মাটিরাঙ্গায় মধ্যযুগীয় কায়দায় নারী নির্যাতনের অভিযোগে পৌর কাউন্সিলর ও আওয়ামীলীগ নেতা গ্রেফতার


Nurul Islam

মুজিবুর রহমান ভুইয়া :

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় সামজিক শালিসের নামে মধ্যযুগীয় কায়দায় নারী নির্যাতনের মতো গুরুতর অভিযোগে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও ৪নং পৌর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো: নুরুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে। জানা গেছে, গত ৯ অক্টোবর ঐ কাউন্সিলর সামজিক শালিসের নামে নাজমা আকতার (১৬) নামে এক যুবতীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। ঘটনাটি ঘটেছে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের আদর্শ গ্রামের রমিজ কেরানীপাড়া এলাকায়।

জানা গেছে, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের আদর্শ গ্রামের রমিজ কেরানীপাড়া এলাকার মো: নুরুল করিম পাটোয়ারীর যুবতী মেয়ে নাজমা আকতার (১৬) গত ১৬ সেপ্টেম্বর মিরসরাই উপজেলার বারইয়ার হাটে তার ভগ্নিপতি মোক্তার হোসেনের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার পথে মাটিরাঙ্গা বাজার থেকে একই এলাকার মো: শাহ আলম (৪৮) তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় নাজমার বৃদ্ধ বাবা স্থানীয়পৌর কাউন্সিলর মো: নুরুল ইসলামকে জানালে তিনি তাকে থানায় জিডি করতে বলেন। সে অনুযায়ী নাজমার বাবা একটি জিডির আবেদন লিখে কাউন্সিলরকে প্রদান করে। কিন্তু তিনি জিডি না করেই জিডি হয়েছে বলে তাকে জানান।

নুরুল করিম পাটোয়ারী তার অভিযোগ উল্লেখ করেন, মো: শাহ আলম নাজমা আকতারকে অপহরণ করে রামগড়ে তার বোনের বাড়িতে রেখে বয়স বাড়িয়ে জন্মসনদ তৈরী করে তাকে সেখানেই জোরপূর্বক বিয়ে করে। সপ্তাহ খানেক পরে নাজমাকে নিয়ে চট্টগ্রাম যায় শাহ আলম। সেখানে বিশ্ব কলোনী এলাকায় ভাড়া বাসায় রেখে প্রায়ই নির্যাতন করে নাজমাকে। অব্যাহত নির্যাতনে নিরুপায় হয়ে নাজমা পাশের বাড়ির মোবাইল থেকে তার মা-বাবাকে ফোন করে বিষয়টি জানায়। তখন তারা কৌশলে লোকজন নেয়ে চট্টগ্রাম গিয়ে বিশ্বকলোনী এলাকা থেকে নাজমা আকতার ও শাহ আলমকে মাটিরাঙ্গা নিয়ে আসে। এবং বিষয়টি স্থানীয় কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মো: নুরুল ইসলামকে জানায়। তখন কাউন্সিলর মো: নুরুল ইসলাম বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করে দেয়ার কথা বলে রমিজ কেরানীপাড়ায় স্থানীয় নুরু মিয়ার দোকানে এক শালিসী বৈঠকের আয়োজন করে। ঐ শালিসী বৈঠকে নাজমা আকতারকে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানুসিক নির্যাতন করে কাউন্সিলর ও তার স্থানীয় সাঙ্গপাঙ্গরা।

ঘটনার পরপরই গুরতর আহত অবস্তায় নাজমা আকতারকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পাশবিক নির্যাতনে গুরতর আহত নাজমা আকতার এখনো মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে। এদিকে ঘটনার দুইদিন পর শনিবার সকালে মাটিরাঙ্গা থানায় ঘটনার মুল নায়ক মো: শাহ আলম ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার কাউন্সিলর আওয়ামীলীগ নেতা মো: নুরুল ইসলামকে বিবাদী করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে অভিযোগ করে নাজমা আকতারের বাবা মো: নুরুল করিম পাটোয়ারী। মাটিরাঙ্গা থানার মামলা নং-০২, তারিখ-১২/১০/২০১৩ই।

অভিযোগ দাখিলের ১২ ঘন্টা পর শনিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ আওয়ামীলীগ নেতা মো: নুরুল ইসলামকে। এদিকে নুরুল ইসলামের গ্রেফতারের খবরে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডসহ পৌর এলাকার আওয়ামীলীগের অনেক নেতাকর্মীকেই উল্লাস করতে দেখা গেছে। মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মাইন উদ্দিন খান মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও ৪নং পৌর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো: নুরুল ইসলামকে গ্রেফতারের বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

One thought on “মাটিরাঙ্গায় মধ্যযুগীয় কায়দায় নারী নির্যাতনের অভিযোগে পৌর কাউন্সিলর ও আওয়ামীলীগ নেতা গ্রেফতার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *