে অপহরণের কথা সে স্বীকার করে বলেন, তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে! এ কথা শুনে পুলিশ রুমির প্রকৃত অবস্থান জানার জন্য প্রযুক্তির সহায়তায় মোবাইল ট্রেকিং এর মাধ্যমে অবস্থান নিশ্চিত করেন। পরে রাতেই এসআই গৌতম চন্দ্র দে এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ চট্টগ্রামের বায়েজিত থানা পুলিশের সহযোগিতায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ভোরে এক বাসায় গিয়ে জানতে পারেন যে, গত রাত ৮টার দিকে রুমি ছোট মেয়েটিকে নিয়ে এ বাসায় এলে মালিক মেয়েটির কান্নাকাটি দেখে রুমিকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে বের হয়ে যায়।

পরে পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে সকাল ৮টার দিকে পাশ্ববর্তী বালুছড়া এলাকার সামনে থেকে অপহৃত আনিশাসহ তাকে আটক করে প্রথমে বায়েজিত থানায় এবং পরে মানিকছড়িতে এনে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে নারী ও শিশু অপহরণ মামলা দায়ের করে রবিবার(৩ সেপ্টেম্বর ) সকালে আদালতে প্রেরণ করেন।

থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাইন উদ্দীন খান জানান, পুলিশ শিশু অপহরণের খবর পেয়ে তৎপর হয় এবং প্রযুক্তির সহযোগিতায় অপহরণকারীর অবস্থান নিশ্চিত হয়ে অভিযান পরিচালনা করে অপহৃতকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *