মাদকের বিরুদ্ধে র‌্যাবের যুদ্ধ ঘোষনা


কক্সবাজার সদর:

কক্সবাজারে র‌্যাবের নতুন আরও পাঁচটি ক্যাম্পের যাত্রা শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) নতুন ৫টি ও আগের ২টিসহ ৭টি ক্যাম্প যৌথভাবে কক্সবাজার সদর, রামু, উখিয়া ও টেকনাফে টহল দিয়ে আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব পালন শুরু করে।

সূত্র জানায়, টেকনাফের ওপারে মিয়ানমার। সীমান্তে পাহারার জন্য বিজিবি এবং নৌপথ পাহারার জন্য কোস্টগার্ড রয়েছে। এ ছাড়া্ও  পুলিশ রয়েছে। তারপরও ইয়াবা পাচার বন্ধ হয়নি। তাই ইয়াবা বন্ধে এই নতুন পাঁচটি ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। 

র‌্যাব সূত্র জানায়, নতুন পাঁচটি ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে টেকনাফের শাহপরীরদ্বীপ, সাবরাং, টেকনাফ সদর, বাহারছড়া ও হোয়াইক্যংয়ে। মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) থেকে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়।

ওইদিন দুপুর আড়াইটায় লিংকরোড় থেকে র‌্যাবের যৌথ টহল শুরু হয়। এতে অংশ নেয় এক সঙ্গে ২৪টি টহল দল। টহল দলটি কলাতলী মোড় হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পূণরায় কলাতলী মোড়ে মিলিত হয়। এরপর সেখান মেরিন ড্রাইভ সড়ক হয়ে সোনারপাড়া সড়ক দিয়ে উখিয়া-টেকনাফ সড়কে উঠে। সেখান থেকে টেকনাফ গিয়ে যৌথ টহল শেষ হয়।

পথিমধ্যে সমুদ্র সৈকতের দরিয়ানগর এলাকায় সংবাদিকদের সাথে কথা বলেন র‌্যাব-৭ কক্সবাজার সিপিসি-২ এর কোম্পানী কমান্ডার মেজর মেহেদি হাসান।

তিনি বলেন, দেশব্যাপী র‌্যাবের ‘চলো যায়, মাদকের বিরুদ্ধে’ শীর্ষক অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। কক্সবাজারকে মাদকমুক্ত করার লক্ষ্যে টেকনাফে নতুন করে র‌্যাবের পাঁচটি ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিক টহলের মাধ্যমে যাত্রা শুরু হয়েছে।

সূত্রে জানা গেছে, নতুন র‌্যাব ক্যাম্প গুলো পরিদর্শনের জন্য আগামী ২ আগস্ট কক্সবাজার আসার কথা রয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও র‌্যাবের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের। এছাড়াও কলাতলীর একটি হোটেলে মতবিনিময় সভা করারও কথা আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *