মানিকছড়িতে নিখোঁজের ১৫দিন পরও উদ্ধার হয়নি মোটর সাইকেল চালক মো. মোরশেদ


অপহরণ

মো. ইমরান হোসেনঃ

উপজেলার বড়ডলু মাস্টার পাড়ার বাসিন্দা মো. জয়নাল আবেদীনের পুত্র মো. মোরশেদ (২২) গত ৬ ফেব্রুয়ারী থেকে নিখোঁজ রয়েছে। অনেক খুজাখুজি করেও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। এদিকে মো. মোরশেদ নিখোজের ঘটনায় তার পরিবারে বিরাজ করছে অজানা শঙ্কা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দরিদ্র পরিবারের উদীয়মান যুবক মো. মোরশেদ (২২) প্রতিবেশি মো. ওবায়দুল হকের মোটর সাইকেল ভাড়ায় চালিয়ে আসছিল। প্রতিদিনের ন্যায় গত ৬ ফেব্রুয়ারী সকালে গাড়ী নিয়ে যাত্রী পরিবহনে যায়। কিন্তু সেদিন রাতে বাড়ীতে ফিরে না আসায় মোরশেদের পিতা মো. জয়নাল আবেদীন ছেলের ব্যবহৃত মোবাইলে (০১৮৫৩-০৪২৬১৮) ফোন করলে মুঠোফোনটি বন্ধ পায়।

পরে বিষয়টি অভিভাবকদের সন্দেহ হলে গত ৮ ফেব্রুয়ারী মোরশেদের পিতা মো. জয়নাল আবেদীন মানিকছড়ি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী নং ২৮৪ তারিখ- ৮.২.১৬ খ্রি. রজু করেন। নিখোঁজ মোরশেদ ১০০ সিসি প্লাটিনা মোটর সাইকেল চালাত। গাড়ীর চেচিস নং-MD2A18AZ2FWD-38192, ইঞ্জিন নং-DZZWEDO1643 রং কালো। নিখোঁজ মোরশেদের গায়ের রং- ফর্সা, উচ্চতা- ৫ ফুট ২ ইঞ্চি , মূখমন্ডল গোলাকার। পড়নে ছিল গাবাডিং প্যান্ট ও কালো গেঞ্জি।

নিখোঁজ মোরশেদের পিতা মো. জয়নাল আবেদীন ও পরিবার পরিজনের ধারণা সন্ত্রাসীরা তাকে অপরণ করে নিয়ে হয়তো গুম করেছে! এতো দিন লুকিয়ে কিংবা আত্মগোপনে থাকার মতো ছেলে নয় মোরশেদ। ১৫ দিনেও মোরশেদের খোঁজ না পাওয়ায় পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

এদিকে মাটিরাঙ্গায় অপহৃত শান্ত’র লাশ উদ্ধারের খবরে অজানা আশঙ্কায় মোরশেদের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে।

মানিকছড়ি থানার ও.সি মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, নিখোঁজ ব্যক্তির পিতা এ সংক্রান্ত একটি ডায়েরী করেছে। সে সূত্র ধরে পুলিশ অনুসন্ধান কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *