মাটিরাঙ্গায় দেশের প্রথম উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারের উদ্বোধন


09.03

সিনিয়র রিপোর্টার:

তথ্য-প্রযুক্তির ছোয়ায় জেগে উঠেছে পাহাড়ী জনপদ খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা। সারাদেশে দেশের মধ্যে প্রথম এবং পূর্ণাঙ্গ ‘এ্যানড্রয়েড মোবাইল এপ্লিকেশন’ তৈরির ছয় মাসের কাছাকাছি সময়ে মাটিরাঙ্গায় যাত্রা শুরু করেছে দেশের প্রথম ‘উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’। যার মাধ্যমে মাটিরাঙ্গাবাসী খুব সহজেই উপজেলার উন্নয়ন চিত্র ও বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের সেবার তথ্য জানতে পারবে।

বুধবার বেলা ১০টায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দেশের প্রথম এ উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নিবাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান তরুন কান্তি ঘোষ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম তাজু ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারকে ইউনিক ইভেন্ট মন্তব্য করে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি বলেন, পাহাড়ের নিভৃত একটি উপজেলায় এমন উদ্যোগে আমরা গর্বিত ও আনন্দিত। এ উদ্যোগ নি:সন্দেহে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। মাটিরাঙ্গাাকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে ‘উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’। তিনি মাটিরাঙ্গা ডিজিটাল সেন্টারকে এগিয়ে নিতে স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা রাখার আহবান জানান। এ সময় তিনি মাটিরাঙ্গা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টারের জন্য স্থায়ী ভবন নির্মাণের ঘোষণা দেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠা প্রসঙ্গে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নিবাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রগুলো নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তথ্য সেবা যখন মানুষের দোরগোড়ায় তখনও উপজেলা পর্যায়ে এমন সেবা থেকে পিছিয়ে জনগণ। উপজেলা পর্যায়ে এমন সেবা কেন্দ্রের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেই ‘মাটিরাঙ্গা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’ প্রতিষ্ঠা। তিনি বলেন, জনগণকে তথ্য ও সেবা প্রদানে ‘মাটিরাঙ্গা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’ হবে একটি আদর্শ সেবাকুঞ্জ। বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ‘মাটিরাঙ্গা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’ আরেকটি মাইলফলক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে।

‘মাটিরাঙ্গাা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’ থেকে পাওয়া যাবে বিভিন্ন সরকারি ফরম, পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন, ভিজিএফ-ভিজিপি তালিকাসহ বিভিন্ন ধরনের ভাতাভোগীদের তালিকা ও অনলাইনে আবেদন করার সুযোগ। পাওয়া যাবে মাটিরাঙ্গার সকল উন্নয়ন চিত্র ও তথ্য কণিকা। কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, আইন ও মানবাধিকার, পর্যটনসহ জীবন-জীবিকা ভিত্তিক তথ্য ভান্ডার।

এছাড়াও ‘মাটিরাঙ্গাা উপজেলা ডিজিটাল সেন্টার’ থেকে বাণিজ্যিক সেবা সমূহের মধ্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, ই-মেইল, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি দপ্তরে চাকুরীর আবেদন করার সুযোগ, দেশ-বিদেশে ভিডিও কনফারেন্সিং, প্রিন্টিং, স্ক্যানিং, ফটোকপি, লেমেনিটিংসহ বিভিন্ন সুবিধাদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *