মাদকাসক্ত মানুষের হাতে দেশ ধ্বংস অনিবার্য: লে. কর্ণেল আনোয়ারুল আযীম


নাইbgb-school-nc-news-pic-17-11-16-copyক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:

নাইক্ষ্যংছড়ি ৩১ বিজিবির জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল আনোয়ারুল আযীম বলেছেন, দেশে শিক্ষার হার অনেক বেড়েছে। সত্যিকারের মানুষ হিসেবে শিশুদের গড়ে তোলতে সুশিক্ষার কোন বিকল্প নেই। আজকের শিশুদের হাতেই দেশ পরিচালনার ভার থাকবে। যদি এ সমাজকে সুন্দর ভাবে, সুষ্ঠভাবে আদর্শ সমাজ গড়ে তোলতে না পারি তাহলে আমরা সবাইয়ে ব্যর্থনার গ্লানি নিয়ে পৃথিবী থেকে যেতে হবে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় নাইক্ষ্যংছড়ি বর্ডার গার্ড সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল আনোয়ারুল আযীম আরও বলেন, নাইক্ষ্যংছড়ির ৭০ কিমি: সীমান্তে অবৈধ উপায়ে কিছু কিছু মাদক পাচার হয়ে থাকে। আর সেসব মাদক নেশায় আসক্ত হচ্ছে যুব সমাজ। মাদকাসক্ত মানুষের হাতে দেশ রেখে যাওয়া সম্ভব নয়। এতে দেশ ধ্বংস অনিবার্য। তাই আমাদের যে, যে অবস্থানে আছি সেখান থেকে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিজ্ঞা-প্রতিরোধ এবং প্রশাসনকে তথ্য দিয়ে সহায়তা করতে হবে। বর্ডার গার্ড সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রা কেউ থামিয়ে রাখতে পারবেনা। এ স্কুলটির মাধ্যমে যাতে আমরা নাইক্ষ্যংছড়িকে দেশের শ্রেষ্ঠ উপজেলা করতে পারি সে জন্য সকলের আন্তরিকতা প্রয়োজন।

জোন এলাকায় বনায়ন গড়ে তোলার কথা জানিয়ে বিজিবি অধিনায়ক বলেন, অবাধে গাছ পাচারের কারণে সবুজ নবায়ন ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। নীতিমালা অনুসরণ করে গাছ কাটতে হবে এবং একটি গাছ কাটলে দুটি গাছ লাগানোর আহ্বান জানান তিনি। এ সময় প্রতি তিন মাস পর পর স্কুলে সমন্বয় সভা, স্কুলের মাঠ ভরাট, এবং শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধির আশ্বাস দেন জোন কমান্ডার।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর শফিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিক শিক্ষায় একজন শিশুর যে ভিত্তি তৈরী হয় সেটা যদি মজবুত না হয় উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে তাদের সফলতা অর্জণ সম্ভব নয়। তাই মজবুত ভিত্তি তৈরীর লক্ষ্যে শিশুদের আরো যতœশীল হওয়ার জন্য অভিভাবক ও শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবু আহমেদ বলেন, অতীতে বিদ্যালয়ের যে ঐতিহ্য রয়েছে সেই ঐতিহ্য রক্ষার জন্য সমাপনী পরীক্ষার্থীদের অবদান রাখতে হবে। বিগত সময়ে আমাদের যে ঐতিহ্য ছিল, সে ঐতিহ্যকে দিন দিন উত্তরণ করার জন্য আমাদের সজাগ থাকতে হবে। এ সময় তিনি পরীক্ষার্থীদের সাহসিকতার সাথে পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য উৎসাহ প্রদান করেন।

সভাপতির বক্তব্যে বিজিবি স্কুলের প্রধান শিক্ষক নুরুল বাশার বলেন, ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিজিবি স্কুল উপজেলায় শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে। বিজিবি ও শিক্ষা বিভাগের সহযোগিতার কারণে শিক্ষার্থী বৃদ্ধির পাশাপাশি স্কুলের সুনাম ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্র। অভিভাবকদের সচেতনতা ও শিক্ষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণে এ অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছে বলে তিনি জানান।         অনুষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: কামাল উদ্দিন বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের হাতে শিক্ষা সামগ্রী তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সহকারী শিক্ষক জয়নাল আবেদীন, জেসমিন আক্তার, মোমেনা আক্তার, খতিজা বেগম, শামসুন্নাহার রুপালী, আবদু সাত্তার, ইয়াছির আরাফাত প্রমূখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সহকারী শিক্ষক ওমর ফারুক, নাইক্ষ্যংছড়ি প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক আবুল বশর নয়ন, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম কাজল প্রমূখ।

সমাপনী পরীক্ষার্থীদের পক্ষে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সালসাবিল আহমেদ তাসফি, উঠান্ট চাক প্রমূখ।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *