parbattanews bangladesh

মহেশখালীর উপদ্বীপ ধলঘাটায় সুনামি বিষয়ক মহড়া অনুষ্ঠিত

মহেশখালী প্রতিনিধি:

কক্সবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম বলেছেন, নিজেদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সুনামীর মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় দেশের প্রতিটি জনগণের ভেতর চেতনাবোধ ও অধিক সদিচ্ছা জাগ্রত হওয়া দরকার।

৭ ফেব্রুয়ারি দুপুরে কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর ধলঘাটা সাপ মারার ডেইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়াদের অংশগ্রহণে ‘সুনামী’ বিষয়ক সচেতনমূলক মহড়ার প্রধান অথিতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

জাপান সরকারের আর্থিক সহায়তায় বাংলাদেশ সরকার সাথে ইউএনডিপি বাংলাদেশ স্কুল পর্যায়ে শিশুদের সুনামি সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে ‘সুনামী’ বিষয়ক সচেতনমূলক মহড়ার আয়োজন করে।

এদিনের অনুষ্ঠানে অথিতিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইউএনডিবির ন্যাশনাল কনসালটেন্ট আফরিন খান, ইউএনডিবির টেকিনক্যাল অফিসার সমীর সমদ্দার, ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল হাসান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

‘সুনামির মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে শিশুদের বাঁচানো জন্য স্কুল ভিত্তিক ‘সুনামী’ বিষয়ক সচেতনমূলক মহড়া অব্যাহত রেখেছে ইউএনডিপি বাংলাদেশ। একটি বিদ্যালয়, পড়ুয়াদের কর্মকাণ্ড ও গ্রাম বাংলার চিরাচরিত রুপ ধরা পড়ে এখানে।  দুর্যোগের সময় উপকূলের শিশুরা কিভাবে মোকাবেলা করবে তা স্কুল পড়ুয়ারা সংগীত, নাচ ও অভিনয়ের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলে। ভয়কে জয় করার প্রত্যয়ে নেয় শিশুদের এ অনুষ্ঠানে এলাকার মানুষের অংশ গ্রহণ ছিলো চোখে পড়ায় মতো।

বক্তারা  বলেন, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মতো এমন নিঃশব্দ শত্রুর হাত থেকে রক্ষা করতে হলে আমাদের এখনই উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন।

প্রসংগত, জাপান সরকারের আর্থিক সহায়তায় সুনামি ঝুঁকিতে থাকা বিশ্বের ১৮টি দেশ যথাক্রমে- বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া, ফিজি, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, পাকিস্তান, পাপুয়া নিউগিনি, ফিলিপাইন, সামোয়া, সলোমন দ্বীপপুঞ্জ, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, তৈমুর, টংগা, ভানুয়াচু এবং ভিয়েতনাম এ স্কুল পর্যায় সুনামি সচেতনতাবৃদ্ধিমূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন চলছে।

ইউএনডিপির সহযোগিতায় সুনামি ঝুঁকিতে থাকা বাংলাদেশেও প্রথমবারের মত কক্সবাজার ও মহেশখালী উপজেলার ৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একযোগে এই সুনামি সচেতনতাবৃদ্ধিমূলক প্রকল্প কার্যক্রম বাস্তবায়ন চলছে।