মাটিরাঙ্গায় দেশীয় এলজি উদ্ধার


নিজস্ব প্রতিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা থানার পুলিশ চাঁদাবাজি ও ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত একটি দেশীয় এলজি, এক রাউন্ড কার্তুজ, একটি চাইনিজ কুড়াল ও একটি দা উদ্ধার করেছে। চাঁদাবাজি ও ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত আটক চার সন্ত্রাসীর দেয়া তথ্যমতে শুক্রবার রাতে মাটিরাঙ্গার সাপমারা এলাকায় কামাল ত্রিপুরার বসতঘরের সিলিংয়ের উপর থেকে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ এসব অস্ত্র উদ্ধার করে।

তবে এসময় চাঁদাবাজি ও ছিনতাই গ্রুপের প্রধান কামাল ত্রিপুরাকে আটক করতে সক্ষম হয়নি পুলিশ।

অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় কামাল ত্রিপুরাসহ আটক চার সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে মাটিরাঙ্গা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সাহাদাত হোসেন টিটো।

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সাহাদাত হোসেন টিটোর নেতৃত্বে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ খাগড়াছড়ির আলুটিলা পর্যটন এলাকার একটি দোকান থেকে চাঁদাবাজি ও ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত চার সন্ত্রাসীকে আটক করে।

এসময় তাদেরকে তল্লাশী করে পুলিশ তাদের কাছ থেকে ১৬ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাটিরাঙ্গা থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেন উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুনীল চন্দ্র সুত্রধর।

আটককৃতরা হলো, আলুটিলা পর্যটন এলাকার মৃত অংসুমান ত্রিপুরার ছেলে রুদ্রমানিক ত্রিপুরা প্রকাশ বাপ্পি (১৮), পুনর্বাসন এলাকার পরিমোহন ত্রিপুরার ছেলে ফনী বিকাশ ত্রিপুরা (২০), আলুটিলা পর্যটন এলাকার থোয়াইংগ্য মারমার ছেলে আকাশ মারমা (১৮) ও সৌম্যনাথ ত্রিপুরার ছেলে রিংকু ত্রিপুরা (১৮)।

প্রসঙ্গত, আটককৃতরা দীর্ঘদিন ধরে কামাল ত্রিপুরার নেতৃত্বে খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম সড়কের মাটিরাঙ্গা উপজেলাধীন আলুটিলা, সাপমারা ও ব্যাঙমারা এলাকায় বিভিন্ন যানবাহনে চাঁদাবাজি, ভাঙচুর ও ছিনতাইয়ের ঘটনার সাথে জড়িত ছিল বলে পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে বলেও জানিয়েছেন মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সাহাদাত হোসেন টিটো।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *