মাটিরাঙ্গার কলেজ ছাত্র মামুনের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন ইউএনও


 

নিজস্ব প্রদিবেদক, মাটিরাঙ্গা:

মাটিরাঙ্গার দুর্গম পাহাড়ি জনপদ দলদলি মৌজার হরিপুর্ণ কার্বারী পাড়ার অভিনাথ ত্রিপুরা ও দ্বীনমালা ত্রিপুরা দম্পতির দ্বিতীয় ছেলে হৃদরোগে আক্রান্ত পরি বিক্রম ত্রিপুরার চিকিৎসার পর এবার মাটিরাঙ্গা ডিগ্রী কলেজের বিএ প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী মো. মহিউদ্দিন মামুনের চোখের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন মানবিক গুনসম্পন্ন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান।

দরিদ্র পরিবারের সন্তান কলেজ ছাত্র মো. মহিউদ্দিন মামুনের চোখের ছোট্ট একটি অপারেশনের অভাবে তার চোখের আলো যখন প্রায় নিভু নিভু তখনই স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কমান্ড নেতা মো. হারুন মিয়ার মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান।

জানার পরপরই তিনি এবিষয়ে খোঁজ-খবর নিতে থাকেন। এক পর্যায়ে তার অফিসে ডেকে কথা বলেন কলেজ শিক্ষার্থী মো. মহিউদ্দিন মামুন ও তার রিক্সা চালক বাবা মো. আমির হোসেনের সাথে।

সবকিছু শুনে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান কথা বলেন চট্টগ্রামের পাহাড়তলী চক্ষু হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের সাথেও। চিকিৎসক জানান খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে মো. মহিউদ্দিন মামুনের চোখে অপারেশন করা না হলে তার চোখের আলো হারিয়ে যেতে পারে। তিনি তার অপারেশনের যাবতীয় দায়িত্ব গ্রহনের কথা জানিয়ে চিকিৎসককে অপারেশনের ব্যবস্থা করতে বলেন।

এদিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমানের দায়িত্বভার গ্রহণের মধ্য দিয়ে ছেলের অনিশ্চিত চিকিৎসার নিশ্চয়তা তৈরী হওয়ায় আনন্দের শেষ নেই হতদরিদ্র পরিবারে। মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মামুনের বাবা রিক্সাচালক মো. আমির হোসেন বলেন, আমরা আজীবন তার কাছে ঋণী হয়ে থাকবো।

বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে ইউএনও আরেকজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের চিকিৎসার দায়িত্ব নেয়ায় কৃতজ্ঞতা জানান মো. আমির হোসেন।

এদিকে আগামীকাল মঙ্গলবার চট্টগ্রামের পাহাড়তলী চক্ষু হাসপাতালে কলেজ ছাত্র মো. মহিউদ্দিন মামুনের চোখের অপারেশন হবে জানিয়ে মামুন এ প্রতিবেদককে বলেন, এমন মানবিক গুনসম্পন্ন মানুষ আছে বলেই আমি দীর্ঘদিনের সমস্যা কাটিয়ে সুস্থ ও সুন্দর জীবনের স্বপ্ন দেখতে পারছি। আমি ও আমার পরিবার আজীবন স্যারের কাছে কৃতজ্ঞ থাকবো। স্যার পাশে না দাড়ালে আমার পরিবারের পক্ষে কখনোই আমার চোখের অপারেশন সম্ভব হতোনা। এমনটাই জানিয়েছে দীর্ঘ দিন ধরে চোখের সমস্যায় থাকা দরিদ্র পরিবারের সন্তান কলেজ ছাত্র মো. মহিউদ্দিন মামুন।

এ মানবতাবাদী উদার মানসিকতা থেকে শিক্ষা নেয়ার অনেক কিছু আছে বলে মন্তব্য করে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মো. হারুন মিয়া জানান মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমানের মানবিক হাত প্রসারিত করার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, তার উদ্যোগের ফলেই একটি অসুস্থ ছেলে সুস্থ জীবনে ফিরে আসার স্বপ্ন দেখছে। তিনি একটি চোখের নিভু নিভু আলো জ্বালিয়ে দেয়ার দায়িত্ব নিয়ে উদার মানসিকতার পরিচয় দিয়েছেন। তার মতো মানবিকগুন সম্পন্ন অফিসারই দেশকে বদলে দিতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *